BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

দূরত্ব বজায় রেখে ধরা যাবে অপরাধী! অভিনব পদ্ধতিতে লকডাউন ভঙ্গকারীদের গ্রেপ্তার পুলিশের

Published by: Sayani Sen |    Posted: April 26, 2020 11:53 am|    Updated: April 26, 2020 11:54 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লকডাউন ছাড়া কোনওভাবে করোনা সংক্রমণ এড়ানো সম্ভব নয়, তা এখন প্রায় সকলেরই জানা। তবে তা সত্ত্বেও বেশ কিছু মানুষ এখনও মানছেন না বিধিনিষেধ। চলছে চোর-পুলিশ খেলা। বাধ্য হয়ে রাস্তায় মেনে অভিযুক্তদের ধরপাকড় করতে হচ্ছে পুলিশকে। কিন্তু তাতেও যে বাড়তে সংক্রমণের আশঙ্কা। কারণ, গ্রেপ্তারির সময় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা যাচ্ছে না যে! তাই এই সমস্যা মেটাতে নয়া ভাবনাচিন্তা চন্ডীগড় পুলিশের। লকডাউন ভঙ্গকারীদের গ্রেপ্তারিতে নয়া যান্ত্রিক এক কৌশলের সাহায্য নিচ্ছেন তাঁরা।

সম্প্রতি চন্ডীগড় পুলিশের ডিজি সঞ্জয় বানিওয়াল টুইটারে একটি ভিডিও শেয়ার করেন। ওই ভিডিওতে দেখা গিয়েছে লকডাউন ভঙ্গকারীদের ধরপাকড়ে ব্যবহৃত যন্ত্রটিকে। কীভাবে কাজ করছে যন্ত্রটি তাও দেখা গিয়েছে ভিডিওয়। তাতে দেখা গিয়েছে, একটি লাঠি হাতে দাঁড়িয়ে রয়েছেন এক পুলিশকর্মী। তা কিন্তু হালফিলের লাঠির থেকে একটু অন্যরকম। লাঠিটির মুখের দিকে তিনটি রড বেরনো অংশ রয়েছে। একজন মানুষ যার ঢুকে যাওয়ার পর শক্ত হয়ে বন্ধ হয়ে যায়। যার থেকে কিছুতেই বেরতে পারবে না লকডাউন নিয়মভঙ্গকারীরা। প্রযুক্তির মাধ্যমে ওই লাঠি দিয়ে প্রায় পাঁচ ফুট দূরত্ব থেকে লকডাউন ভঙ্গকারীকে পাকড়াও করতে পারে পুলিশ। খুব সহজেই তাকে তোলা যায় পুলিশের গাড়িতেও।

[আরও পড়ুন: ‘ফের বাড়ানো হোক লকডাউনের মেয়াদ’, কেন্দ্রকে পরামর্শ দিতে পারে একাধিক রাজ্য]

বিশেষ ধরনের লকডাউন পাকড়াওয়ের যন্ত্র দেখে নেটিজেনদের মধ্যে হইচই পড়ে গিয়েছে। চন্ডীগড় পুলিশের প্রশংসা করছেন প্রায় সকলেই। এমন যন্ত্রের মাধ্যমে আরও বেশি সংখ্যক লকডাউন ভঙ্গকারীদের গ্রেপ্তার করা হোক বলেই সুর চড়িয়েছেন অনেকেই। দ্বিতীয় পর্যায়ে লকডাউন চলছে দেশে। কোথাও ড্রোন উড়িয়ে আবার কোথাও পুলিশকর্মীদের ধরপাকড়ের মাধ্যমে এখনও গৃহবন্দি থাকার প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কো বোঝাতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে। আর কবে হুঁশ ফিরবে সকলের। কবে করোনা সংক্রমণ রুখতে নিজে থেকে ঘরের দরজা বন্ধ করে বাড়িতে থাকবে নিয়মভঙ্গকারীরা?

[আরও পড়ুন: লকডাউন না চললে দেশের ছবিটা ভয়ংকর হত, আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়াত ১০ লক্ষ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement