BREAKING NEWS

২৩ শ্রাবণ  ১৪২৭  শনিবার ৮ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

সামনেই বিয়ে, ফিগার ঠিক রাখতে এগুলো করেছেন কি?

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 12, 2018 5:03 pm|    Updated: July 12, 2018 8:09 pm

An Images

ছবি প্রতীকী

 সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কথায় বলে, যার বিয়ে তার হুঁশ নেই, পাড়াপড়শির ঘুম নেই। আজকাল এই কথাটি সেন্ট পার্সেন্ট সত্যি। বিয়ের জন্য তোড়জোড় বহু আগে থেকে শুরু হয়ে যায়। কিন্তু স্বয়ং পাত্রীর হুঁশ ফেরে সপ্তাহ খানেক আগে। তার আগে তো কাজের চাপে তার প্রাণ ওষ্ঠাগত। আর যখন হুঁশ ফেরে তখন বিউটি পার্লার আর কেনাকাটা করতে গিয়েই সময় বেরিয়ে যায়। দেহের শেপের প্রতি নজর থাকে না। কিন্তু বিয়েতে ওটাও তো দরকারী। নাহলে বেঢপ ফিগারে গোটা মেকআপটাই মাটি হয়ে যাবে। তাই বিয়ের কয়েক সপ্তাহ আগে থেকেই তার প্রস্তুতি শুরু করুন।

মিনিট কুড়ি আগে ঘুম থেকে উঠুন

রোজ যখন ঘুম থেকে ওঠেন, চেষ্টা করুন তার মিনিট কুড়ি আগে ঘুম থেকে উঠতে। ৩ মিনিট ওয়ার্ম আপ করুন। তারপর এক থেক দেড় মিনিট বিশ্রাম নিন। সাত থেকে আটবার এমন করতে থাকুন। এর ফলে আপনি শুধু যে ফিট থাকবেন, তা নয়। সকালের বিশুদ্ধ আবহাওয়া আপনাকে সারাদিন চাঙ্গা রাখবে।

চা বানানোর সময়টুকুও নষ্ট করবেন না

চায়ের জল ফুটতেও তো ১০ মিনিট সময় লাগে। ওই সময়টা দাঁড়িয়ে না থেকে কাজে লাগান। খান কতক পুশ-আপ দিয়ে নিন। তাহলে সময়ও বাঁচল আর শরীরচর্চাও হল।

ওজন ঝরাতে চান? ডায়েটে রাখতে পারেন এই ফলগুলি ]

গাড়ি চালানোর সময়ও শরীরচর্চা চালান

গাড়ি তো বসে বসে চালাবেন। তখনই ১০ সেকেন্ড নিজের অ্যাবসগুলিকে কসরl করান। এর ফলে পেশিরগুলির এক্সারসাইজ হবে।

সিঁড়ি দিয়ে উঠুন

অফিসে বা বাড়িতে, উঁচুতলায় ওঠার জন্য লিফটের বদলে সিঁড়ি ব্যবহার করুন। সবসময় সম্ভব না হলেও, দিনে অন্তত একবার। এতে ভাল শরীরচর্চা হয়।

ফাঁকা সময় হাঁটুন

কাজের মাঝে সময় পেলে একটু হেঁটে নিন। ধরুন, ১০ মিনিট আপনি চা বা কফির জন্য বিরতি নিলেন। ওই সময়টা অল্প হেঁটে নিন। পারলে একতলা সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা করে নিন। কোনও কাজের কথা কারোর সঙ্গে বলতে হলে হাঁটকতে হাঁটতে আলোচনা করুন। অফিসের ছাদ, করিডর, রাস্তা যেখানেই হোক, হাঁটুন।

চিবুকের যত্ন নিন

ডাবল চিন থাকলে সতর্ক হোন। বিয়ের আগে এসব সরাতেই হবে। এর জন্য একটা সহজ উপায় রয়েছে। গলার কাছে চিবুক নামান। ৫ থেকে ১০ সেকেন্ড রাখুন। আবার তুলে নিন। নিয়মিত এই অভ্যাস করুন। দিনে অন্তত একঘণ্টা বা সারাদিনে অল্প অল্প করে এটি করতে থাকুন। সম্পূর্ণ যদি নাও হয়, এক্ষেত্রে কিছুটা মুক্তি ডাবল চিন থেকে পাওয়া যায়।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement