৩ কার্তিক  ১৪২৬  সোমবার ২১ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

ভারত: ৫০৭-ডি. ৩২৩-৪ ডি. (রোহিত ১২৭, পুজারা ৮১)

দক্ষিণ আফ্রিকা: ৪৩১-১০, ১৯১-১০ (শামি ৫-৩৫, জাদেজা ৪-৮৭)

ভারত ২০৩ রানে জয়ী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে প্রথম টেস্টে দুর্দান্ত জয় ভারতের। একসময় মনে হচ্ছিল, দক্ষিণ আফ্রিকা ম্যাচটি বাঁচিয়ে নিলেও নিতে পারে। কিন্তু, শেষ দুদিন দুর্দান্ত ক্রিকেট খেলে জয় ছিনিয়ে নিল  ভারত। ব্যাট হাতে যেমন রোহিত শর্মা একের পর এক নজির গড়লেন। তেমনি বল হাতে কামাল দেখালেন অশ্বিন-জাদেজা এবং শামি। যার ফলে বিশাখাপত্তনমে ২০৩ রানের ব্যাবধানে জয় ছিনিয় নিল ভারত। সেই সঙ্গে তিন টেস্টের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল টিম ইন্ডিয়া।

[আরও পড়ুন: টি-টোয়েন্টিতে নয়া রেকর্ড হরমনপ্রীতের, টপকে গেলেন ধোনি-রোহিতদেরও]

জয়ের জন্য এদিন ভারতের প্রয়োজন ছিল ৯ উইকেট। অন্যদিকে, দক্ষিণ আফ্রিকাকে তুলতে হত ৩৮৪ রান। যা একপ্রকার অসম্ভব ছিল। সেটা জেনেই হয়তো ড্রয়ের চেষ্টা শুরু করে আফ্রিকা। কিন্তু, শেষদিন শামির রিভার্স সুইং এবং জাদেজার বাঁহাতি স্পিন প্রোটিয়া ব্যাটসম্যানদের দাঁড়াতেই দিল না। প্রথম সেশনেই সাত সাতটি উইকেট তুলে নিল ভারত। এদিন আগের দিনের ১ উইকেটে ১১ রানের মাথায় খেলতে নামে দক্ষিণ আফ্রিকা। মার্করম ছাড়া টপ অর্ডারের কোনও ব্যাটসম্যানই সেভাবে দাগ কাটতে পারেননি। ফলে মাত্র ৭০ রানের মধ্যে ৮ উইকেট পড়ে যায় দক্ষিণ আফ্রিকার। এরপর অবশ্য কিছুটা লড়াই দেন মুথুস্বামী এবং পিট। মুথুস্বামী ৪৯ এবং পিট ৪৬ রান করেন। কিন্তু, তাদের লড়াই কাজে দেয়নি। শেষ পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংস শেষ হয় ১৯১ রানে। ভারতের হয়ে পাঁচটি উইকেট পান মহম্মদ শামি। ৪ উইকেট পান রবীন্দ্র জাদেজা। ১টি উইকেট পান অশ্বিন। ২০৩ রানে জয় পায় ভারত। ফলে তিন ম্যাচের সিরিজে এগিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি, টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপেও ভাল জায়গায় চলে গেল টিম ইন্ডিয়া।  টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে শীর্ষস্থান আরও মজবুত করল ভারত।

[আরও পড়ুন: এলগার-ডি’ককের জোড়া সেঞ্চুরি, প্রথম টেস্টে লড়াই দিচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকা ]

এদিকে, এই অনবদ্য জয়ের দিনই নতুন রেকর্ড করে ফেললেন অশ্বিন। দ্রততম বোলার হিসেবে টেস্ট ক্রিকেটে ৩৫০ উইকেটের মালিক হলেন তিনি। ৩৫০ উইকেট নিতে তাঁর লাগল মাত্র ৬৬টি টেস্ট। মুথাইয়া মুরলীধরনের সঙ্গে যুগ্মভাবে এই রেকর্ডের মালিক হলেন তিনি। মুরলীধরনও ৬৬ টেস্টেই ৩৫০ উইকেট পান।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং