১২ আষাঢ়  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ

১২ আষাঢ়  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০১৯ 

BREAKING NEWS

প্রায় প্রতিদিনই বেড়ে চলেছে সূর্যের তেজ। যা সহজেই সাধারণ মানুষের মনে ভয়ের উদ্রেগ ঘটায়, এই বুঝি হিট স্ট্রোক হয়ে গেল৷ হঠাত্‍ অজ্ঞানও হয়ে যান কেউ কেউ৷ এদিকে বাড়ি থেকে না বেরিয়েও উপায় নেই৷ গলদঘর্ম অবস্থায় অফিসে ঢুকে বা বাড়ি ফিরেই এসি চালু করেন কেউ কেউ৷ বেশিরভাগ সময় সমস্যার সূত্রপাত কিন্তু এখানেই৷ গলা ব্যথা, সর্দি, সাইনাস হবেই৷ তাই রাস্তা থেকে এসে বিশেষ করে মাথার ঘাম না শুকানো পর্যন্ত এসি ঘরে ঢুকবেন না কিংবা স্নান করবেন না৷ এ ক্ষেত্রে প্রথমে পাখা চালিয়ে আগে শরীর ঠান্ডা করে নেওয়া ভাল৷ কীভাবে ভাল থাকবেন পরামর্শ দিচ্ছেন আয়ুর্বেদ বিশেষজ্ঞ ডা. প্রদ্যোত্বিকাশ কর মহাপাত্র

[পাকিস্তানের মোকাবিলা করতে সম্পূর্ণ ছাড় দেওয়া হয়েছে বিএসএফকে: রাজনাথ]

লু লাগলে শরীর খারাপ হবে না – রোজ রাতে কিছুটা মিছরি, কিছুটা ধনে বা মৌড়ির জল ভিজিয়ে রাখুন৷ সকালে তা ছেঁকে নিয়ে তাতে দু’-এক ফোঁটা রক্তচন্দন বাটা দিয়ে পান করুন৷ শরীর ঠান্ডা রাখবে৷ আর লু-এর গরম হলকা লেগে শরীর খারাপ লাগলে ততক্ষণাত্‍ এক গ্লাস জলে নুন, লেবু, চিনি মিশিয়ে পান করতে হবে৷

[আউশগ্রামে তৃণমূল পার্টি অফিসে বিস্ফোরণের ঘটনায় NIA তদন্ত দাবি বিজেপির]

গরমে ডায়েরিয়ার হাত থেকে বাঁচতে– কচি বেল বা বেলের শুট চূর্ণ করে তা সকাল-সন্ধ্যা খেলে ডায়েরিয়া হবে না৷ এছাড়া এক গ্রাম করে দিনে দু’বার মুথার চূর্ণ খাওয়ালে গরমে ডায়েরিয়া হবে না৷ থানকুনি পাতার রস এক চামচ করে দিনে দু’বার খেলেও ডায়েরিয়া হয় না৷ উল্টে পেট পরিষ্কার হয়৷

সুস্থ থাকতে যে যে পন্থা অবলম্বন করবেন:

  • গরম থেকে এসেই এসিতে ঢুকবেন না৷ রুমাল ভিজিয়ে যখন তখন মুখে দেবেন না৷
  • ঠান্ডা জল পান নয়৷ পূর্ণবয়স্করা রোজ অন্তত তিন-চার লিটার জল পান করুন৷
  • রাস্তায় আইসক্রিম, ঠান্ডা পানীয়, বরফ জল খাবেন না৷
  • পাকস্থলীকে উত্তেজিত করে এমন খাবার ঝাল-মশলাযুক্ত, ভাজাভুজি ও শুকনো খাবার এড়িয়ে সহজপাচ্য খাবার খান৷ হালকা ঝোল-ভাত খাওয়া ভাল৷ পাতে পাতিলেবু থাকা ভাল৷
  • রোজ দই খান৷ লস্যি খেলে অল্প শীতল জলে সাধারণ তাপমাত্রার জল মিশিয়ে তাতে কয়েকটি কাজু-কিশমিশ দিয়ে খেতে পারেন৷
  • কলা, আপেল, তরমুজ, আনারস, মুসম্বির রস ও অন্যান্য মরশুমি ফল বা ফলের রস খাওয়া ভাল৷ শরীর থেকে নুন বেশি বেরিয়ে যাওয়ায় সোডিয়াম-পটাশিয়াম খনিজযুক্ত ফল খান৷
  • আম পোড়ার সরবত খেলে হজমক্ষমতা বাড়বে৷ অনাবশ্যক গ্যাস পেট থেকে বেরিয়ে যাবে৷ গরমে শরীর চাঙ্গাও লাগবে৷

[গোরক্ষার নামে আইন হাতে নিলে কড়া ব্যবস্থার হুঁশিয়ারি যোগীর]

ঘামাচি, ব়্যাশের হাত থেকে বাঁচবেন কীভাবে– ঘামাচি, ব়্যাশ যাতে না হয়, তার জন্য রোজ স্নান করার সময় এক বালতি জলে সুগন্ধী অগরু অথবা চন্দনের ঘষা কিছুটা মিশিয়ে দিন৷ ফ্রেশ লাগবে৷ তবে যদি স্নান করেই বাইরে বেরনোর পরিকল্পনা থাকে তাহলে পাউডার মাখবেন না৷ বগলে, কুঁচকিতে, স্তনের নিচের দিকের খাঁজে পাউডার জমে ত্বকের রন্ধ্রের মুখ বুজিয়ে দেয়৷ সহজেই নোংরা জমে চুলকানি শুরু হয়৷ গরমকালে সূর্যের তেজ শুরু হওয়ার আগে ও সূর্যাস্তের পর স্নান করা ভাল৷ বিছানার চাদর নিয়মিত পরিষ্কার রাখা জরুরি৷ এসি ঘরে রোদ-বাতাস প্রবেশ করে না৷ তাই টানা অনেকক্ষণ এসিতে থাকাও কিন্তু উচিত নয়৷

শ্যামাদাস বৈদ্যশাস্ত্রপীঠ (যোগাযোগ-০৩৩ ২৩৫০৪১৫৯)

আরও জানতে ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং