২ ভাদ্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২০ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২ ভাদ্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২০ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

এই মরশুমে ত্বকের যত্নে চাই খাঁটি তেলে বডি ম্যাসাজ। ত্বকের জন্য কোন বডি অয়েল সবচেয়ে ভাল তা আগে বুঝে তবে কেনা উচিত। এমনই এক ভাল তেলের কথা জানালেন অ্যালেন ল্যাবরেটরিজের চেয়ারম্যান ডা. জি.পি. সরকার। শুনলেন জিনিয়া সরকার।

ক্রিম আমরা মুখে মাখি আর বডি অয়েল সারা শরীরে ম্যাসাজ করতে হয়। নিয়মিত ম্যাসাজের প্রভাবে ত্বক ভাল থাকে। আর বডি অয়েল যদি ভাল হয় তবে ম্যাসাজে কাজ হয় অনেক বেশি। তাই তেলে যে যে উপাদান রয়েছে তা কতটা ঠিক পরিমাণে রয়েছে সেটাও সঠিকভাবে বিচার করে ব্যবহার জরুরি। বাজার চলতি অধিকাংশ তেলেই কেমিক্যাল রয়েছে। এছাড়া যে যে উপাদান আছে বলে দাবি করা হয় তার কত শতাংশ সত্যি রয়েছে তা বোঝা কঠিন। তাই ব্র‌্যান্ডে না মজে তেলের উপাদান সম্পর্কে বেশি ভাবনাচিন্তা করা জরুরি।

ভেবে দেখলে বোঝা সহজ

পুষ্টিকর খাবার খেলে যেমন তার প্রভাব শরীরে পড়ে তেমনই বডি অয়েল যতবেশি পুষ্টিকর উপাদান সমৃদ্ধ হবে তার প্রভাবেও ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করবে। এর উপরই নির্ভর করে তেলের পুষ্টিগুণ ও ময়েশ্চারাইজিং এফেক্ট। শরীর থেকে যেমন ঘাম বের হয় তেমনভাবেই বাইরে থেকে কোনও জলীয় উপাদান বা তেল ত্বকে খুব ভালভাবেই দ্রবীভূত হয়। বডি অয়েলের ময়েশ্চারাইজিং এফেক্ট ত্বককে মোলায়েম রাখতে সাহায্য করে। তাই ক্ষতিকর কেমিক্যালযুক্ত তেল হলে কতটা খারাপ হতে পারে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

তবে উপকারী কোন তেল?

ত্বকের উপকারী, পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ তেল হল তিল, বাদাম তেল, অলিভ অয়েল, জোজবা অয়েল ও ভিটামিন ই যুক্ত বডি অয়েল। বডি অয়েল সাধারণত তাঁদেরই বেশি প্রয়োজন যাঁদের ত্বক শুষ্ক। অনেকেই মনে করেন যে কোনও গাঢ় তেলই হয়তো শুষ্ক ত্বকের জন্য ভাল। আদৌ তা নয়। সবরকম ত্বকের ক্ষেত্রে অলিভ মিশ্রিত বা অলিভ অয়েল সবচেয়ে ভাল। এছাড়া ত্বকের লাবণ্য বাড়াতে নিয়মিত ফল খেতে হবে ও তৈলাক্ত খাবার কম খেতে হবে।

কখন বেশি প্রয়োজন

ত্বক নিজে নিজেই অয়েল তৈরি করে ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বজায় রাখে। এই প্রক্রিয়াটি শরীরের বিভিন্ন হরমোনের উপর নির্ভর করে। তাই বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বিভিন্ন শারীরিক পরিবর্তনের কারণে ত্বকের উজ্জ্বলতা কমতে থাকে। তখন উপযুক্ত বডি অয়েলে ত্বকের ম্যাসাজ জন্য অত্যন্ত জরুরি।

গবেষণায় ত্বকের উপযুক্ত তেল

প্রায় ৫০ বছর ধরে বিভিন্ন গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন ডা. সরকার। ত্বকের উপযোগী করে তুলতে নানা উপাদান মিশিয়ে তিনি তৈরি করেছেন ‘অলিভঅ্যালেন’ বডি অয়েল। অলিভ অয়েলে অলিভ ছাড়াও দারুহরিদ্রা, মঞ্জিষ্ঠা, হলুদ ইত্যাদি নানা আয়ুর্বেদিক উপাদান মিশিয়ে তা ত্বকের উপযোগী করে তোলেন। দীর্ঘ গবেষণা করে এই তেলে প্রতিটি উপাদান পরিমিত পরিমাণে মেশানো হয়। কম-বেশি হলে তেলের সেই গুণ প্রকাশ পায় না। তাই নানাভাবে গবেষণা করে তেলে কোন উপাদান কতটা মেশানো হবে তা ঠিক করা হয়।

এছাড়াও তেলে মেশানো প্যারাফিন নিয়ে নানা জনের নানা সংশয় থাকে। আসলে এই প্যারাফিন কী গ্রেডে মেশানো হচ্ছে সেটার উপর নির্ভর করে তেলের গুণাগুণ। এই বিশেষ তেলে মেশানো হয়েছে আইপি গ্রেডের প্যারাফিন। তাই ত্বকের ক্ষতি হবে না তা নিশ্চিন্তে দাবি করা যায়।

শীতে হাত ঠান্ডা হয়ে যাচ্ছে? জেনে নিন গরম করার উপায়  ]

খাবারে রং মেশালে তা শরীরের জন্য ক্ষতিকর। তবু খুব উচ্চমানের মিষ্টির দোকানে গিয়ে রঙিন মিষ্টি খেতে কোনও দ্বিধাবোধ হয় না। কারণ উচ্চমানের দোকান মানেই সেই মিষ্টিতে মেশানো যে কোনও রং ফুড গ্রেডের হয়। তেমনই ‘অলিভঅ্যালেন’ বডি অয়েল তৈরির ক্ষেত্রে সেইসব উপাদানকেই ডা.সরকার প্রাধান্য দিয়েছেন যে উপাদানগুলি ওষুধ তৈরির জন্য স্বীকৃত। কোনও কমার্শিয়াল গ্রেডের উপাদান এতে মেশানো হয়নি।

রিসার্চ ওয়ার্কই শেষ কথা

সর্বপ্রথম ড. সরকার নিজের তত্ত্বাবধানে প্রথম পর্যায়ে তেল তৈরি করেন। সেই ফর্মুলা মেনেই পরবর্তী সব পর্যায়ে এই বডি অয়েল তৈরি করেন ল্যাবের অন্যান্য কেমিস্টরা। বডি অয়েল তৈরির ক্ষেত্রে প্রতিটি বিষয়ে কোয়ালিটি কন্ট্রোল বিভাগ পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে বিচার করেন। আধুনিক যন্ত্র স্পেক্টোফটোমিটার দিয়ে এই তেল স্ট্যান্ডারাইজেশন করা হয়।

মানুষকে মাথায় রেখে বিচার

বাজারে অলিভ অয়েল নানা রকমের রয়েছে। তবে কোনটি সবচেয়ে ভাল মানের তেল সেই নিয়ে নানা জনের নানা মত।

ত্বকের ন্যাচারাল ময়েশ্চারাইজার হল ‘সিবাম’। যা ত্বক নিজেই তৈরি করে ত্বকের তৈলাক্তভাব ধরে রাখে। শীতকালে ত্বকের এই উপাদান খুব দ্রুত বাষ্পীভূত হয়ে যায়। ফলে ত্বকের ময়েশ্চারাইজার বা আর্দ্রতা কমতে থাকে। তখন বাইরে থেকে তেল মেখে আমরা ত্বকের সেই আর্দ্রতা ধরে রাখার চেষ্টা করি।

এই তেল প্রস্তুতির ক্ষেত্রে দেখা গেল, অলিভ মিশ্রিত তেল সবরকম ত্বকের উপযোগী হলেও তার প্রভাব ত্বকে দীর্ঘস্থায়ী হচ্ছে না। সারাদিন ত্বক মোলায়েম থাকছে না। তখন শুরু হল গবেষণা। বিভিন্ন রিসার্চের তথ্য পড়ে জানা গেল ‘জোজবা’ ফল থেকে যে তেল বের হয় সেই তেলে থাকা উপাদান আমাদের ত্বকের ‘সিবাম’ নামক উপাদানের পরিপূরক। তাই জোজবা অয়েল মিশ্রিত তেল লাগালে তা ত্বকে দীর্ঘ সময় পর্যন্ত বা সারাদিন তৈলাক্তভাব ধরে রাখতে সাহায্য করে। ডা. সরকারই সর্বপ্রথম যিনি বডিঅয়েলে জোজবা ব্যবহার শুরু করেন। তাই ‘অলিভঅ্যালেন’ বডি অয়েল অলিভ অয়েল হয়েও অনেক তেলের চেয়ে মানে উন্নত ও গুণে সেরা।

পরামর্শে: ৮৯৬১০০২৫৪৫

বার্ধক্যেও চনমনে থাকতে চান? অবশ্যই নিন স্টিম বাথ ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং