২৫ কার্তিক  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১২ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: হাতে আর মাত্র এক সপ্তাহ। পরের সপ্তাহের এই সময়ে চলবে জোরকদমে চলবে রাখির তোড়জোড়। ভাইবোনেরা হয়তো শেষবেলায় উপহার কিনতে ব্যস্ত থাকবে, অথবা ঘুরতে যাওয়ার কোনও পরিকল্পনা করবে। অনেকেই হয়তো চায় সকাল সকাল অনুষ্ঠান সেরে ভাই বা বোনের সঙ্গে সারা দিনটা কাটাতে। এমন কিন্তু ভুলেও করবেন না। কারণ ভাইয়ের হাতে রাখি বাঁধার নির্দিষ্ট সময় থাকে। নিয়ম মেনে রাখি বাঁধলে ভাইয়ের জীবন মঙ্গলময় হয়ে ওঠে।

[ আরও পড়ুন: মন্দিরের মূর্তিতে দেওয়া যাবে না সিঁদুর, ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাতের অভিযোগ বিশ্ব হিন্দু পরিষদের ]

সনাতন ধর্ম অনুসারে, প্রতিটি শুভ অনুষ্ঠানের নির্দিষ্ট সময় থাকে। ভাইয়ের হাতে রাখি বাঁধারও নির্দিষ্ট সময় রয়েছে। এখন অবশ্য কেউ এর খোঁজ রাখে না। কিন্তু পাঁজি মেলাতে গেলে দেখা যাবে রাখি বন্ধনের নির্ঘণ্ট সেখানে লেখা রয়েছে। রাখি বাঁধার সময় এই নিয়মগুলি মানলে তবেই সেই বন্ধন হয় পবিত্র। যেমন এবছর ১৫ আগস্ট রাখি। এই দিনে যে কোনও সময় ভাইয়ের হাতে রাখি বাঁধতে পারেন বোনেরা। কিন্তু বন্ধনের সবচেয়ে পবিত্র সময় হল বিকেল ৫টা ৪৯ মিনিট থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত৷ এই সময়টুকুর মধ্যে রাখি বাঁধার অনুষ্ঠান রাখতে পারেন। এতে ভাইয়ের মঙ্গল হবে। ভাইয়ের মঙ্গল কামনাতেই তো বোনেরা রাখি বাঁধে। তাই এটুকু সময় মেনে চললে অসুবিধা তো কিছু নেই।

তবে শুধু নির্ঘণ্ট মিললেই হবে না। রাখি বন্ধনের সময় থালাতেও রাখতে হয় কিছু জিনিসপত্র। এর মধ্যে অবশ্যই রয়েছে চন্দন, কুমকুম ও প্রদীপ৷ প্রদীপ যেন অবশ্যই প্রজ্জ্বলিত থাকে। রাখি বাঁধার আগে অবশ্যই ভাইয়ের কপালে আঁকুন মঙ্গল তিলক। এরপর প্রদীপের উত্তাপ দিন৷ কারণ অগ্নি শুদ্ধ ও পবিত্র। এর উত্তাপ জীবনে মঙ্গল ডেকে আনে। এই সবের পরই ভাইয়ের হাতে পরিয়ে দিন রাখি।

[ আরও পড়ুন: শ্রাবণে শিবের আরাধনা, পুণ্যার্জনের জন্য এগুলি মেনে চলুন ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং