৪ ভাদ্র  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২২ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৪ ভাদ্র  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২২ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ২০১৯ বিশ্বকাপে হল না। কিন্তু ২০২৩ নিশ্চয়ই হবে। অর্থাত আসন্ন বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হবে ভারতই। না, এটা শুধু ভারতীয় সমর্থকদের আশাই নয়, পরিসংখ্যানও কিন্তু একথাই বলছে।

বিষয়টি তাহলে একটু বিস্তারিত আলোচনা করা যাক। ২০২৩-এ ১৩তম ক্রিকেট বিশ্বকাপের আসর বসতে চলেছে এদেশে। প্রথমবার এককভাবে এই টুর্নামেন্ট আয়োজনের কথা ভারতের। ২০২৩ সালের ৯ ফেব্রুয়ারি শুরু বিশ্বকাপ। ফাইনাল ২৬ মার্চ। পরেরবারের টুর্নামেন্টও সদ্য সমাপ্ত বিশ্বকাপের ফরম্যাটেই হবে। অর্থাৎ প্রথমে রাউন্ড রবিন লিগে ১০ দল পরস্পরের মুখোমুখি হবে। তারপর সেমিফাইনাল ও ফাইনাল। আইসিসি র‌্যাঙ্কিংয়ে প্রথম সাতটি দল এবং আয়োজক ভারত সরাসরি বিশ্বকাপের মূলপর্বে খেলার ছাড়পত্র পাবে। বাকি দুটি দলকে যোগ্যতা অর্জন করতে হবে। এর আগে তিনবার বিশ্বকাপ হয়েছে এদেশে। তবে প্রতিবারই ভারতের সঙ্গে
উপমহাদেশের কোনও না কোনও দেশও আয়োজক হিসেবে ছিল। ১৯৮৭ সালে ভারত ও পাকিস্তান যুগ্মভাবে বিশ্বকাপের আয়োজন করেছিল। ১৯৯৬ বিশ্বকাপ হয়েছিল ভারত-পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কায়। ২০১১ বিশ্বকাপে আয়োজকের ভূমিকায় ছিল ভারত-শ্রীলঙ্কা-বাংলাদেশ। এবার আয়োজন ভারত একাই। আর সেই কারণেই মনে করা হচ্ছে, টিম ইন্ডিয়াই হবে চ্যাম্পিয়ন।

[আরও পড়ুন: বিশ্বকাপ জিতে ‘আল্লা’কে ধন্যবাদ জানালেন অধিনায়ক মর্গ্যান! কিন্তু কেন?]

পরিসংখ্যান বলছে, গত তিনটি বিশ্বকাপ যে দেশ আয়োজন করেছে, তাদেরই কেউ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। ২০১১ সালে দুই আয়োজক দেশ ভারত ও শ্রীলঙ্কা মুখোমুখি হয়েছিল। যেখানে ধোনির নেতৃত্বে বিশ্বজয়ীর তকমা পায় টিম ইন্ডিয়া। ২০১৫ সালে আয়োজক ছিল অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড। সেই দুই দলের মধ্যেই হয় ফাইনাল। পঞ্চমবার বিশ্বকাপ জেতে অজিবাহিনী। এবারও বদলায়নি ছবিটা। ৪৪ বছরের অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে বিশ্বকাপ ঘরে তোলে হোম ফেভরিট ইংল্যান্ড। এবার ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ছিল আয়োজক। কিন্তু হোম টিম বলতে শুধু ইংল্যান্ডই বিশ্বকাপ খেলেছে। আর তারাই বিজয়ী। এই হিসেবে দেখলে পরের বিশ্বকাপ জয়ের সমূহ
সম্ভাবনা টিম ইন্ডিয়ারই। তবে শুধু পরিসংখ্যান দিয়েই তো আর খেলার বিচার হয় না। মাঠের লড়াইটাই শেষ কথা। কিন্তু চার বছরের দীর্ঘ সময়টায় সমর্থকরা এমন ইতিবাচক আশা নিয়ে কাটাতেই পারেন।

[আরও পড়ুন: বিরাট-রোহিত দ্বন্দ্ব নিয়ে তদন্তের ইঙ্গিত বিসিসিআইয়ের! বদলানো হতে পারে অধিনায়ক]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং