BREAKING NEWS

১০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৬ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

লাদাখ চিনের অংশ! ভারতের হুঁশিয়ারির পর ক্ষমা চাইল টুইটার

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: November 18, 2020 8:34 pm|    Updated: November 18, 2020 8:34 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মানচিত্রে লাদাখকে চিনের (China) দেখিয়ে বিতর্কের ঝড় তুলেছিল মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটার (Twitter)। তারপর কেন্দ্রের কড়া হুঁশিয়ারির পর ক্ষমা চেয়েছে সংস্থাটি। ৩০ নভেম্বরের মধ্যেই ভুল শুধরে নেওয়া হবে বলেও জানিয়েছে টুইটার।

[আরও পড়ুন: বেনজির, করোনা টিকার ট্রায়ালের জন্য স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে এগিয়ে এলেন হরিয়ানার মন্ত্রী]

সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে পার্লামেন্টারি প্যানেলের প্রধান মীনাক্ষী লেখি জানিয়েছেন, ভারতীয়দের আবেগে আঘাত হানার কথা স্বীকার করে মানচিত্রে লাদাখকে চিনের অংশ হিসেবে দেখানোর জন্য লিখিতভাবে ক্ষমাপ্রার্থনা করেছে টুইটার। ওই পত্রে সই করেছেন সংস্থাটির চিফ প্রাইভেসি অফিসার ড্যামিয়েন ক্যারিয়েন। মনে করা হচ্ছে, ভারত-চিন সংঘাতের আবহে ভুল মানচিত্র নিয়ে অত্যন্ত কড়া অবস্থান নিয়েছে নয়াদিল্লি। আর সেই কথা খুব স্পষ্টভাবে টুইটার কর্তৃপক্ষের কাছে জন্যে দেওয়া হয়েছিল। এছাড়া, নেটিজেনদের তুমুল নিন্দার মুখে পড়ে ড্যামেজ কন্ট্রোলে নেমেছে সংস্থাটি।

সম্প্রতি টুইটারের মানচিত্রে লাদাখের বেশ কিছুটা অংশ এবং লে শহরকে চিনের মধ্যে দেখানো হয়েছিল। জাতীয় নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ নীতিন গোখলের অভিযোগ, তিনি রবিবার লেহ বিমানবন্দরের সামনে একটি লাইভ ভিডিও করছিলেন। সেই সময়ই ধরা পড়ে ভিডিওর লোকেশনে দেখানো হচ্ছে এটা চিনের অন্তর্গত। লোকেশন হিসেবে যে চিনের নাম দেখানো হচ্ছে তা লক্ষ্য করেছিলেন ‘অবজারভার রিসার্চ ফাউন্ডেশনে’র সভাপতি কাঞ্চন গুপ্তাও। তারপরই টুইটারের এই ভুল চোখে পড়তেই জনপ্রিয় মাইক্রোব্লগিং সাইটকে কড়া ভাষায় সতর্ক করে ভুল শোধরানোর নির্দেশ দেয় কেন্দ্র। টুইটারের সিইও জ্যাক ডরসিকে ইমেল করে এ ব্যাপারে সতর্ক করেন কেন্দ্রীয় তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রকের সচিব অজয় সাহনি।

[আরও পড়ুন: ভারতীয় সৈনিকদের পুড়িয়ে মারতে গোপন ‘মাইক্রোওয়েভ’ হাতিয়ার ব্যবহার করেছিল চিন!]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement