২ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ২০ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রতি মাসের যন্ত্রণা। তার মূল্যও কম নয়। শারীরিক দিক তো আছেই। আর্থিক দিকেও অনেকটা ধকল সইতে হয় মহিলাদের। ঋতুকালে প্যাডের খরচ বহন করতে না পেরে আজও অনেকেই অস্বাস্থ্যকর পদ্ধতির দ্বারস্থ হন। সমস্যা দূর করতে এগিয়ে এল কেন্দ্র। এবার সরকারি আনুকুল্যে মোটে আড়াই টাকাতেই মিলবে একটি প্যাড।

[  সুস্থ থাকতে পিরিয়ডের সময় ৩-৪ ঘণ্টা অন্তর বদলে ফেলুন প্যাড ]

আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে এই ঘোষণা। এভাবেই দেশের নারীশক্তির পাশে দাঁড়াল সরকার। কেমিক্যাল ও ফার্টিলাইজার মন্ত্রকের অধীনস্থ ফার্মাসিউটিক্যাল বিভাগ এই ঘোষণা করে। ঘোষণা মোতাবেক প্রতি প্যাডের দাম হবে আড়াই টাকা। দশ টাকায় মিলবে চারটি প্যাডের একটি প্যাকেট। যার নাম দেওয়া হয়েছে ‘সুবিধা’। প্রধানমন্ত্রী ভারতীয় জনৌষধি পরিযোজনা কেন্দ্রে ২৮ মে থেকে এই প্যাড পাওয়া যাবে।এই প্যাড হবে বায়ো ডিগ্রেডেবল। সাধারণত চারটি প্যাডের বাজারমূল্য ৩২ টাকার কাছাকাছি। কেন্দ্রীয় প্রকল্পে প্রায় তিন গুণ কম দামেই এবার তা পাবেন মহিলারা।

[  এবার মহিলাদের জন্য কম খরচে জৈব পচনশীল স্যানিটারি প্যাড আনছে রেল ]

২০১৫-১৬’র একটি সমীক্ষা মোতাবেক ৫৮ শতাংশ মহিলাই স্থানীয় সংস্থার তৈরি প্যাড ব্যবহার করেন। গরিষ্ঠসংখ্যক মহিলা এখনও তা ব্যবহার করতে পারেন না। তার প্রধান কারণ আকাশছোঁয়া দাম। স্যানিটারি ন্যাপকিনের উপর জিএসটি ধার্য করা নিয়েও দিকে দিকে আন্দোলন দানা বেঁধেছিল। অনেকেই বলেছিলেন, এটা মহিলাদের বিলাসিতা নয়। বরং প্রয়োজনের জিনিস। সেখানে মাত্রাছাড়া জিএসটি কোপ কেন? বহু জায়গাতেই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা বিনামূল্যে প্যাড বিলির সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এমনকী গড়ে তোলা হয়েছে প্যাড ব্যাংকও। এদিকে সাধারণ মানুষ যাতে সস্তায় জীবনদায়ী ঔষধ পান, তা নিয়ে বার্তা দিয়েছিলেন খোদ প্রধানমন্ত্রীও। অনেকটা সে কথা মাথায় রেখেই সস্তায় স্যানিটারি ন্যাপকিন পাওয়ার বন্দোবস্ত করল সরকার।

[  দুঃস্থ মহিলাদের বিনামূল্যে স্যানিটারি ন্যাপকিন দিতে এবার দেশে ‘প্যাড ব্যাংক’ ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং