BREAKING NEWS

২০ চৈত্র  ১৪২৬  শুক্রবার ৩ এপ্রিল ২০২০ 

Advertisement

চলন্ত ট্রেনে অপরাধ রুখতে নয়া উদ্যোগ, ‘সহযাত্রী’ অ্যাপ আনল ভারতীয় রেল

Published by: Sulaya Singha |    Posted: November 3, 2019 3:33 pm|    Updated: November 3, 2019 3:33 pm

An Images

সুব্রত বিশ্বাস: চলন্ত ট্রেনে অপরাধ রুখতে এবার নতুন অ্যাপ ও ওয়েবসাইট খুলল রেল। এই দুই প্রক্রিয়া চালুর সুফল পাবেন যাত্রীরা ও পুলিশ প্রশাসন। ‘সহযাত্রী’ (sahyatri) এই অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ ও ওয়েবসাইটে করা যাবে অপরাধ সংক্রান্ত সমস্ত অভিযোগ।

অভিযোগ পাওয়া মাত্র দেশের সব রেল পুলিশ থানা একসঙ্গে তা অনুধাবন করে সাহায্যে প্রস্তুতি নিতে পারবে। ওয়েবসাইটে ও অ্যাপের মাধ্যমে দেশের ওয়ান্টেড ক্রিমিনালদের ফটো ও এই সংক্রান্ত তথ্য দেওয়া হয়েছে। রয়েছে ট্রেনে ডাকাতি ও চুরিতে খোয়া যাওয়া সামগ্রীর তালিকা। হারিয়ে যাওয়া মানুষদের নাম ও তথ্যও থাকছে। থাকবে ট্রেনে অস্বাভাবিকভাবে মারা যাওয়া বা কাটা পড়া মানুষজনের ছবি, যাদের পরিচয় এখনও পাওয়া যায়নি। ঘটনাস্থলেরও ছবি থাকবে। কোন কোন অপরাধে কী আইন, কী সাজা সেসবও জেনে নেওয়া যাবে। এই অ্যাপ ও ওয়েবসাইট থেকে এমার্জেন্সি কল করার পাশাপাশি অন্য সিটিজেন সার্ভিসও যাওয়া যাবে।

[আরও পড়ুন: ইজরায়েলের থেকে স্পাইওয়্যার কেনা হয়নি, হোয়াটসঅ্যাপ কাণ্ডে দায় এড়াল কেন্দ্র]

অ্যাপে বা সাইটে অভিযোগ জানানো মাত্র জিপিএস সিস্টেমের মাধ্যমে কাছাকাছি থানা ও জিআরপি লোকেশন জানিয়ে দেবে গুগল। রেল বোর্ড সূত্রে জানা গিয়েছে, চলন্ত ট্রেনে অপরাধের ঘটনা ঘটলে অভিযোগ জানাতে সমস্যা হয়। এক জায়গার ঘটনার জন্য অভিযোগ করতে হয় গন্তব্যে পৌঁছে। ততক্ষণে অপরাধী নাগালের বাইরে। অভিযোগ ঘটনাস্থলের কাছাকাছি রেল পুলিশ থানায় আসে বহু পরে। তারপর হয় তদন্ত। ফলে অনেক ক্ষেত্রেই অপরাধী অধরা থেকে যায়। এই ধরনের সমস্যার সমাধানের জন্যই এই সাইট ও অ্যাপ।

ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে দেশের সব রেল পুলিশ থানা জানতে পারবে একসঙ্গে। ঘটনাস্থলের আশপাশের রেল পুলিশ থানাগুলি তৎপর হতে পারবে অপরাধ দমনের জন্য। অ্যাপ স্টোরে গিয়ে ডাউনলোড করে সিটিজেন সার্ভিসকে ট্যাগ করে অপশন চয়েস করতে হবে। এরপর ওই সংক্রান্ত ফর্ম ফিলাপ করে অভিযোগ জমা দিতে হবে। এই অভিযোগপত্রটি লোড হওয়া মাত্র দেশজুড়ে প্রতিটি রেল পুলিশ থানা ও পুলিশ প্রশাসন দেখতে পাবে। তারা তৎপর হতে পারবে সঙ্গে সঙ্গে।

[আরও পড়ুন: ভারত থেকে ব্যবসা গুটিয়ে নিচ্ছে ভোডাফোন! কী বলছে টেলিকম সংস্থা?]

Advertisement

Advertisement

Advertisement