১০ আষাঢ়  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২৫ জুন ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নেশা স্বাস্থ্যের পক্ষে অত্যন্ত ক্ষতিকারক। তা সে মাদকের নেশাই হোক আর ভিডিও গেমের। যা শুধু মানুষকে অসুস্থ করে তোলে, তাইই নয়৷ মৃত্যু পর্যন্ত ডেকে আনতে পারে। তেলেঙ্গানার ঘটনা সেটাই চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল। PUBG-র নেশা কেড়ে নিল একটা তরতাজা প্রাণ।

PUBG বন্ধের দাবিতে সরব হয়েছে দেশের একাধিক রাজ্য। ইতিমধ্যেই গুজরাটে সাময়িকভাবে নিষিদ্ধ করা হয়েছে এই জনপ্রিয় ভিডিও গেম। এমনকী দেশের বিভিন্ন প্রান্তের কলেজ পড়ুয়াদের এই নেশা থেকে দূরে থাকার কড়া নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও দুর্ঘটনা এড়ানো গেল না। স্থানীয় সূত্রে খবর, তেলেঙ্গানার বছর কুড়ির তরুণ দীর্ঘ ৪৫ দিন ধরে টানা PUBG-তে ঘাড় গুঁজে বসেছিলেন। ফলে যা হওয়ার, তাইই হল। প্রথমে অসম্ভব ঘাড়ের ব্যথায় ছটফট করতে শুরু করেন তিনি। হায়দরাবাদ হাসপাতালে তাঁর চিকিৎসা করাতে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা জানান, মোবাইলে লাগাতার ওই ভিডিও গেম খেলতে থাকায় ঘাড়ের কাছের সমস্ত নার্ভ নষ্ট হয়ে কাজ করা বন্ধ করে দিয়েছিল। আর সেই কারণেই মৃত্যুর কোলে ঢোলে পড়েন ওই তরুণ।

[ আরও পড়ুন: অভিনব নিয়ম, সন্দেহ হলে মিলবে দ্বিতীয়বার ভোটের সুযোগ]

দিন কয়েক আগে PUBG-তে আসক্ত কর্ণাটকের এক পড়ুয়া শিরোনামে উঠে এসেছিলেন। স্নাতক পরীক্ষায় তিনি খাতায় লিখে আসেন, কীভাবে PUBG খেলতে হয়। সঙ্গে ব্যাখ্যাও করেন, এই গেম খেলতে গিয়ে কেন পড়াশোনার সময় পাননি তিনি। যে কারণে প্রথম বর্ষেই পরীক্ষায় ফেল করেন ওই পড়ুয়া। এদিকে মধ্যপ্রদেশের এক যুবক PUBG-র নেশায় এতটাই বুঁদ ছিলেন যে জল ভেবে অ্যাসিড পান করতে যাচ্ছিলেন। কোনওক্রমে প্রাণে বাঁচেন তিনি। এসব ঘটনাই জানান দিচ্ছে, কীভাবে যুব প্রজন্মের মধ্যে PUBG-র খারাপ প্রভাব পড়ছে।

তারই মধ্যে একটি নতুন বিষয়ের সম্মুখীন হচ্ছেন গেমাররা। অনেকেই জানিয়েছেন, PUBG খেলাকালীন তাঁদের মোবাইল স্ক্রিনে একটি পপ-আপ ভেসে উঠছে। যেখানে লেখা, দীর্ঘক্ষণ খেলছেন। আবার ছ’ঘণ্টা পর খেলবেন। অনেকের দাবি, আধ-এক ঘণ্টা খেলার পরই এই সতর্কবার্তা দেখা যাচ্ছে। তাহলে কি ভিডিও গেম কর্তৃপক্ষের তরফেই এমন বার্তা দেওয়া হচ্ছে? না, তেমনটা নয়। উলটে তাদের তরফে জানানো হয়েছে, প্রযুক্তিগত কারণে হয়তো এমন ঘটনা ঘটছে। তার জন্য তারা ক্ষমাপ্রার্থী। শীঘ্রই এই সমস্যার সমাধান করা হবে।

[ আরও পড়ুন:  বাড়িতে ওয়াই-ফাই স্লো চলছে? ব্যবহার করুন এই কয়েকটি পদ্ধতি]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং