Advertisement
Advertisement
চন্দ্রপৃষ্ঠে 'সারাভাই ক্রেটার'

ভরসা চন্দ্রযান-২’র অক্ষত অরবিটারই, চন্দ্রপৃষ্ঠ থেকে পাঠাল ‘সারাভাই ক্রেটারের’ ছবি

চাঁদ সম্পর্কে জানা যাবে অনেক নতুন তথ্য, টুইটে আশাপ্রকাশ ইসরোর।

The orbitar of Chadryaan-2 sends picture of new 'Sarabhai Crator' from the moon
Published by: Sucheta Sengupta
  • Posted:August 15, 2020 1:56 pm
  • Updated:August 15, 2020 1:59 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চন্দ্রযান-২’এর (Chandrayaan 2) ল্যান্ডার চন্দ্রপৃষ্ঠে অবতরণের আগে ভেঙে পড়লেও অক্ষত অরবিটারটি। ফলে ইসরোর চন্দ্রাভিযান একেবারে ব্যর্থ নয়। এখন সেই অরবিটারই চন্দ্রপৃষ্ঠের নানা রহস্যের হদিশ দিচ্ছে। দেখাচ্ছে নতুন নতুন ছবি। সেভাবেই চাঁদের মাটিতে অরবিটার খুঁজে পেল নতুন একটি গহ্বর। ১.৭ কিলোমিটার গভীর গর্তের ছবি পাঠিয়েছে অরবিটার।

আর তা দেখে ইসরোর বিজ্ঞানীদের বক্তব্য, অরবিটারের এটি নবতম আবিষ্কার। ভারতীয় মহাকাশ গবেষণার পথিকৃৎ বিক্রম সারাভাইয়ের নামে এই নতুন গহ্বরের নাম রাখা হয়েছে – সারাভাই ক্রেটার। এই নতুন গহ্বরটি চাঁদ সম্পর্কে নানা অজানা তথ্য তুলে ধরবে, এই আশা প্রকাশ করেছে নাসা।

Advertisement

বছর খানেক আগে অন্ধ্রের শ্রীহরিকোটা থেকে সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি চন্দ্রযান-২ উৎক্ষেপণ করেছিল ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র ইসরো (ISRO)। সফল উৎক্ষেপণ হলেও লক্ষ্যে পৌঁছনোর আগে গতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে না পেরে অবতরণ স্থল থেকে সামান্য দূরেই ভেঙে পড়ে চন্দ্রযান-২’এর ল্যান্ডার ‘বিক্রম’। তার ট্রান্সমিটার, রেডিও সিগন্যাল – সবই নষ্ট হয়ে যায়। তবে অরবিটারটি অক্ষত। আর সেটাই এখনও কাজ করে চলেছে। অরবিটারের হাই-রেজোলিউশন ক্যামেরা চন্দ্রপৃষ্ঠের নানা জায়গার ত্রিমাত্রিক ছবি পাঠাচ্ছে। সেই ছবিতেই দেখা গিয়েছে ‘সারাভাই ক্রেটার’কে।

[আরও পড়ুন: ২৪ বছরের আইনি লড়াইয়ের পর ঘোচে ‘চর’ বদনাম, এবার ক্ষতিপূরণ পেলেন ISRO’র বিজ্ঞানী]

বিজ্ঞানীরা বলছেন, অনেক সময়ে চাঁদের অনেক গভীর গর্তের ছবি ধরা পড়ে না হাই-রেজোলিউশন ক্যামেরায়। চন্দ্রপৃষ্ঠের পুরু ধুলোর স্তর ভেদ করে ক্যামেরার চোখ সেখানে পড়ে না। তার জন্য দরকার হয় সিন্থেটিক অ্যাপারেচার রাডার (SAR)। এর এসওএস ব্যান্ড ধুলোর আস্তরণ সরিয়ে ছবি তুলতে সক্ষম। এখন চন্দ্রযান-২’এর অরবিটারের এই অংশগুলি সক্রিয় থাকায় চন্দ্রগহ্বরের স্পষ্ট ছবি এখনও মিলছে বলে জানিয়েছেন ইসরোর বিজ্ঞানীরা। ‘সারাভাই ক্রেটার’নিয়ে আপাতত অনেকটাই আশাবাদী ইসরো। মনে করা হচ্ছে, এর ছবি বিশ্লেষণ করে আমাদের উপগ্রহটি সম্পর্কে নতুন তথ্য জানা যাবে।

[আরও পড়ুন: OMG! প্লাস্টিক বর্জ্য দিলেই ব্যাংক থেকে মিলবে মাস্ক, স্যানিটাইজার]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ