BREAKING NEWS

১৪ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বুধবার ১ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

দোকানি ছাড়াই বিক্রিবাটা! মিজোরামের এই দোকানের গল্প জানলে অবাক হবেন

Published by: Bishakha Pal |    Posted: June 20, 2020 9:05 pm|    Updated: June 20, 2020 9:05 pm

In some Mizoram shops there are no shopkeepers, know the reason

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দোকান রয়েছে। দোকানে জিনিসপত্রও রয়েছে। কিন্তু দোকানি নেই। এভাবেই চলছে মিজোরামের বেশ কয়েকটি দোকান। করোনা আতঙ্কে কারণে যে দোকানিরা দোকানে বলছেন না, তা নয়। বহুদিন ধরে এভাবেই চলছে মিজোরামের এই দোকানগুলি। সম্প্রতি এর একটি ছবি ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল সাইটে। আর তার পর থেকেই মিজোরামবাসীদের এমন কাণ্ড নিয়ে এখন সরগরম নেটদুনিয়া।

মিজোরামের এই দোকানগুলি সেলিংয়ের হাইওয়ের ধারে অবস্থিত। দোকানে পসরা সাজিয়ে প্রতিদিন অন্যত্র চলে যান এই সব দোকানের মালিকরা। দোকানের মধ্যেই রাখা রয়েছে একটি ডিপোজিট বক্স। দোকান থেকে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র আপনাকেই তুলে নিতে হবে। আর তারপর তার দাম রেখে দিতে হবে ওই বাক্সে। বছরের পর বছর ধরে এই নিয়মই চলে আসছে এই দোকানগুলিতে। এটাই এখানকার ঐতিহ্য। বিশ্বাসের উপরেই চলে ব্যবসা। আজ পর্যন্ত খুব কম ক্ষেত্রেই হয়েছে যে কেউ দাম না মিটিয়ে চলে গিয়েছে।

[ আরও পড়ুন: উদ্বোধনের জন্য তৈরিই ছিল, দু’দিনের টানা বৃষ্টিতে ভেসে গেল আস্ত সেতু ]

এমনই একটি দোকানের ছবি সম্প্রতি ‘মাই হেম ইন্ডিয়া’ নামে একটি প্রোফাইল থেকে টুইটারে শেয়ার করা হয়। সেখানেই জানানো হয় এই ধরনের দোকানের মিজোরামে একটি নাম আছে- ‘Nghah Lou Dawr Culture Of Mizoram’। এর অর্থ দোকানি ছাড়া দোকান।

সোশ্যাল সাইটে এই ছবিটি ছড়িয়ে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে তা ছড়াতে শুরু করে। এর ভাইরাল হতে বেশি সময় লাগেনি। নেটিজেনদের মধ্যে বেশিরভাগেরই কয়েকটি সাধারণ প্রশ্ন রয়েছে। এভাবে দোকান চলে? সবাই ঠিকমতো টাকা দেয়? অনেকে আবার বলেছেন, বিশ্বাসের চেয়ে বড় কিছু এই পৃথিবীতে নেই। মিজোরামের এই দোকানগুলিই তার প্রমাণ। কেউ আবার বলেছেন, সুইজারল্যান্ড ও জার্মানির মতো দেশে এই ধরনের দোকান দেখা যায়। কিন্তু ভারতেও যে এমন দোকান রয়েছে, তা তাঁরা জানতেন না। আজ ভারতকে নিয়ে তাঁদের গর্ব হচ্ছে।

[ আরও পড়ুন: কাদার মধ্যে ভাইয়ের সঙ্গে খেলছে গজরাজ, দেখুন ভিডিও ]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে