BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

নিজস্ব ‘রিজার্ভ ব্যাংক’ গড়লেন শিশু নিগ্রহে অভিযুক্ত পলাতক গুরু নিত্যানন্দ

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: August 18, 2020 10:24 pm|    Updated: August 18, 2020 10:24 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের একবার সকলকে চমকে ‘রিজার্ভ ব্যাংক অফ কৈলাস’ গড়লেন শিশু নিগ্রহে অভিযুক্ত পলাতক গুরু নিত্যানন্দ। শুধু তাই নয়, নিজস্ব কারেন্সি বা মুদ্রাও তৈরি করছেন তিনি। জানিয়েছেন, গণেশ চতুর্থীর দিনই নতুন মুদ্রা প্রকাশ্যে আনবেন তিনি।

[আরও পড়ুন: মান্ডুয়াদি স্টেশন এখন ‘বেনারস’, নাম পরিবর্তনের জেরে সমস্যায় রেলকর্তারাও]

সম্প্রতি একটি ভিডিও প্রকাশ করে ধর্ষণে অভিযুক্ত ওই গুরু জানিয়েছেন, নিজের ‘হিন্দু রাষ্ট্রে’ তিনি ‘রিজার্ভ ব্যাংক অফ কৈলাস’ গড়ে তুলেছেন। দেশ ছেড়ে পালিয়ে যাওয়ার পর বহুবার সমন পাঠানো সত্ত্বেও আদালতে হাজিরা দেননি স্বামী নিত্যানন্দ। তবে সমন এড়িয়ে গেলেও বিগত কয়েক মাসের মধ্যে তাঁকে একাধিক ভিডিওয় বিচিত্র সব দাবি করতে দেখা গিয়েছে। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্যউও হচ্ছে, নিজস্ব দেশ বা নিজস্ব বাহিনী গড়ার কথা। তবে ভিডিওগুলি গোপন জায়গায় শুট করা। যদিও নিত্যানন্দ সেখানে আশ্রয় নেননি বলে জানিয়েছিল ইকুয়েডর। এমনকী নিত্যানন্দ ‘কৈলাস’ নামে একটি দ্বীপ সেখানে কিনেছেন বলে যে খবর চাউর হয়েছিল, তা-ও গুজব বলে উড়িয়ে দেয় ইকুয়েডর সরকার।

উল্লেখ্য, ছোট ছোট ছেলেমেয়ে ও নাবালিকাদের ধর্ষণ এবং অপহরণ করে আশ্রমে আটকে রাখার মতো অনেকগুলি গুরুতর অপরাধে অভিযুক্ত স্বঘোষিত গডম্যান স্বামী নিত্যানন্দ৷ নানা ভক্তিমূলক ও আধ‌্যাত্মিক টিভি চ‌্যানেলে তাঁকে দেখা যেত জ্ঞান দিতে। বছরভর তিনি ধর্মীয় জ্ঞান দিয়ে এবং হিন্দুত্ববাদ নিয়ে বড় বড় কথা বলে ভারত ও ভারতের বাইরে কোটি কোটি ভক্ত জুটিয়েছিলেন। নিজের ইমেজ ভাঙিয়ে করেছিলেন বিপুল সম্পত্তি।

কিন্তু তিনি যে আশারাম বাপু এবং বাবা রামরহিমের মতোই একজন ধর্ষক ও দাগি অপরাধী, তা ফাঁস হতে বেশি সময় লাগেনি। ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের হতেই তাঁকে গ্রেপ্তার করার চেষ্টায় ছিল গুজরাত পুলিশ। তাই তড়িঘড়ি দেশ ছেড়ে পালিয়ে এবার আস্ত একটা দ্বীপ কিনে নিজের দেশই তৈরি করে ফেলেন স্বঘোষিত গডম্যান নিত্যানন্দ৷ দেশের নাম ‘কৈলাস’৷ নিত্যানন্দর দাবি, এটিই বিশ্বের সবথেকে বড় ও একমাত্র স্বাধীন সার্বভৌম হিন্দু রাষ্ট্র৷ দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের উত্তর–পশ্চিমে প্রশান্ত মহাসাগরের তীরে রয়েছে ছোট্ট দেশ ইকুয়েডর। ইকুয়েডরের সমুদ্রতীর থেকে কয়েক’শো কিলোমিটার দূরে তিনি একটি দ্বীপ কিনেছেন। সেই দ্বীপেই আশ্রম বানিয়েছেন। ইকুয়েডরের সরকার বলেছে, ওই দ্বীপ তাদের দেশের অংশই নয়। ওটা আন্তর্জাতিক এলাকা। এখানে ইকুয়েডরের হুকুম চলে না।

[আরও পড়ুন: একের পর এক পাশবিক ঘটনা, চাপের মুখে মহিলাদের জন্য বিশেষ সেল গঠন যোগীর]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement