BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বিরাটের প্রস্তাবেই সিলমোহর, ক্রীড়াসূচিতে বড়সড় বদল ঘোষণা বিসিসিআইয়ের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: December 11, 2017 12:58 pm|    Updated: September 20, 2019 11:40 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কলকাতায় সাংবাদিক সম্মেলনে ভারতীয় দলের ক্রীড়াসূচি নিয়ে ক্ষোভ উগরে দিয়েছিলেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। প্রশ্ন তুলেছিলেন ক্রিকেটারদের বিশ্রাম দেওয়া নিয়েও। ভারত অধিনায়কের মন্তব্যই চোখ খুলে দিল বিসিসিআইয়ের। ক্রীড়াসূচিতে আমূল পরিবর্তন আনার ইঙ্গিত আগেই দিয়েছিল বোর্ড। এবার সরকারিভাবেই তার ঘোষণা হল।

[বিতর্কে এটিকে ফুটবলার প্রবীর দাস, বধূ নির্যাতনের অভিযোগে এফআইআর]

সোমবার বিসিসিআই-এর বিশেষ সাধারণ সভায় টিম ইন্ডিয়ার কাঁধ থেকে বোঝা কমানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। আগে ঠিক ছিল ২০১৯ থেকে ২০২৩ সালের মধ্যে ৩৯০ দিন খেলবেন বিরাটরা। এখন তা কমিয়ে করা হল ৩০৬ দিন। এই চার বছরে সব ফরম্যাট মিলিয়ে ভারতের মাটিতে অনুষ্ঠিত হবে মোট ৮১ টি ম্যাচ। যার মধ্যে রয়েছে ইংল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়ার মতো হাই-প্রোফাইল সিরিজগুলিও। তবে ২০২১ আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি এবং ২০২৩ বিশ্বকাপকে এই ক্রীড়াসূচির মধ্যে ধরা হয়নি। তবে এবার টেস্টের তুলনায় সীমিত ওভারেই বেশি জোর দিচ্ছে বোর্ড। এদিকে ভারতের মাটিতে টিম ইন্ডিয়ার বিরুদ্ধে টেস্টে অভিষেক ঘটাবে  আফগানিস্তান, সে কথাও জানানো হল।

চলতি মরশুমে আইপিএল এর পরই চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি খেলেছে ভারত। তারপরই ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং শ্রীলঙ্কা সফর। আবার ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড এবং শ্রীলঙ্কা মিলিয়ে মোট ২৩টি ম্যাচ খেলেছেন বিরাটরা। জানুয়ারিতেই রয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে কঠিন চ্যালেঞ্জ। স্বাভাবিকভাবেই ক্রিকেটারদের লাগাতার ম্যাচ খেলা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন ভারত অধিনায়ক। বিশেষ করে প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে নামার আগে পর্যাপ্ত বিশ্রামের প্রয়োজন ছিল বলেও অভিমত ছিল তাঁর। তারপরই শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে সীমিত ওভারের সিরিজে বিশ্রাম দেওয়া হয় বিরাটকে। আর এবার খেলার দিন কমানোর প্রস্তাবও মেনে নিল বিসিসিআই।

এর পাশাপাশি এদিনের বৈঠকের পরই রাজস্থান ক্রিকেট সংস্থা থেকে নির্বাসন তুলে নেওয়া হল। বিসিসিআইয়ের কার্যকরী সচিব অমিতাভ চৌধুরি বলেন, “সংস্থার অভ্যন্তরীণ সমস্যার জন্য ক্রিকেট যাতে ক্ষতিগ্রস্থ না হয়, সেই কারণেই এই সিদ্ধান্ত। তবে ললিত মোদি কোনওভাবেই যেন সংস্থার কাজের সঙ্গে যুক্ত না থাকেন, এই শর্তেই নির্বাসন তুলে নেওয়া হয়েছে।” এদিন অমিতাভ চৌধুরি ভারত-পাকিস্তান দ্বিপাক্ষিক সিরিজ নিয়েও মুখ খোলেন। তিনি জানান, সরকার সম্মতি দিলে দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ আয়োজন করতে বোর্ডের তরফে কোনও অসুবিধা নেই। এদিকে শোনা যাচ্ছে, এক যুগ পর ফের ২০২৩ সালে ভারতের মাটিতেই বসতে চলেছে ক্রিকেট বিশ্বকাপের আসর।

[জার্মানিকে হারিয়ে বিশ্ব হকি লিগে ব্রোঞ্জ পেল ভারত]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement