৩০ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ১৭ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দিনে মাত্র এক কিলোগ্রাম প্লাস্টিক। যেমন ধরুন, বাড়িতে ফেলে দেওয়া জলের বোতল, ক্যারি ব্যাগ, থালা-গ্লাস–সব মিলিয়ে এক কিলোগ্রাম প্লাস্টিক জমা করতে পারলেই মিলবে এক কেজি চাল। প্লাস্টিক দূষণ রুখতে অভিনব ভাবনা। কথা হচ্ছে তেলেঙ্গানার।

এই অভিনব উদ্যোগ নিয়েছেন তেলেঙ্গানার মুলুগু জেলার জেলাশাসক সি নারায়ণ রেড্ডি। তবে এদেশে এটাই প্রথম নয়। এর আগে অসমের স্কুলে বর্জ্য প্লাস্টিক দিয়ে কচিকাঁচারাদের মাইনে দেওয়ার কথাও শোনা গিয়েছিল। আসলে গড়পড়তা শিক্ষার বদলে শিশুদের দূষণমুক্ত নির্মল পরিবেশ তৈরির পাঠ দেন সে স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা পারমিতা শর্মা ও মজিন মুখতার। তাছাড়া, ছত্তিশগড়ে তৈরি হয়েছে ‘গার্বেজ কাফে’। এক কেজি প্লাস্টিকের বদলে সেখানে মেলে পেট ভরা খাবার। প্লাস্টিক দূষণ রোধে অভিনব ব্যবস্থা নিচ্ছে ভারতীয় রেলও। এবার দেশকে প্লাস্টিকমুক্ত করার অঙ্গীকার নিয়ে এগিয়ে এল দক্ষিণও। এক কেজি প্লাস্টিকের বদলে এক কেজি চালের প্রকল্প শুরু হয়ে গিয়েছে তেলেঙ্গানায়। সরকারি প্রকল্প এখন সার্বিক রূপ নিয়ে ধীরে ধীরে ছড়িয়ে পড়ছে গোটা দক্ষিণেই।

[আরও পড়ুন: হরিয়ানায় নির্ণায়ক ভূমিকা, মহারাষ্ট্রের তিনটি আসনে দ্বিতীয় স্থানে নোটা!]

জেলাশাসক রেড্ডির কথায়, এই অভিযানের দু’টো দিক রয়েছে। এক, সরকারি আধিকারিকরা গ্রামে গ্রামে ঘুরে প্লাস্টিক-ব্যবহার রোখার বার্তা দিচ্ছেন। দুই, অনেক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন এবং গ্রামের কেউকেটারা নিজেরাই উদ্যোগ নিয়ে দূষণ রোধের কর্মসূচি নিচ্ছেন। সেক্ষেত্রে, রাজ্য সরকারের তরফ থেকেই চাল ও নগদ টাকা দেওয়া হচ্ছে তাঁদের। বদলে নেওয়া হচ্ছে জমা করা কেজি কেজি প্লাস্টিক। ফলে পরিবেশের কথাটাই মাথায় রাখা হচ্ছে সবার আগে। মুলুগুর প্রত্যন্ত গ্রামগুলি দিয়েই এই কর্মসূচি শুরু করেছিলেন জেলাশাসক। দিনভর আঁস্তাকুড় থেকে প্লাস্টিক জড়ো করে যাঁদের দিন কাটত তাঁরা তো বটেই, অভাবী অনেক পরিবারই চাল পাওয়ার আশায় সাড়া দেন এই প্রকল্পে। নারায়ণ রেড্ডি বলেছেন, ‘‘একটা-দু’টো গ্রাম দিয়ে শুরুটা হয়েছিল। এত মানুষের উৎসাহ দেখে এখন মোট ১৭৪টি গ্রামে প্লাস্টিকের বদলে চালের অভিযান চালানো হয়েছে। নিজেরাই উদ্যোগ নিয়ে একদিনেই রাস্তাঘাটের অর্ধেকের বেশি প্লাস্টিক কমিয়ে করে দিয়েছেন গ্রামবাসীরা।’’

plastic

এখন অবস্থাটা এমন যে, মুলুগু গ্রাম প্রায় প্লাস্টিকমুক্ত। আশপাশের গ্রামগুলিতেও শুরু হয়ে গিয়েছে এই প্লাস্টিকের বদলে চালের অভিযান। গত কয়েকদিনে প্রায় ২৫০টি এলাকায় এই অভিযান চালানো হয়েছে। প্রথম দিনেই জমা হয়েছে ২৪০০ কিলোগ্রাম প্লাস্টিক। তার মধ্যে ফেলে দেওয়া বোতল এবং প্লাস্টিকের ক্যারি ব্যাগের সংখ্যা বেশি। শুক্রবার অবধি জমা করা প্লাস্টিক বর্জ্যের পরিমাণ ৩১,০০০ কিলোগ্রাম। আগামী কয়েকদিনের মধ্যে মোট ৫০ টন প্লাস্টিক বর্জ্য জমা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।
‘প্লাস্টিক বর্জন করুন’, এই স্লোগান আমাদের পরিচিত। কিন্তু স্লোগান নিয়ে রোজকার দিনে কেউ সেভাবে ভাবনাচিন্তা করে না। তবে পরিবেশ যে এখন সবার আগে সেটা মুখে না বললেও, মানুষ ভালই বুঝেছেন।

[আরও পড়ুন: ৩৭০ বাতিলের পর প্রথম ভোট কাশ্মীরে, বিরোধীদের অনুপস্থিতিতেও ধাক্কা খেল বিজেপি]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং