৭ ভাদ্র  ১৪২৬  রবিবার ২৫ আগস্ট ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নারী ও পুরুষের মধ্যে সুস্থ স্বাভাবিক সম্পর্ক থাকতে গেলে যৌনতা জরুরি। তা সেই সম্পর্ক বিবাহিতদের মধ্যেই হোক বা অবিবাহিতদের মধ্যে। যৌন জীবন ঠিক থাকলে সবকিছুই ঠিক। সবকিছুই স্বাভাবিক নিয়মে চলে। কিন্তু বিছানায় গন্ডগোল হলেই বিপদ। নারী হোক বা পুরুষ, সবার জীবনই ঘেঁটে যায়। এমন ঘটনা যাতে না ঘটে, তার জন্য উদ্যোগ নেওয়া দরকার। আর যৌন জীবনকে সুস্থ রাখতে একটি কাজ অবশ্যই করতে হবে।

[ প্রিয়জনের সঙ্গে ঝগড়া? এই তিন কথা ভুলেও বলবেন না ]

সেটি হল ঘুম। ঠিকই পড়ছেন। পর্যান্ত পরিমাণে ঘুম হলে তবেই সুস্থ থাকবে যৌন জীবন। আর অতিরিক্ত যৌনখিদে থাকলে অতিরিক্ত ঘুম অবশ্যম্ভাবী। পরীক্ষায় এটা প্রমাণিত। ২০১৫ সালে জার্নাল অফ সেক্সুয়াল মেডিসিনে এই নিয়ে একটি সমীক্ষা প্রকাশিত হয়েছিল। মহিলাদের ক্ষেত্রে যৌন জীবন ঠিক রাখতে সাধারণ ঘুমের থকে একঘণ্টা বেশি ঘুম জরুরি। এর ফলে পরের দিন যৌনতার জন্য ১৪ শতাংশ এনার্জি বেড়ে যায়।

তবে শুধু ঘণ্টার পর ঘণ্টা ঘুমোলেই হবে না। দরকার কোয়ালিটিও। ঘুমের গভীরতা বেশি হলে যৌনতায় সুখ পাওয়া যায় বেশি। সুখ দেওয়াও যায় বেশি। যারা ভাল ঘুমোয়, তারা বেশি এনার্জেটিক হয়। সঙ্গীর সঙ্গে বেশি অ্যাকটিভ থাকে তারা। সেক্স সেশন তাঁদের অনেক বেশি আনন্দদায়ক হয়।

সম্পর্কে এই ভুলগুলি বেশিরভাগ পুরুষই করে থাকেন ]

অবসাদ কিন্তু যৌনতার ক্ষেত্রে ভিলেন। যৌনতায় সবসময় বাগড়া দেয় অবসাদ। অনেকে সঙ্গম করার মতো এনার্জিই খুঁজে পান না। এর জন্য সবচেয়ে বেশি দরকার ঘুম। ঘুমোলে হরমোনের ক্ষরণ ঠিকমতো হয়। টেস্টোস্টেরনের ক্ষরণ স্বাভাবিক থাকে। ফলে সুখে থাকে যৌন জীবন। ঘুমের ফলে আরও একটি জিনিসও হয়। সেটি হল সঙ্গীর প্রতি ফোকাস থাকা।

তবে ঘুমোলে যে শুধু যৌন জীবন সুখকর হয়, তাই নয়। আরও অনেক কাজ হয়। ঘুমের ফলে স্বাস্থ্য নিয়ে সমস্যা কেটে যায়, ত্বক ভাল থাকে। মোট কথা সমগ্র স্বাস্থ্যের উন্নতিতে টনিকের মতো কাজ করে ঘুম।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং