BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

যৌনতা নিয়ে প্রশ্ন? এই ওয়েবসাইটে মিলবে সব উত্তর

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: November 4, 2017 4:09 pm|    Updated: September 26, 2019 12:20 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: যৌনজীবনে সমস্যা রয়েছে। অথচ কারও সঙ্গে মন খুলে সে বিষয় নিয়ে আলোচনা করতে পারছেন না। অথবা সঙ্গম নিয়ে নানা ভুল ধারণা মাথায় বাসা বাঁধলেও সঠিক পথ দেখানোর লোক নেই। প্রশ্ন একগুচ্ছ। কিন্তু উত্তর দেবে কে? এবার সমাধান হাতের মুঠোয়। বাড়ি থেকে বেরনোর প্রয়োজন নেই। সঙ্গম সংক্রান্ত বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর ভেসে উঠবে আপনার ল্যাপটপ বা স্মার্টফোনেই।

বিশ্বায়নের যুগে এখন যে কোনওরকম সমস্যা মিটিয়ে ফেলা এতটাই সহজ হয়ে গিয়েছে। অঙ্ক থেকে ভৌতবিজ্ঞান, সব শিক্ষাই পড়ুয়ারা পেয়ে যায় স্মার্টফোনের এক ক্লিকে। এবার যৌনশিক্ষাও হবে এতটাই সহজ। শনিবার আত্মপ্রকাশ করল O.school নামের একটি ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম। যেখানে অনলাইনেই সঠিক সঙ্গম এবং যৌনজীবনে স্ফূর্তি আনার নানা পরামর্শ দেওয়া হবে। আর সেসব কথোপকথন হবে সম্পূর্ণ নিরাপদে। এ দেশে এখনও স্কুলে যৌন শিক্ষা নিয়ে নানা ট্যাবু রয়েছে। তাই এমন ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম ভারতের যুবপ্রজন্মের জন্য যে লাভজনক হবে, তা বলাই বাহুল্য।

[বাঁকা পুরুষাঙ্গে ঝুঁকি থাকছে ক্যানসারের, মত বিশেষজ্ঞদের]

ওয়েবসাইটটি জানাচ্ছে, যৌনতা নিয়ে এক্কেবারে অন্য কায়দায় শিক্ষা দেবে O.school। লাইভ স্ট্রিমিংয়ে যেমন করা যাবে প্রশ্ন, তেমনই চ্যাটিংয়েও নিজেদের সমস্যার কথা জানাতে পারবেন টেক স্যাভিরা। সন্তানদের যৌনশিক্ষা দেওয়ার প্রতি বাবা-মায়ের রক্ষণশীল মনোভাবই অনেক ক্ষেত্রে যুবপ্রজন্মকে পর্ন ছবির প্রতি বেশি আকৃষ্ট করে তোলে। আন্দ্রে বারিকার মস্তিষ্কপ্রসূত ওয়েবসাইটটি এই দুয়ের মধ্যে সেতুর মতো কাজ করবে বলেই মনে করা হচ্ছে। যৌন বিশেষজ্ঞরাই জানিয়ে দেবেন, সঙ্গমের ক্ষেত্রে কোন কাজটি ঠিক এবং কোনটি করলে সমস্যা হতে পারে। লাইভ স্ট্রিমিংয়েই আলোচনা করা হবে মুখমেহন, শরীরিক গঠনের মতো বিভিন্ন বিষয় নিয়ে। এবং বিশেষজ্ঞরা চ্যাটের মাধ্যমে সমস্ত ধরনের প্রশ্নের উত্তর দেবেন। আপাতত এই পরামর্শের জন্য নেটিজেনদের সাধ্য মতোই অর্থ দিতে বলা হচ্ছে। পরে টাকার বিনিময়ে ওয়েবসাইটের সদস্য হওয়ারও সুযোগ রয়েছে। O.school-এর প্রথম লাইভটি হবে মহিলাদের উপর যৌন হেনস্তা নিয়ে। সম্প্রতি বিশ্ব জুড়ে মি টু হ্যাশট্যাগ দিয়ে বহু মহিলা নিজেদের শারীরিক নির্যাতনের কথা তুলে ধরেছিলেন। তাই শুরুতেই এই বিষয়টি বেছে নেওয়া হয়েছে। সঙ্গে দর্শকদের উদ্দেশে এও জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, লাইভ চ্যাটে কেউ বর্ণবিদ্বেষমূলক অথবা অন্য কোনও অপ্রীতিকর কমেন্ট করলে তাঁকে নির্বাসিত করে দেওয়া হবে। সম্পূর্ণ নিরাপদে যৌনশিক্ষার জন্য তাই এই ওয়েবসাইট বেছে নেওয়া যেতেই পারে।

[ঘরোয়া উপায়ে কীভাবে দূর করবেন মুখের বলিরেখা?]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement