BREAKING NEWS

২১ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ৪ জুন ২০২০ 

Advertisement

সমুদ্রের পাড়েই উদ্দাম যৌনতায় মেতে উঠলেন যুগল, তারপর…

Published by: Sayani Sen |    Posted: February 9, 2020 3:47 pm|    Updated: February 9, 2020 9:46 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মনের মানুষের সঙ্গে একান্তে কিছুটা সময় কাটাবেন বলেই ভেবেছিলেন এক যুগল। তাই বেছে নিয়েছিলেন ফিলিপিন্সের আকলান প্রদেশের বোরসাই সমুদ্র সৈকতকে। এ পর্যন্ত ঠিকই ছিল। কিন্তু গণ্ডগোল হল অন্য ক্ষেত্রে। সমুদ্র সৈকতে নিজেদের আর ধরে রাখতে পারেননি তাঁরা। স্থান-কালের কথা ভুলে ভিড়ে ঠাসা সমুদ্র সৈকতেই উদ্দাম যৌনতায় মেতে উঠলেন দু’জনে। এই অভিযোগে গ্রেপ্তারের পর আদালতেও তোলা হয় তাঁদের।

ব্রিটিশ মহিলা জেসমিন নেলি এবং অস্ট্রেলিয় যুবক অ্যান্টনি কারিও’র মধ্যে সম্পর্ক তৈরি হয় বেশ কয়েক বছর আগে। সময় পেলেই এদিক-ওদিক বেড়াতে বেরিয়ে পড়েন তাঁরা। ২৬ বছর বয়সি এই যুগল বেড়িয়েছিলেন ফিলিপিন্সের আকলান প্রদেশের বোরসাই নামে এক পারিবারিক সৈকতে। দু’জন মিলে একান্তে কিছুটা সময় কাটানোই ছিল তাঁদের উদ্দেশ্য। সমুদ্রসৈকতে কেউ নোনা জলে পা ভিজিয়ে হেঁটে বেড়াচ্ছেন, তো কেউ উপভোগ করছেন সৌন্দর্য। আবার কেউ গল্পগুজবে ব্যস্ত।

Philippines-beach

সেই সময় সমুদ্রের পাড়েই উদ্দাম শরীরী খেলায় মেতে ওঠেন ওই যুগল। পারিবারিক সমুদ্র সৈকতে জেসমিন এবং অ্যান্টনির কার্যকলাপে বেশ খানিকটা অস্বস্তিতে পড়ে যান প্রায় সকলেই। যৌনতায় নিষেধাজ্ঞা জারি করেন কেউ কেউ। তবে সে কথায় কান দেওয়ার মতো সময় ছিল না যুগলের। পরিবর্তে নিজেদের মতো করে একে-অপরকে ছুঁয়ে দেখার খেলায় মত্ত তাঁরা।

[আরও পড়ুন: পর্নোগ্রাফি দেখে সঙ্গমে উদ্যত স্বামী, অনলাইনে খুঁজে পেলেন স্ত্রীরই নীল ছবি!]

বাধ্য হয়ে সৈকতে উপস্থিত সকলেই খবর দেয় পুলিশে। খবর শুনেই তড়িঘড়ি ফিলিপিন্সের আকলান প্রদেশের বোরসাই নামে এক পারিবারিক সৈকতে পৌঁছন পুলিশকর্মীরা। তবে পুলিশকে দেখেও হেলদোল নেই তাঁদের। পুলিশের সামনেও শরীরী খেলা চালিয়ে যান দু’জনেই। প্রকাশ্যে যৌনতায় বাধা পেয়েও হুঁশ না ফেরায় বাধ্য হয়ে ওই যুগলকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। হাতকড়া পরিয়ে পুলিশের গাড়িতে তোলা হয় তাঁদের। জোয়েল বাঙ্গা নামে এক পুলিশ আধিকারিক বলেন, “তাতেও স্বাভাবিক হয়নি ওই যুগলেরা। পুলিশের গাড়িতে ওঠার পরেও বারবার যৌনতায় মেতে ওঠেন তাঁরা।”

Philippines-beach

প্রকাশ্যে যৌনতার অভিযোগের জল গড়ায় আদালতেও। দু’জনকে আদালতে তোলা হয়। জামিন পেয়ে যান জেসমিন নেলি এবং অ্যান্টনি কারিও। ফিলিপিন্সের আদালতে চলতি মাসেই আবারও হাজিরা দিতে হবে তাঁদের। যদি কোনও কারণে হাজিরা না দেন, সেক্ষেত্রে ওই যুগলের ফিলিপিন্সে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি হতে পারে। কিন্তু কেন এমন করলেন ওই যুগল? পুলিশের দাবি, অত্যধিক মদ্যপানের জেরে এমন তালজ্ঞানশূন্য হয়ে গিয়েছিলেন ওই যুগল। স্বাভাবিক হওয়ার পর যদিও গোটা ঘটনার জন্য দুঃখপ্রকাশ করেছেন তাঁরা।

Beach

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement