২ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ২০ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রবিবার ভারত-পাকিস্তান ম্যাচে বল গড়াতেই নয়া রেকর্ড গড়লেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। টপকে গেলেন মিস্টার ডিপেন্ডেবল রাহুল দ্রাবিড়কে। দেশের জার্সি গায়ে ৩৪১ নম্বর ওয়ানডে ম্যাচ খেলছেন প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক। ভারতীয় হিসেবে তাঁর সামনে শুধু শচীন তেণ্ডুলকর। ৪৬৩টি একদিনের ম্যাচ খেলেছেন মাস্টার ব্লাস্টার। ভারতীয় দলের হয়ে ৩৪০টি ওয়ানডে খেলার রেকর্ড রয়েছে দ্রাবিড়ের ঝুলিতে। এদিন ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ভারত-পাক ম্যাচের টসের পরই বিরল রেকর্ডের মালিক হয়ে গেলেন তিনি।

[আরও পড়ুন: আর্জেন্টিনার হয়ে ফের ব্যর্থ, নেটদুনিয়ার রোষের মুখে মেসি]

দেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি ওয়ানডে খেলার তালিকায় শচীন, ধোনি এবং দ্রাবিড়ের পরই রয়েছেন প্রাক্তন অধিনায়ক মহম্মদ আজহারউদ্দিন (৩৩৪), সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় (৩০৮) এবং সদ্য ক্রিকেটকে বিদায় জানানো যুবরাজ সিং (৩০১)। তিনটি এশিয়া একাদশ মিলিয়ে এদিন নিজের ৩৪৪তম একদিনের ম্যাচ খেলছেন ধোনি। বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে হাইভোল্টেজ ম্যাচে ব্যাট করতে নামার আগেই নজির গড়ে ফেলেন মাহি।

এদিন টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় পাকিস্তান। কিন্তু শুরুতেই বিপাকে পড়তে হয় মহম্মদ আমিরকে। প্রথম পাঁচ ওভারের মধ্যেই দুবার আম্পায়ার সতর্ক করেন পাক পেসারকে। অথচ মেডেন ওভার দিয়েই বোলিংয়ের শুরুটা করেছিলেন। কিন্তু কী এমন করলেন তিনি যাতে ইনিংসের শুরুতেই আম্পায়ারের চোখরাঙানি দেখতে হল আমিরকে? তাঁর দ্বিতীয় ওভারের তৃতীয় বলের ফলো থ্রুয়ের সময় পিচে মাঝখান দিয়ে যাওয়ায় তাঁকে সতর্ক করেন আম্পায়ার। আবার ভারতের পঞ্চম ওভারে একই কারণে সতর্ক বার্তা শুনতে হয় আমিরকে। সরকারিভাবে সতর্ক করার আগে আমিরের সঙ্গে কথাও বলেছিলেন আম্পায়ার। কিন্তু সেসব কানে নেননি পাক পেসার। এমসিসি-র নিয়ম অনুযায়ী কোনও বোলার যদি উইকেটের নিষিদ্ধ এলাকা দিয়ে ডেলিভারি করেন তাহলে শাস্তির মুখে পড়তে পারেন তিনি। এমনকী একই দোষ তিনবার করলে সেই ম্যাচে আর বোলিংয়ের সুযোগ পান না সেই বোলার।

[আরও পড়ুন: এই অভিনেত্রীর প্রেমে পড়েছেন বুমরাহ? জোর জল্পনা নেটদুনিয়ায়]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং