৩ শ্রাবণ  ১৪২৬  শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ইদানিং বাস্তুতন্ত্র মেনে ঘর সাজান অনেকেই। ঘরের ঠিক কোন জায়গায় কোন জিনিসটি রাখা হবে, তা নিয়ে বাস্তু বিশেষজ্ঞদের মতামতও নেওয়া হয়। কিন্তু শুধু ঘর সাজালেই তো হবে না, ঘরে শান্তিও যে চাই। তার জন্য নিয়ম করে ঘর সাজানোর থেকেও বেশি জোর দেওয়া দরকার কোন জিনিস রাখা হবে, কোন জিনিস রাখা হবে না, তার উপর।

এনিয়েও বাস্তু বিশেষজ্ঞদের নানা মত রয়েছে। তাঁরা জানাচ্ছেন, কিছু জিনিস যদি ঘর থেকে দূরে রাখা যায়, তবে শান্তি থাকে সংসারে। কাজেও আসে সাফল্য।

১) ঘরে অনেকেই গাছ লাগান। কিন্তু খেয়াল রাখুন, গাছ শুকিয়ে গেলে কিন্তু কখনওই তাকে মায়ার বশে রেখে দেবেন না। মরা গাছ রাখা বিপজ্জনক। অনেকে বলেন, মরা গাছ সংসারে দুর্ভাগ্য বয়ে আনে।

২) আজকাল অনেকের বাড়িতেই শৌচাগারে কমোড থাকে। বাথরুমের সৌন্দর্য রক্ষা করার জন্য বা দুর্গন্ধ এড়াতে অনেকেই ঢাকনা বন্ধ করে রাখেন। এটাই দরকার। কখনও কমোডের ঢাকনা খুলে রাখবেন না। স্বাস্থ্যের জন্য তো বটেই, বাস্তুকারদের মতে ঢাকনা খোলা রাখলে পজিটিভ এনার্জি বেরিয়ে যায়। তাই কমোডের ঢাকনা কখনও খুলে রাখা উচিত নয়।

বড়দিনে প্রিয়জনকে ক্যাকটাস উপহার! নতুন ট্রেন্ড রাজ্যে ]

৩) বাড়িতে ঢোকার দরজা বা তার সামনের দিকটা সবসময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখুন। এতে দেখতেও যেমন ভাল লাগবে, আপনার সংসারে তেমন পজেটিভ এনার্জিও থাকবে। 

৪) সবসময় ঘরদোর গুছিয়ে রাখার চেষ্টা করুন। জিনিসপত্র যত্রতত্র ছড়িয়ে রাখা যেমন দৃষ্টিকটূ, তেমনই এতে নেগেটিভ এনার্জি বাসা বাঁধে। তাই ঘর কখনও এলোমেলো রাখবেন না। সময়ের কারণে সম্পূর্ণ গুছিয়ে রাখা সম্ভব না হলে যতটা পারবেন পরিষ্কার রাখুন ঘর।

৫) কোনও জিনিস খারাপ হয়ে গেলে অনেকক্ষেত্রেই তা নেহাত সময়ের অভাবে ওই অবস্থাতেই পড়ে থাকে। অনেক সময় স্মৃতির কারণেও ঘরে থেকে যায় পুরনো জিনিস। কিন্তু এটা করা একেবারেই উচিত নয়। খারাপ টিভি, ফ্রিজ, ওয়াশিং মেশিন বা বিকল ঘড়ি কখনই ঘরে রাখবেন না। এতে নেগেটিভ এনার্জি বাড়ে। 

শীতের শুরুতে লেপের যত্ন নিন, মেনে চলুন এই নিয়মগুলি ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং