BREAKING NEWS

২৬  শ্রাবণ  ১৪২৯  রবিবার ১৪ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

রেলের ওয়াইফাই কাজে লাগিয়ে চুটিয়ে ডাউনলোড হচ্ছে পর্ন! শীর্ষে কোন শহর জানেন?

Published by: Biswadip Dey |    Posted: June 11, 2022 2:28 pm|    Updated: June 11, 2022 2:28 pm

Secunderabad railway station tops in adult content search using rail wifi। Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: যুগটা প্রযুক্তির। আর সেকথা মাথায় রেখেই দেশের বিভিন্ন স্টেশনে নিখরচায় ইন্টারনেট ব্যবহারের সুযোগ করে দিতেই চালু হয়েছিল ওয়াইফাই। কিন্তু জানেন কি, সেই সুবিধাকে কাজে লাগিয়েই দেদারে ডাউনলোড করা হচ্ছে পর্ন (Adult content)। আর এব্যাপারে শীর্ষে সেকেন্দ্রাবাদ। কেবল সেখান থেকেই ৩৫ শতাংশ নীল ছবি ডাউনলোড হয়েছে। এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকেই এই চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ্যে এল।

জানা যাচ্ছে, রেলটেল নামের যে সংস্থাটি রেলের ওয়াইফাই (Wifi) পরিষেবা দেয়, তাদের কাছে জমা পড়া তথ্য থেকেই এই বিষয়টি ফুটে উঠেছে। তালিকায় সেকেন্দ্রাবাদের পরেই রয়েছে বিজয়ওয়াড়া ও তিরুপতি স্টেশনের নাম রয়েছে। উপরের দিকেই রয়েছে হায়দরাবাদের নামও। প্রাপ্ত তথ্য থেকে দেখা গিয়েছে, সব মিলিয়ে দেশের যে ৫৮৮টি রেল স্টেশনে ওয়াইফাই চালু রয়েছে তাতে ইউটিউব ডাউনলোডস ও টপ সার্চের তালিকায় অধিকাংশই পর্ন!

[আরও পড়ুন: ‘হজরত মহম্মদ আজ বেঁচে থাকলে…’, দেশজুড়ে বিক্ষোভের মাঝেই মুখ খুললেন তসলিমা]

এক সর্বভারতীয় সংস্থার সঙ্গে এই বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে রেলটেলের এক শীর্ষ আধিকারিক জানাচ্ছেন, ”আমাদের গেটওয়ে ডেটা দেখাচ্ছে, ওয়াইফাই সার্চে প্রচুর পরিমাণে পর্ন কনটেন্ট রয়েছে। যদিও শতাধিক পর্ন ওয়েবসাইটই বন্ধ রাখা হয়েছে। কিন্তু ভিপিএন ও কিছু ওয়েবসাইট, যা শিগগিরি কালো তালিকাভুক্ত হতে চলেছে, সেগুলির সাহায্যেই এখনও ডাউনলোড করা যাচ্ছে।”

দেশে দৈনিক ১২ লক্ষ মানুষ ওয়াইফাইয়ের সাহায্যে বিভিন্ন রেল স্টেশন থেকে ইন্টারনেট ব্যবহার করেন। তবে প্রথম আধঘণ্টাই বিনামূল্যে পাওয়া যায়। পরবর্তী সময়ের জন্য ‘পেইড’ ওয়াইফাই রয়েছে। এপ্রসঙ্গে ওই আধিকারিকের বক্তব্য, ”গড় হিসেব বলছে, একজন ইউজার ৩০ মিনিটে ৩৫০ এমবি খরচ করতে পারে। আর এই ডেটার ৯০ শতাংশই পর্ন কনটেন্ট।”

[আরও পড়ুন: মুখ্যমন্ত্রীর আবেদনে সাড়া না দিয়ে ফের রেল-রাস্তা অবরোধ হাওড়ায়, কড়া পদক্ষেপের পথে প্রশাসন]

ভারতের মতো তৃতীয় বিশ্বের দেশে যৌন নির্যাতনের বাড়বাড়ন্তের পিছনে পর্নের আসক্তির মতো একটা ফ্যাক্টরও রয়েছে বলে মত ওয়াকিবহাল মহলের। সরকারের তরফে বিভিন্ন পর্ন ওয়েবসাইট বন্ধও করে দেওয়া হয়েছে। তবুও যে সুযোগ পেলেই এই ধরনের কনটেন্ট ডাউনলোড করার প্রবণতা বাড়ছে তা আবারও স্পষ্ট করিয়ে দিল এই পরিসংখ্যান।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে