৪ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২১ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মেঘ-রোদ্দুরের লুকোচুরির মাঝেই হঠাৎ ঝমঝমিয়ে বৃষ্টি৷ যাযাবর মনটা কি আর এক জায়গায় বসে থাকতে পারে? খালি বলে, থাক না পড়ে ঝোলা, বেরিয়ে পড় তুই ভোলা৷ মনের কথা শুনুন৷ প্রাক বৃষ্টির কালে বেরিয়ে পড়ুন দামোদরের উদ্দেশ্যে৷ যেখানে বর্ষণসিক্ত পাঞ্চেত-মাইথন আপনাকে দেবে ভিজে মাটির মাদকতা৷

Panchet

কী দেখবেন –

  • ভরা কোটালে দামোদরের আস্ফালন মনে জাগাবে শিহরণ৷
  • জলে টইটম্বুর পাঞ্চেত বাঁধ দেবে পূর্ণতার আস্বাদ৷
  • জলে মন ভরলে চলে যেতে পারেন পাঞ্চেত পাহাড়ের উদ্দেশ্যে৷ যাকে পঞ্চকোট পাহাড়ও বলা হয়৷ সবুজের এই রাজত্বেই একদিন বিপাশা ছবির শুটিং করতে এসেছিলেন উত্তম কুমার ও সুচিত্রা সেন৷
  • বিকেলবেলার আসর জমে উঠবে বরাকর নদীর তীরে মাইথনের উপর৷
  • কয়েক কিলোমিটার দূরেই ৫০০ বছরের পুরনো কল্যাণেশ্বরী মন্দির৷ যেখানে আজও সন্তানের কামনায় ভিড় করেন হাজার দর্শনার্থী৷

maithan

কীভাবে যাবেন –

ট্রেনে করে গেলে নামতে হবে বরাকর রেলওয়ে স্টেশনে৷ সেখান থেকে অটোরিক্সা যায় পাঞ্চেত৷

সড়কপথে ২ নম্বর জাতীয় সড়ক ধরে যেতে হবে ধানবাদের দিকে৷ আসানসোল থেকে বাঁদিকে সোজা নিয়ামতপুর৷ সেখান থেকে নিউ রোড ধরে কুলটি-বরাকর হয়ে পাঞ্চেত রোড সোজা পৌঁছে দেবে পাঞ্চেতের সবুজের রাজত্বে৷

কোথায় থাকবেন –

থাকার সবচেয়ে ভাল জায়গা বনদফতরের প্রকৃতি ভ্রমণ কেন্দ্র৷ সেখানে জায়গা না পেলে মাত্র ২০০ মিটার দূরেই রয়েছে পলাশবীথি রিসর্ট৷

temple

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং