১ ভাদ্র  ১৪২৬  সোমবার ১৯ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

১ ভাদ্র  ১৪২৬  সোমবার ১৯ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রিয় বস্তুকে আল্লার কাছে উৎসর্গ করার মধ্যে দিয়েই নাকি সূচনা হয়েছিল ইদ-উল-আজহা বা বকরিদের। এবার সেই আল্লার কাছে উৎসর্গের জন্য বিক্রি করা হল শরীরে ‘আল্লা’ লেখা একটি ছাগল। সলমন নামে ওই ছাগলটি আট লাখ টাকায় বিক্রি হয়েছে উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুরের বাজারে।

[আরও পড়ুন: ইচ্ছেপূরণ! ন্যানো গাড়ি থেকে হেলিকপ্টার বানালেন বিহারের যুবক]

বকরি ইদে কুরবানির উদ্দেশ্যে কয়েকদিন ধরেই দেশের বিভিন্ন পশু কেনাবেচার বাজারে ভিড় জমাচ্ছিলেন মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষরা। ছাগল থেকে শুরু করে দেশের বিভিন্ন বাজারে বেশ চড়া দামেই বিক্রি হচ্ছিল অন্যান্য পশুও। বিক্রেতার সঙ্গে দরদাম করে নিজের পছন্দ মতো পশু বাড়ি নিয়ে যাচ্ছেন সবাই। এরই মাঝে গোরক্ষপুরে বাজারে গিয়ে চোখ কপালে উঠল ক্রেতাদের।একটি ছাগলের গায়ে নাকি আল্লার নাম লেখা রয়েছে। আসলে ছাগলটির রংই এমন।দেখে মনে হয় যেন আরবিতে আল্লা শব্দটি ছাপা রয়েছে তার গায়ে। ছাগলটি শেষপর্যন্ত বিক্রি হল আট লাখ টাকায়।

goat

এপ্রসঙ্গে ওই ছাগলের মালিক গোরক্ষপুরের পশু ব্যবসায়ী মহম্মদ নিজামুদ্দিন বলেন, ‘ছাগলটির শরীরে জন্ম থেকেই প্রাকৃতিকভাবে উর্দুতে আল্লা লেখা ছিল। ছাগলটিকে ঈশ্বর নিজের দূত হিসেবে পাঠিয়েছে। তাই ওর শরীরে থাকা লোমে আল্লা শব্দটি লেখা আছে। ওকে কুরবানি বা উৎসর্গ করলে গ্রাহকের মনস্কামনা পূরণ হতে পারে। তাই চড়েছে দাম। তাছাড়া প্রতিদিন ছাগলটির রক্ষণাবেক্ষণের জন্য ৮০০ টাকা করে খরচ হত। নিজের জন্যও অত টাকা খরচ করিনি। তাই ৯৫ কেজি ওজনের ওই ছাগলটি দাম আট লাখ টাকা রেখেছিলাম।’

[আরও পড়ুন: হাভেলির উঠোনে ভুরিভোজে মত্ত দুই সিংহী, চোখ কপালে গৃহস্থের]

বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার হতবাক হয়েছেন নেটিজেনরা। কেউ কেউ, একটি ছাগলের অত দাম শুনে চমকে উঠেছেন। আবার কেউ প্রশ্ন তুলেছেন, আল্লার সামনে কী করে শরীরে আল্লা লেখা ছাগলকে উৎসর্গ করা হতে পারে?

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং