৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  বুধবার ২০ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  বুধবার ২০ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পুজোর ছুটি তো শেষ। আসছে দীপাবলি, কয়েকদিন কাজ থেকে অবসর। দেশ ছেড়ে কয়েকদিন অন্য কোথাও ঘুরে আসবেন ভাবছেন? তাহলে আপনাকে সুখবর দিই। ডেস্টিনেশন হোক সৈকতঘেরা দেশ – থাইল্যান্ডে। অপূর্ব প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করবেন ফুরফুরে মেজাজে আর পকেটেও বেশি চাপ পড়বে না। কারণ, পর্যটকের অভাবে এখন খাঁ খাঁ করছে থাইল্যান্ডের অন্যতম আকর্ষণীয় পর্যটন শহর ফুকেটের হোটেলগুলি। উপায়ান্তর না দেখে হোটেলের ঘরের দাম কমিয়ে পর্যটক টানতে তৎপর প্রশাসন। এমনকী সুবিখ্যাত পাটং সৈকতের ৪০টি হোটেলই দাম কমিয়ে দিয়েছে। 

[আরও পড়ুন: বেড়ানো ভুলেছে বাঙালি! পুজোর পরেও জমছে না পর্যটন ব্যবসা]

থাইল্যান্ড ট্যুর মানেই ব্যাংকক, ফুকেট। রাজধানী ব্যাংকক ছাড়িয়ে একটু নিরিবিলিতে ছুটি কাটানোর অন্যতম ডেস্টিনেশন – দ্বীপ শহর ফুকেট। রাত্রিকালীন উদ্দীপনা আর সূর্যস্নানের আদর্শ পরিবেশের জন্য এই শহরের খ্যাতি ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র। দেশের অর্থনীতিতে বেশ বড় একটা অবদান আছে ফুকেটের পর্যটন শিল্পের। কিন্তু সম্প্রতি চিনের সঙ্গে টানাপোড়েনের জেরে পর্যটন ব্যবসা মুখ থুবড়ে পড়েছে এখানে। এখানে চিনা পর্যটকদের আনাগোনাও এতদিন বেশ ভাল ছিল। কিন্তু এখন স্বভাবতই তা কমেছে। চিনের পাশাপাশি ভারতীয় পর্যটকদের দৌলতেও ফুকেট, ব্যাংককে লক্ষ্মীলাভ হত ভালই। ইদানিং তাও কমেছে। গতিপ্রকৃতি দেখে চিন্তার ভাঁজ বেশ চওড়া হয়েছে কর্তাদের কপালে। বুঝতেই পেরেছেন, পর্যটক টানতে হলে আকর্ষণীয় কোনও ঘোষণা দরকার। নইলে পরিস্থিতি খারাপ হবে আরও।

phuket-hotels

ফুকেটে কর্মরত ফরাসী কনসাল অফিসার ক্লদে দে ক্রিসির কথায়, ‘পর্যটন মরশুম ছাড়াও চিনা পর্যটকদের ভিড় এখানে লেগেই থাকে। কিন্তু এবারই ব্যতিক্রম দেখছি। তাই হোটেলগুলো ৫০ শতাংশ পর্যন্তও ভাড়া কমিয়ে দিয়েছে।’ হোটেল কর্তা কোংসাক খুপোংসাকং বলছেন, ‘আমরা কিন্তু বেশ চিন্তিত। আমাদের হোটেলের রুমগুলো ফাঁকা পড়ে আছে। পর্যটকদের কাছে আবেদন, আপনারা আসুন। এখানে প্রচুর নতুন হোটেল, কফিশপ, স্টোর তৈরি হয়েছে। প্রাণখুলে কেনাকাটা করুন, আনন্দ করুন।’ অস্ট্রেলিয় পর্যটক পল স্কটের গলাতেও আক্ষেপ – ‘ফুকেটের ফুটপাতে এত কম লোকজন, আমি এই প্রথম দেখছি। এ যেন অচেনা ফুকেট।’ এই কয়েকবছরে অন্তত ৩ হাজারটি হোটেল তৈরি হয়েছে ফুকেটে। কিন্তু অতিথি কই?

[আরও পড়ুন: বাঘমামার দর্শন পেতে চান? জঙ্গল সফরের সময় এগুলো মাথায় রাখুন]

তবে চিন-থাইল্যান্ডের ঝাগড়াঝাঁটির মধ্যে তো আপনি-আমি নেই। তাই সেখানে বেড়াতে যেতেও কোনও বাধা নেই। কয়েকদিনের টুর, ভরপুর আনন্দ। মন খুশি, পকেটের স্বাস্থ্যও খারাপ হল না। সবমিলিয়ে, ফুকেটে ফুর্তি আর কে আটকায়? সুতরাং, শুভস্য শীঘ্রম। এখনই ফুকেটের হোটেলগুলির নম্বর ডায়ান করে ফেলুন। আপনার জন্য সবচেয়ে সুন্দর আয়োজন করে রাখছে কর্তৃপক্ষ।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং