BREAKING NEWS

২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৭ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

শারদীয়ার ঢাকে কাঠি, একই দিনে রাজ্যের দুই প্রান্তের ৬৯টি পুজো উদ্বোধন মুখ্যমন্ত্রীর

Published by: Sayani Sen |    Posted: October 14, 2020 5:00 pm|    Updated: October 14, 2020 9:10 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা (Coronavirus) কালে একেবারে বদলে গিয়েছে আমাদের জীবনযাত্রা। এই পরিস্থিতিতে দোরগোড়ায় দুর্গাপুজো। তবে পুজোর পর সংক্রমণ আরও বাড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। তাই চলতি বছর ভারচুয়াল পুজো উদ্বোধনের পথে হেঁটেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই অনুযায়ী বুধবার নবান্নের সভাঘর থেকে ভারচুয়ালি উত্তরবঙ্গ এবং দক্ষিণবঙ্গ মিলিয়ে মোট ৬৯টি পুজোর উদ্বোধন করলেন রাজ্যের প্রশাসন প্রধান। মা দুর্গার কাছে করোনামুক্ত, দাঙ্গামুক্ত, অন্যায়মুক্ত পৃথিবীরও কামনা করলেন তিনি।

বুধবার প্রথম উত্তরবঙ্গ দিয়ে শুরু হয় পুজো উদ্বোধন। কোচবিহার, কালিম্পং, জলপাইগুড়ি-সহ উত্তরের প্রত্যেকটি জেলা এবং দক্ষিণবঙ্গে নদিয়া, মুর্শিদাবাদের পুজো উদ্বোধন করেন তিনি। এই প্রথমবার নবান্নের সভাঘর থেকে ভারচুয়ালি পুজোর উদ্বোধন করলেন মুখ্যমন্ত্রী। নিউ নর্মাল পরিস্থিতিতে উমাকে স্বাগত জানানোর জন্য নবান্নের সভাঘরকে পুরোপুরি অন্যরকমভাবে সাজিয়ে তোলা হয়েছে বলেও জানান তিনি। এছাড়া করোনা পরিস্থিতিতে এভাবে পুজো উদ্বোধনের জন্য মাঝে মাঝে আক্ষেপও প্রকাশ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। বারবার জেলাসফরের স্মৃতি রোমান্থন করতেও শোনা যায় তাঁকে। 

[আরও পড়ুন: নবান্ন অভিযানে জলকামানে ব্যবহৃত রাসায়নিকের প্রকৃতি জানার দাবি, অমিত শাহকে চিঠি লকেটের]

এদিনের পুজো উদ্বোধনের ভারচুয়াল অনুষ্ঠান মঞ্চ থেকে বারবার মা দুর্গার কাছে করোনা দূর করে আবার সুন্দর পৃথিবী ফিরিয়ে দেওয়ার প্রার্থনা জানান তিনি। ঠিক অনুষ্ঠানের শেষলগ্নে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “অন্যায় থেকে, সংকট থেকে, দাঙ্গা থেকে সকলকে মুক্ত করো মা।” রাজনৈতিক মহলের মতে, এই প্রার্থনার মধ্য দিয়ে তিনি নাম না করে কার্যত বিজেপিকেই খোঁচা দিয়েছেন। কারণ, এর আগে একাধিকবার গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে ধর্মীয় মেরুকরণের রাজনীতি করার অভিযোগ উঠেছে। সেদিক থেকে মুখ্যমন্ত্রীর প্রার্থনা যথেষ্ট ইঙ্গিতবহ বলেই মনে করছেন অনেকেই। 

এদিকে, নবান্নের সভাঘর থেকে সোজা আহিরীটোলা সর্বজনীনের মণ্ডপে চলে যান মুখ্যমন্ত্রী। সঙ্গে ছিলেন সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়। পুজো উদ্বোধন করেন। উল্লেখ্য, ১৫, ১৬ এবং ১৭ অক্টোবরও পুজো উদ্বোধন করবেন মুখ্যমন্ত্রী। ১৫ অক্টোবর উত্তর কলকাতা, ১৬ অক্টোবর বেহালা ও যাদবপুর এবং ১৭ অক্টোবর দক্ষিণ কলকাতার পুজো উদ্বোধন করবেন তিনি।

[আরও পড়ুন: মহামারী আবহে বাংলায় দুর্গোৎসব বন্ধ রাখা হোক, হাই কোর্টে দায়ের জনস্বার্থ মামলা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement