BREAKING NEWS

১৪  আশ্বিন  ১৪২৯  বুধবার ৫ অক্টোবর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

জামা তুলতে চাদর বেঁধে ১০ তলার বারান্দা থেকে ছেলেকে ঝোলাল মা! ভিডিও দেখলে আঁতকে উঠবেন

Published by: Akash Misra |    Posted: February 11, 2022 7:48 pm|    Updated: February 11, 2022 8:40 pm

Mother from Faridabad hangs son from 10th floor balcony by bedsheet to fetch saree | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ব্যালকনিতে মেলে দেওয়া একটি পোশাক পড়ে গিয়েছিল নিচে। ১০ তলা থেকে উড়ে গিয়ে পড়েছিল ৯ তলার ফ্ল্যাটের ব্যালকনিতে। হ্য়াঁ, সেই পোশাক উদ্ধার করে আনতে ন’তলার ফ্ল্যাটের বাসিন্দা এক মহিলা তার ছোট্ট ছেলেকে নিচে পাঠালেন ঠিকই, কিন্তু সিঁড়ি বা লিফট দিয়ে নয়। বরং বাচ্চাটির কোমরে হলুদ রঙের একটি বিছানার চাদর বেঁধে চাদরটিকে দড়ির মতো ব্যবহার করে, শিশুটিকে ঝুলিয়ে ব্যালকনি দিয়ে নামালেন নিচে! ঝুলে ঝুলেই ১০ তলার ব্যালকনি থেকে ৯ তলার ব্যালকনিতে পৌঁছে গেল শিশুটি! তারপর সেই পোশাক উদ্ধার করে আবার দড়ির সাহায্যেই উঠে এল ন’তলায়। দড়ি ধরে ঝোলানো, নামানো এবং টেনে তোলা–সব কিছুই করলেন তার মা!

ঘটনাটি ঘটেছে ফরিদাবাদে। যার ভিডিও এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল (Viral video) মহিলা জানতেনও না, যখন নিজের শিশুসন্তানের জীবন বিপন্ন করে তাকে বিছানার চাদর বেঁধে ঝুলিয়ে ব্যালকনিতে ওঠা-নামা করাচ্ছেন, তখন দূর থেকে কেউ তা ক্যামেরায় রেকর্ড করছিল। স্বাভাবিকভাবেই সেই ভিডিও প্রকাশ্যে আসায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে।

[আরও পড়ুন: আরও এক রাজ্যে বদলে গেল ভোটের দিনক্ষণ, নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন]

এরকম ঘটনা নতুন নয়, এর আগেও বহুবার সোশ্য়াল মিডিয়ার মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে এ ধরনের ভয়ানক ভিডিও। কখনও শাস্তির নামে গরম খুন্তির ছ্যাঁকা, তো কখনও রাগের বসে সন্তানের গলায় ওড়না জড়িয়ে খুন। তবে ফরিদাবাদের এই মহিলা ভিডিও ভাইরাল হওয়ার কথা জানতেই সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, সত্যিই তাঁর ভুল হয়েছে, এরকম ঝুঁকি নেওয়া উচিত হয়নি। জানা গিয়েছে, নিচের ফ্ল্যাটের দরজা বন্ধ থাকায় এই উপায় নিতে বাধ্য হয়েছিলেন ফরিদাবাদের এই মহিলা। 

[আরও পড়ুন: আরও এক রাজ্যে বদলে গেল ভোটের দিনক্ষণ, নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে