BREAKING NEWS

১৬ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  শনিবার ৩০ মে ২০২০ 

Advertisement

লুপ্তপ্রায় প্রজাতি, কেনিয়ায় চোরাশিকারিদের হাতে প্রাণ গেল দু’টি সাদা জিরাফের!

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: March 11, 2020 10:35 pm|    Updated: March 11, 2020 10:35 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পৃথিবীতে এতদিন লুপ্তপ্রায় অবস্থায় ছিল সাদা জিরাফ। হাতে গুনে সেই জিরাফের সংখ্যা সম্প্রতি তিনটেতে ঠেকেছিল। তবে তারাও রক্ষা পেল না চোরাশিকারিদের হাত থেকে। সম্প্রতি কেনিয়ায় চোরাশিকারিদের হাতে পড়ে মারা যায় দুটি সাদা জিরাফ। তার মধ্যে একটি পূর্ণবয়স্ক মেয়ে জিরাফ ও আরেকটি তারই সন্তান। তাই বলা ভাল পৃথিবী থেকে প্রায় নিশ্চিহ্ন হয়ে গেল জিরাফের এই প্রজাতিটি।

পূর্ব কেনিয়ার কাছে গরিসায় সম্প্রতি এই দুটি জিরাফের হাড় খুজেঁ পাওয়া যায়। যা দেখে অনুমান করা হয় চোরা শিকারিরা এই জিরাফ দুটিকে মেরে তাদের চামড়া পাচার করে দিয়েছে। কেনিয়ার একটি সংবাদ মাধ্যমে তা প্রকাশ করে ইশাকবিনি হিরোলা কমিউনিটি। প্রাণীবিদদের অনুমান এই দুটি জিরাফ ছাড়া সম্ভবত পৃথিবীতে আর মাত্র একটিই সাদা জিরাফ বেঁচে রয়েছে। কোনও সময় হয়তো চোরা শিকারিদের হাতে পড়ে সেই জিরাফটিও প্রাণ হারাবে। এই ধরনের ঘটনায় প্রশ্ন ওঠে বন্যপ্রাণমন্ত্রকের নিরাপত্তা ও দায়িত্ববোধ নিয়ে। মহম্মদ আহমেদনুর দাবি করেন, “পৃথিবীতে আমরাই একমাত্র সম্প্রদায় যারা সাদা জিরাফকে রক্ষা করে থাকি।” তিনি আরও বলেন, “এই ধরনের প্রজাতির প্রাণীদের রক্ষা করতে দ্রুত রাষ্ট্রের তথা বিশ্বের পশুপ্রেমীদেরও এক হওয়া প্রয়োজন। পৃথিবীতে সুন্দর রাখতে যেমন গাছের প্রয়োজন তেমনই এই মূল্যবান প্রাণীদেরও রক্ষার প্রয়োজনীতা রয়েছে।”

[আরও পড়ুন:শকুনের বংশবৃদ্ধি নিয়ে উদ্যোগের মাঝেই হতাশা, উত্তরবঙ্গে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত ২]

পৃথিবীর এরকম দুষ্প্রাপ্য প্রাণীগুলির যত্ন না নেওয়ায় দিনে দিনে তা লুপ্তপ্রায় হয়ে দাঁড়াচ্ছে। ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে তা হয়তো কেবলমাত্র বইয়ের পাতার ছবি হিসেবেই থেকে যাবে। যাকে চাক্ষুষ করার সুযোগ পাবে না তারা। পাশাপাশি বিশ্বের প্রতিটি জঙ্গলগুলিতে নিজেদের স্বার্থ চরিতার্থ করতে এই চোরাশিকারিরা কোনও মায়া ছাড়াই নির্বিচারে হত্যা করে চলেছে নানা প্রাণীদের। তাই শুধুমাত্র চোরাশিকারিদের আটকানো নয়, এই দুষ্প্রাপ্য প্রাণীগুলিকে বাঁচাতে সচেতনতা বাড়াতে হবে মানুষের মধ্যে। 

[আরও পড়ুন:পরিবেশ বাঁচাতে উদ্যোগ, বায়ো স্যানিটারি ন্যাপকিন ব্যাগ তৈরিতে জোর কেন্দ্রের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement