৩ মাঘ  ১৪২৮  সোমবার ১৭ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

জানেন, ঘুমের সময় আপনার শরীরে কী কী পরিবর্তন ঘটে?

Published by: Sulaya Singha |    Posted: August 7, 2016 1:49 pm|    Updated: August 8, 2018 4:28 pm

Know what happens when you sleep

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ছোট্ট হোক বা অনেকটা- ঘুম ব্যাপারটাকে তাচ্ছিল্য করলেই মুশকিল! অনিদ্রার রোগীরা হাড়ে হাড়ে স্বীকার করে নেবেন বক্তব্যটা। কিন্তু, আমরা সে কথা বলছি না।

নানা শারীরবৃত্তীয় পরিবর্তন ঘটে চলে ঘুমের গভীরে।

জানেন কি, আপনি যখন ঘুমোন, তখন আপনার সঙ্গে কী কী হয়?
একজন মানুষ যখন ঘুমিয়ে থাকেন, তখন তাঁর শরীরে নানা রাসায়নিক এবং হরমোনাল ক্রিয়া-বিক্রিয়া ঘটে চলে। এই সময়ে আমাদের শরীর এমন এক অবস্থার মধ্যে দিয়েও যায় যাকে বলা হয় ব়্যাপিড আই মুভমেন্ট। মানে, ঘন ঘন চোখের পাতা বন্ধ অবস্থাতেই কাঁপতে থাকা! এই অবস্থাটা পুরোপুরি ঘুম নয়, বরং অনেকটাই জেগে থাকার কাছাকাছি। এছাড়াও শ্বাসপ্রশ্বাস, রক্তচাপ সংক্রান্ত আরও অনেক শারীরবৃত্তীয় পরিবর্তন ঘটে চলে ঘুমের গভীরে।

[সিটুর ডাকা পরিবহণ ধর্মঘটের আংশিক প্রভাব রাজ্যে, ভোগান্তি যাত্রীদের]

• স্লিপ প্যারালিসিস: বাংলা করলে দাঁড়ায় ঘুমের মধ্যে পক্ষাঘাত! তা বলে ধরে নেবেন না, আপনি যখন ঘুমোচ্ছেন, তখন আপনার শরীর পক্ষাঘাতগ্রস্ত হয়ে পড়ছে। তাহলে ব্যাপারটা কী? এই সময়ে শরীর থাকে ব়্যাপিড আই মুভমেন্টের মধ্যে এবং পেশিগুলি শক্ত হয়ে যায়। রোজ যদি এরকম হতে থাকে, তাহলে কিন্তু চিন্তার কারণ রয়েছে। কেন না, ঘুম অনিয়মিত হচ্ছে। সে ক্ষেত্রে নারকোলেপসি নামের এক ধরনের স্নায়ুর অসুখের সম্ভাবনা থেকে যায়। তাই এরকম হতে থাকলে একজন স্নায়ু বিশেষজ্ঞকে দেখানো উচিত।

namenamenamenamenamenamenamenamenamename
          
          
          
          
          
          
          
          
          

• বডি টেম্পারেচার: আমরা যখন ঘুমোই, তখন আমাদের শরীরের উষ্ণতাও পরিবর্তিত হতে থাকে। শুধু তাই নয়, সঙ্গে রক্তচাপ, নিশ্বাস-প্রশ্বাসের স্বাভাবিক হার এবং হৃৎস্পন্দনও অনিয়মিত হয়ে পড়ে।

নানা শারীরবৃত্তীয় পরিবর্তন ঘটে চলে ঘুমের গভীরে।

• হাইপনিক জার্ক:আপনার কি মনে হয়, ঘুমের মধ্যে আপনি অনেকটা উঁচু থেকে পড়ে যাচ্ছেন? এই ঘটনাটাকে চিকিৎসাবিজ্ঞানের পরিভাষায় বলা হয় হাইপনিক জার্ক। অনিয়মিত ঘুম থেকে এরকম সমস্যা হয়। এরকম হলে রক্তচাপ বেড়ে যায়। তার সঙ্গেই বেড়ে যায় হৃৎস্পন্দন এবং নিশ্বাস-প্রশ্বাসের হার।

[গ্রহের মাথায় মুকুটের মতো আলোক ছটা! কী বলছেন মহাকাশ বিশেষজ্ঞরা?]

• এক্সপ্লোডিং হেড সিনড্রোম: অনেকে ঘুমের মধ্যে ভয় পান! কথাটা শুনে কিন্তু মজা পাওয়ার কিছু নেই। যখন এরকম হয়, তখন মানুষ ঘুমের মধ্যেই নানা কল্পিত শব্দ শুনতে থাকেন। অনেক ক্ষেত্রে দেখতে পান ঝলসে ওঠা আলো। তার সঙ্গেই পাল্লা দিয়ে হাজির হয় প্রচণ্ড মাথাব্যথা।

[এবার সবুজায়নের দিশা দেখাবেন গণপতি, মূর্তি তৈরিতে অভিনব পরিকল্পনা শিল্পীর]

অ্যালজাইমার্স, স্কিজোফ্রেনিয়ার মতো মানসিক ব্যাধির শিকার হন।

• স্লিপ ওয়াকিং: অনেকেই আছেন, যাঁরা ঘুমের মধ্যে হাঁটাচলা করেন। শুধু হাঁটাহাঁটিই নয়, বাসন মাজা বা কিছু পরিষ্কার করার মতো কাজও করে থাকেন। এই উপসর্গ বাচ্চাদের মধ্যে যেমন দেখা যায়, তেমনই দেখা যায় বড়দের মধ্যেও। এ সব ক্ষেত্রে বড়রা সাধারণত অ্যালজাইমার্স, স্কিজোফ্রেনিয়ার মতো মানসিক ব্যাধির শিকার হন।

অতিরিক্ত পরিশ্রম বা মানসিক অবসাদ থেকে মানুষ ঘুমের মধ্যে কথা বলে।

• মানসিক প্রতিক্রিয়া: ব়্যাপিড আই মুভমেন্টে যে শুধু খারাপটাই হয়, এমন কিন্তু নয়। অনেক সময়েই দেখা গিয়েছে, এই অবস্থায় মস্তিষ্কের উর্বরতা বৃদ্ধি পায়। মানুষ সৃষ্টিশীল কাজে প্রেরণা পায়।

 

• ঘুমের মধ্যে কথা বলা:অনেকেই ঘুমের মধ্যে কথা বললেও ব্যাপারটাকে হালকা করে দেখা উচিত নয়। সাধারণত অনিয়মিত ঘুম, অতিরিক্ত পরিশ্রম বা মানসিক অবসাদ থেকে মানুষ ঘুমের মধ্যে কথা বলে।

 

• নাইট টেরর: ঘুমের মধ্যে ভয় পাওয়ার আরও এক রকমফের হল এই নাইট টেরর। এক্সপ্লোডিং হেড সিনড্রোমে যেমন শব্দ শুনে ভয় তৈরি হয়, তেমনই এক্ষেত্রে ভয় আসে কোনও কল্পিত কিছু দেখে! সেটা দুঃস্বপ্ন হতে পারে, হতে পারে কল্পনা! এক্ষেত্রে সাধারণত খুব জোরে মানুষ চেঁচিয়ে ওঠে, ঘুম থেকে ভয়ে উঠে বসে, সারা শরীর ঘামে ভিজে যায়।

অতিরিক্ত পরিশ্রম বা মানসিক অবসাদ থেকে মানুষ ঘুমের মধ্যে কথা বলে।
অতিরিক্ত পরিশ্রম বা মানসিক অবসাদ থেকে মানুষ ঘুমের মধ্যে কথা বলে।

 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে