১ কার্তিক  ১৪২৬  শনিবার ১৯ অক্টোবর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

১ কার্তিক  ১৪২৬  শনিবার ১৯ অক্টোবর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: স্বাধীনতা সংগ্রামী ও সমাজ সংস্কারক কমলাদেবী চট্টোপাধ্যায়ের ১১৫ জন্মদিন। এই জন্মদিন উপলক্ষে কমলাদেবীকে সম্মান জানাতে সৃজনশীল ডুডল করল গুগল। সৃজনীর অঙ্গনে এই মহান প্রাণের অবদান কম নয়। ঔপনিবেশিক সংস্কৃতিতে একটু একটু করে যে দেশ নিজের স্বকীয়তাকে বিসর্জন দিয়েছে, সেই দেশকেই আবার সাংস্কৃতিক উৎকর্ষতায় পৌঁছে দিয়েছেন কমলাদেবী। ভারতের নিজস্ব সম্পদ হস্তশিল্পকে করেছেন মধ্যমণি। হ্যান্ডলুমও যে শিল্প-বাণিজ্যে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা নিতে পারে, তাও দেখিয়েছেন কমলাদেবীই। ভারতীয় মহিলাদের আর্থ-সামাজিক স্তরকে সম্মানজনক জায়গায় নিয়ে আসতে নিরলস পরিশ্রম করেছেন কমলাদেবী চট্টোপাধ্যায়।থিয়েটার যে মানব অভিব্যক্তির এক উন্মুখ বাতায়ন, তা মানতেন তিনি। তাই দেশীয় থিয়েটার শিল্পে নবজাগরণ আসে তাঁর হাত ধরেই।

[‘ক্ষতিপূরণ বিস্কুট ভাগ করে দেওয়া নয়’, বেফাঁস মন্তব্য ভি কে সিংয়ের]

বলা বাহুল্য, শুধু ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামে অবদান রাখার জন্যই যে কমলাদেবীকে মনে রাখতে হবে, এমন নয়। ভারতীয় হস্তশিল্পের যে জোয়ার একসময় এসেছিল, তার সূচনাও কিন্তু কমলাদেবী চট্টোপাধ্যায়ের হাতেই। হস্তশিল্পের পাশাপাশি হ্যান্ডলুম ও থিয়েটারের উৎকর্ষতার পিছনে কমলাদেবীর অবদান অবিস্মরণীয়। একই সঙ্গে ভারতীয় সমবায় আন্দোলনের পথিকৃৎ কমলাদেবী নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে দেশের মহিলাদের উন্নয়নের ব্যবস্থা করতে অগ্রণী ভূমিকা নিয়েছিলেন। তাঁর হাত ধরেই ভারতীয় সমাজ ব্যবস্থায় নারীর সামগ্রিক আর্থ সামাজিক উন্নয়ন সাধিত হয়।

kamala-17095

ভারতীয় থিয়েটারের নবজাগরণে তিনিই অগ্রদূত। দিল্লির প্রখ্যাত থিয়েটার কর্মশালা ন্যাশনাল স্কুল অফ ড্রামা, সংগীত নাটক অ্যাকাডেমি গড়ে ওঠার পিছনে তাঁর স্বপ্নই পথ দেখিয়েছে। হাতে করে গড়ে তুলেছেন সেন্ট্রাল কটেজ ইন্ডাস্ট্রিজ এম্পোরিয়াম, কারুশিল্প সংসদ। এহেন সমাজ সংস্কারককে তো সম্মাননা জানাতেই হয়। সংগীত নাটক অ্যাকাডেমির ফেলোশিপ প্রাপকের তালিকার প্রথমেই রয়েছে কমলাদেবী চট্টোপাধ্যায়ের নাম। ন্যাশনাল অ্যাকাডেমি অফ মিউজিক, ড্যান্স, ড্রামার তরফেও এসেছে সম্মান।

শুধু স্বাধীনতা সংগ্রাম বা সমাজ সংস্কারেই তাঁর প্রতিভা সীমাবদ্ধ থাকেনি। বইও লিখেছেন কমলাদেবী চট্টোপাধ্যায়। জাপানের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক নিয়ে বইও লিখেছেন তিনি। বইতে সেদেশের দুর্বলতা ও শক্তি নিয়েই আলোচনা করেছেন। আঙ্কল স্যামের রাজত্ব, চিনের যুদ্ধ। একটি একটি করে তাঁর রচিত বইয়ের সংখ্যাও নেহাত কম নয়।

[আধার লিঙ্কের নামে প্রতারণা, নালন্দা থেকে কলকাতা পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার ‘ডন’]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং