৩০ আশ্বিন  ১৪২৬  শুক্রবার ১৮ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বন্যা কবলিতে মহারাষ্ট্রে নয়া আতঙ্ক। চিপলুনের দাদরে রাস্তার ধারের নর্দমা থেকে উদ্ধার ৮ ফুট লম্বা কুমির! সোশ্যাল মিডিয়ায় কুমিরটির ভিডিও ছড়িয়ে পড়তেই ছড়ায় চাঞ্চল্য। প্রাণীটিকে উদ্ধার করেছেন বনদপ্তরের আধিকারিকরা।

[আরও পড়ুন: গাছের ডালে ঘুরছে মানুষমুখো মাকড়সা! নেটদুনিয়ায় ভাইরাল ‘স্পাইডার ম্যান’]


মূল ঘটনা দিন পাঁচেক আগের। গত ২৬ জুলাই রত্নাগিরির চিপলুনে কাণ্ডটি ঘটে। রাস্তার ধারের নর্দমায় হঠাৎ উদ্ধার হয় আস্ত একটি কুমির। প্রাপ্তবয়স্ক কুমিরটির দৈর্ঘ্য প্রায় ৮ ফুট। চিপলুনের দাদরের রাস্তার ধারে একটি নর্দমায় সেটিকে ভেসে বেড়াতে দেখেন স্থানীয়রা। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে গোটা এলাকায়। স্থানীয়দের মধ্যে আতঙ্কের পরিবেশও সৃষ্টি হয়েছে। খবর পেয়ে বনদপ্তরের আধিকারিকরা ঘটনাস্থলে ছুটে যান। এবং কুমিরটিকে উদ্ধার করেন।

বনদপ্তরের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, “মহারাষ্ট্রের বিভিন্ন প্রান্তে প্রবল বৃষ্টি হচ্ছে। গত শুক্রবারও রত্নাগিরিতে প্রবল বৃষ্টি হয়। অতিরিক্ত বৃষ্টির জন্য বশিষ্টি নদীর জল উপচে পড়ে। তখনই কুমিরটি নদী থেকে লোকালয়ে চলে এসেছিল।” বনদপ্তরের রত্নাগিরির বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ভি কে সার্ভে জানিয়েছেন, প্রাণীটিকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করে তাঁর অনুকুল পরিবেশে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। তিনি আরও বলেন, “বর্ষার সময় লোকালয়ে সরীসৃপ ঢুকে পড়াটা নতুন কিছু নয়। এই সময় আমরা প্রচুর ফোন পায় এই ধরনের এবং সরীসৃপ উদ্ধার করি।” বনদপ্তরের আধিকারিকরা এই ধরনের ঘটনাকে স্বাভাবিক বলে মনে করলেও, স্থানীয়রা এটাকে বেশ অস্বাভাবিক বলেই মনে করছেন।

[আরও পড়ুন: নদীর কুমির পুকুরে! যথাস্থানে ফেরত পাঠাতে হিমশিম পাথরপ্রতিমার বনকর্মীরা]

ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ার পরই আবার নতুন বিভ্রান্তি ছড়িয়ে পড়ে। নেটিজেনদের একাংশ মনে করেন যে ঘটনাটি মুম্বইয়ের দাদরের। কিন্তু, বনদপ্তরের আধিকারিকরা পরে বিভ্রান্তি দূর করে জানান, এটা মুম্বইয়ের দাদর নয়, চিপলুনেও একটা দাদর আছে। এটা সেখানকারই ঘটনা।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং