Advertisement
Advertisement
Holi

দোল পূর্ণিমায় ‘দেব দোল’, হোলির পরদিন রঙের উৎসবে মাতে রায়নার এই গ্রাম

ভাগবত গীতা নিয়ে গ্রাম পরিক্রমার মধ্য দিয়ে শুরু হয় রং খেলা।

রাজ আমলের প্রথা ছিল, হোলির পরেরদিন রং খেলা। রীতি মেনে আজও দোল পূর্ণিমার দুইদিন পর রঙের উৎসবে মাতে পূর্ব বর্ধমানের রায়নার বনতি গ্রাম।

এই রঙের উৎসবের অন্যতম আকর্ষণ ভাগবত গীতা মাথায় নিয়ে গ্রাম পরিক্রমা।

১২৪২ বঙ্গাব্দে শিবনাথ দত্তর আমলে শুরু হয় এই দোল। দোল পূর্ণিমার দিন ওই গ্রামে 'দেব দোল' পালন করা হয়। এদিন দেবদেবীর পায়ে আবির দেওয়াই রীতি।

'দেব দোলে'র পরদিন শুরু হয় অষ্টম প্রহর। চারটি দল নামসংকীর্তন করে। এক লক্ষ মালা জপ, প্রতি প্রহরে শ্রীধর জিউ মন্দিরে ভোগ দেওয়া হয়।

দোল পূর্ণিমার দু'দিন পর ভাগবত গীতাকে লাল শালুতে মুড়িয়ে দত্ত পরিবারের একজন সদস্য তা মাথায় করে গ্রাম পরিক্রমা শুরু করেন। এর মধ্য দিয়েই গ্রামে রঙখেলা শুরু হয়।

পরিক্রমা শেষে দধি কলসি ভাঙেন দত্ত পরিবারের এক সদস্য। শেষে শ্রীধর জিউ মন্দিরে ভোগ দেওয়া হয়।