১০ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৬  শনিবার ২৫ মে ২০১৯ 

Menu Logo নির্বাচন ‘১৯ দেশের রায় LIVE রাজ্যের ফলাফল LIVE বিধানসভা নির্বাচনের রায় মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রায় সারা বছরই মনোরম আবহাওয়া, শান্ত পরিবেশ আর কাঞ্চনজঙ্ঘার টানে দার্জিলিং পাড়ি দেন ভ্রমণপ্রিয় মানুষরা৷ ঘরের কাছে পাহাড়ে ঢাকা দৃষ্টিনন্দন দার্জিলিংয়ের শোভা তো অনেকবারই দেখেছেন৷ কিন্তু দার্জিলিং সফরে কী টুমলিংয়ের নামটা ছিল কখনও৷ না থাকলে এবার আর মিস করবেন না৷ কারণ এই এলাকার সৌন্দর্য চোখে না দেখলে অনেকটা দার্জিলিং দেখা কিন্তু বাকি থেকে যাবে৷

পাহাড়ের কোলে ছোট্ট একটা সাজানো গ্রাম টুমলিং৷ হিসাব মতো দেখতে গেলে নেপালের মধ্যেই পড়ে গ্রামটি৷ সাধারণত যাঁরা ট্রেকিংয়ের জন্য সান্দাকফু যান, তাঁরা এই গ্রামের মধ্যে দিয়েই যান৷ আকাশ মেঘলা না থাকলে এই এলাকা থেকে বিস্তৃত কাঞ্চনজঙ্ঘা দেখার অভিজ্ঞতাই অন্যরকম হবে৷

hqdefault

টুমলিংয়ের কাছেই সিঙ্গলিলা ন্যাশনাল পার্কে গেলে এমন এক জন্তু চোখে পড়বে, যা সচরাচর দেখা যায় না৷ কী জানেন? রেড পান্ডা৷ ভাবুন তো, বাড়ির এত কাছেই পান্ডারা আপনার অপেক্ষায় বসে, আর আপনিই আসছেন না!

আরও কী দেখবেন? টুমলিং থেকে ৬ কিলোমিটার ট্রেকিং করে পৌঁছে যান ধোত্রেতে৷ অজস্র রডোডেনড্রন দিয়ে সাজানো বাগিচা আপনাকে স্বাগত জানাবে৷ শহরের প্যাচপ্যাচে গরম থেকে মুক্তি পেতে গ্রীষ্মকালই হল টুমলিং যাওয়ার আদর্শ সময়৷

kanchen_tumling

কীভাবে যাবেন
হাওড়া ও শিয়ালদহ থেকে নিউ জলপাইগুড়ি যাওয়ার প্রচুর ট্রেন রয়েছে৷ সেখানে নেমে গাড়ি বুক করে চলে যান মানে ভানজাং৷ সেখান থেকে একমাত্র ওল্ড ল্যান্ড রোভারে টুমলিং যাওয়া যায়৷

কোথায় থাকবেন
পর্যটকদের জন্য টুমলিংয়ে ছোটবড় প্রচুর গেস্ট হাউস রয়েছে৷ যেখানে অনায়াসে পছন্দ মতো খাবারও পেয়ে যাবেন৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং