BREAKING NEWS

২৩ শ্রাবণ  ১৪২৭  শনিবার ৮ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

TikTok-এর অভাব পূরণ করবে ‘টুকটাক’, অ্যাপ বানিয়ে তাক লাগালেন পুরুলিয়ার যুবক

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: August 2, 2020 2:03 pm|    Updated: August 2, 2020 2:03 pm

An Images

সুমিত বিশ্বাস, পুরুলিয়া: TikTok-এর বিকল্প ‘টুকটাক’! নয়া অ্যাপ তৈরি করে নজর কাড়লেন পুরুলিয়ার প্রত্যন্ত গ্রামের যুবক। লাদাখে ২০ ভারতীয় জওয়ান শহিদ হওয়ার পরেই কেন্দ্র সরকার টিকটক-সহ একাধিক চিনা অ্যাপ ব্যান করে দেয়। এরপরেই পুরুলিয়ার ঝালদা ১ ব্লকের প্রত্যন্ত গ্রাম পুস্তির যুবক প্রসেনজিৎ কুইরি তাঁর বন্ধুবান্ধব নিয়ে টিকটকের বিকল্প ‘টুকটাক’ অ্যাপ নিয়ে আসে। ইতিমধ্যে তা নজর কেড়েছে। টিকটকের স্বাদ মিটছে ‘টুকটাক’-এ। গত ৫ জুলাই এই অ্যাপ Google Play Store-এ আপলোড করেন প্রসেনজিৎ। তারপর থেকে প্রায় চার হাজার জনের বেশি এই অ্যাপ ডাউনলোড করে কাজ করছেন।

অজপাড়া গাঁয়ের বাইশ বছরের যুবক প্রসেনজিতের সেই ছেলেবেলা থেকেই প্রযুক্তিতে ঝোঁক। কারিগরি বিষয়ে যেন নেশার মতো ডুবে থাকেন। লেখাপড়া চালিয়ে গেলেও প্রযুক্তি নিয়ে চলতে থাকে তাঁর নানান গবেষণা। তাই গ্রামের স্কুল থেকে অষ্টম শ্রেণি পাশ করে পাশের ব্লক ঝালদার বেগুনকোদর থেকে মাধ্যমিক। এরপর ঝালদা এক ব্লকের সত্যভামা বিদ্যাপীঠ থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাশ করে ঝাড়খণ্ডের কলেজ থেকে স্নাতক। তারপরই প্রযুক্তি নিয়ে গবেষণার কাজকর্মকে এগিয়ে নিয়ে যেতে একটি সংস্থা খুলে বসেন তিনি। প্রসেনজিৎতের কথায়, “টিকটক ভীষণই জনপ্রিয় অ্যাপ। কিন্তু কেন্দ্র সরকার তা ব্যান করায় ওই অ্যাপের আনন্দ থেকে বঞ্চিত হচ্ছিলেন অনেকেই। তখনই মাথায় আসে টিকটকের বিকল্প কিছু করার। যা হবে ভারতের নিজস্ব অ্যাপ। মেড ইন ইন্ডিয়া। মেড ফর ইন্ডিয়া।” ওই অ্যাপ ডাউনলোড করলেই ভেসে আসছে ভারতীয় পতাকা হাতে দুই নাগরিক। সেই সঙ্গে অ্যাপের লোগো। ভারতীয় আবেগে লেখা এই অ্যাপের ট্যাগলাইন, ‘মেড ইন ইন্ডিয়া। মেড ফর ইন্ডিয়া।’ রয়েছে তাঁর কোম্পানির নামও।

[আরও পড়ুন: চিনকে ভাতে মারতে নয়া প্যাঁচ, এবার রঙিন টিভি আমদানিতেও কড়া বিধিনিষেধ]

তবে এখনও এই অ্যাপ বাণিজ্যিক ভাবে কাজে লাগাননি প্রসেনজিৎ। বতর্মানে সুদূর মুম্বইয়ে ডেটা সেন্টার করে এই কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। তাঁর ইচ্ছে গ্রামেই সার্ভার বসিয়ে এই ধরনের কাজকে আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে। ছেলের এই কাজে ভীষণই উৎসাহী তাঁর বাবা পেশায় পোস্টমাস্টার নীলকন্ঠ প্রসাদ কুইরি। তাঁর কথায়, “ছেলের বরাবরই প্রযুক্তিতে ঝোঁক। তবে ব্যান হওয়া অ্যাপ টিকটককে পাল্লা দিতে যে টুকটাক বানিয়ে ফেলবে ও তা ভাবতে পারিনি।” প্রসেনজিতের এই উদ্ভাবনীতে খুশি তাঁর প্রত্যন্ত গ্রাম পুস্তিও। ‘টুকটাক’-এ মজে গ্রাম বাংলাও!

[আরও পড়ুন: প্লে স্টোর থেকে ২৯টি ক্ষতিকর অ্যাপ সরিয়ে ফেলল Google, আপনি আনইনস্টল করেছেন তো?]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement