BREAKING NEWS

২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

লাদাখে শহিদ ভারতীয় সেনাদের নিয়ে বিতর্কিত টুইট, নির্বাসিত সিএসকে দলের এই সদস্য

Published by: Sulaya Singha |    Posted: June 17, 2020 6:32 pm|    Updated: June 17, 2020 6:45 pm

An Images

ফাইল ছবি

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পূর্ব লাদাখের ভারত-চিন সীমান্তে প্রায় দেড়মাস ধরে যুদ্ধ যুদ্ধ পরিস্থিতি। প্রায় সাড়ে চার দশক পর সোমবার পূর্ব লাদাখের গালওয়ান সীমান্তে ভারতীয় জওয়ানদের রক্ত ঝরেছে। শহিদ হয়েছেন অন্তত ২০ জন। যাঁদের প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় শোকজ্ঞাপন করলেন ক্রিকেট তারকা। একইসঙ্গে এই ঘটনা নিয়ে মশকরা করে বিপাকে পড়তে হল সুপার কিংস দলের ডাক্তার মধু থোট্টাপিল্লিলকে।

গালওয়ান উপত্যকায় ২০ জন ভারতীয় সেনার শহিদ হওয়াকে কেন্দ্র করে নেটদুনিয়ায় উপহাসমূলক মন্তব্য করেন সিএসকে’র ডাক্তার মধু থোট্টাপিল্লিল। যার ফলে তাঁকে কৃতকর্মের পরিণাম ভুগতে হল। টিম ম্যানেজমেন্ট তাঁকে সাসপেন্ড করার সিদ্ধান্ত নিল। দেশের সর্বকালের সেরা অধিনায়ক ধোনি, যিনি আবার ভারতীয় সেনাবাহিনীর সাম্মানিক কর্নেলও। সেই দলেরই ডাক্তার কিনা ভারত-চিন সংঘর্ষের মতো উত্তপ্ত ইস্যু নিয়ে মশকরা করেন। দ্রুত সেই পোস্ট সরিয়ে ফেললেও লাভ হয়নি। সিএসকে এদিন তাঁকে নির্বাসনে পাঠায়। দলের তরফে এক বিবৃতি দিয়ে জানানো হয় যে, মধু থোট্টাপিল্লিলের টুইট সম্পর্কে তারা প্রথমে কিছুই জানত না। ‘খুবই কুরুচিকর টুইট। আমরা প্রথমে জানতাম না। কিন্তু জানার সঙ্গে সঙ্গে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করা হয়েছে।’ বলে সিএসকে।

[আরও পড়ুন: ‘পরিকল্পনামাফিক ভারতীয় জওয়ানদের হত্যা করেছে চিন’, ক্ষোভে ফুঁসছেন বাইচুং]

যুবরাজ সিং থেকে বিরাট কোহলি, বীরেন্দ্র শেহওয়াগ প্রত্যেকেই শহিদদের আত্মবলিদানকে স্যালুট জানান। সেই সঙ্গে তাঁদের পরিবারের প্রতি সহানুভূতি জ্ঞাপন করেন। চিনের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন প্রাক্তন ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীরও। বলেন, এতে দুই দেশেরই ক্ষতি হয়েছে। কিন্তু চিনের মতো ভারত সংখ্যা নিয়ে ভুয়ো খবর ছড়ায় না। গোটা দেশ এই আত্মবলিদানকে মনে রাখবে। ভারতীয় ফুটবল অধিনায়ক সুনীল ছেত্রীর মতে, বর্ডারে রক্ত না ঝরিয়ে, আলোচনার মাধ্যমেও এই সমস্যার সমাধান করা যায়। শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে কুস্তিগির সুশীল কুমার আবার চিনা পণ্য বয়কটের ডাক দিয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। 

[আরও পড়ুন: অবসরের ১৭ বছর পর পদ্মশ্রী সম্মান পাবেন বিজয়ন! নাম সুপারিশ ‘উদাসীন’ ফেডারেশনের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement