BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

কোথায় বসবে আইপিএল ১৩-র আসর? জল্পনা উড়িয়ে জানালেন টুর্নামেন্টের চেয়ারম্যান

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: July 21, 2020 5:16 pm|    Updated: July 21, 2020 7:31 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: টি-২০ বিশ্বকাপ বাতিলের পর আর তেমন কোনও বাধা নেই। এবার আইপিএলের (IPL) ত্রয়োদশ সংস্করণের শুরু হওয়াটা শুধু সময়ের অপেক্ষা। কিন্তু মহামারীর (CoronaVirus) আবহে কীভাবে টুর্নামেন্ট আয়োজন সম্ভব? কোন দেশে হবে খেলা? ফরম্যাটই বা কী হবে? মেগা টুর্নামেন্ট ঘিরে সমর্থকদের মধ্যে এখনও হাজারো প্রশ্ন ঘোরাফেরা করছে। আইসিসি টি-২০ বিশ্বকাপ বাতিল করার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সেসব প্রশ্নের উত্তর দিলেন আইপিএল চেয়ারম্যান ব্রিজেশ প্যাটেল (Brijesh Patel)।

এক সংবাদসংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে আইপিএল চেয়ারম্যান জানিয়ে দিয়েছেন, করোনা আবহেও টুর্নামেন্টে কোনও কাটছাঁট করা হবে না। এবছরও পূর্ণাঙ্গ টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হবে। অর্থাৎ প্রতিবছরের মতো প্রতিটি দলের বিরুদ্ধে হোম, অ্যাওয়ে দুই লেগে খেলবে প্রতিটি দল। মোট ৬০টি ম্যাচ খেলা হবে এই মেগা টুর্নামেন্টে। জল্পনার অবসান ঘটিয়ে ব্রিজেশ প্যাটেল আরও জানিয়ে দিয়েছেন, শ্রীলঙ্কা নয়, সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতেই (UAE) হবে টুর্নামেন্ট। সরকারের অনুমতির জন্য আবেদনও করা হয়েছে। আগেই জানা গিয়েছিল, আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর থেকে আইপিএল (IPL) শুরুর পরিকল্পনা করেছে বোর্ড। যা চলার কথা আগামী ৮ নভেম্বর পর্যন্ত। এদিন সেই জল্পনাতেও সিলমোহর দেন আইপিএল চেয়ারম্যান। জানিয়ে দেন, সেপ্টেম্বরের শেষ থেকে নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে এই টুর্নামেন্ট আয়োজন করার পরিকল্পনা করা হচ্ছে। তবে চূড়ান্ত দিনক্ষণ এখনও ঠিক করেনি বোর্ড।

[আরও পড়ুন: করোনার কোপে স্থগিত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, নতুন দিনক্ষণ ঘোষণা করল আইসিসি]

ওই সাক্ষাৎকারে আইপিএল চেয়ারম্যান বলছিলেন,”আগামী এক সপ্তাহ বা দশদিনের মধ্যে আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের বৈঠক বসবে। সেই বৈঠকেই আমাদের পরবর্তী পরিকল্পনা ঠিক হবে। আমরা ৬০ ম্যাচের পূর্ণাঙ্গ আইপিএল করতে চাইছি। ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলি ইতিমধ্যেই নিজেদের মতো প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে।” ব্রিজেশ জানিয়েছেন, বিদেশি ক্রিকেটাররা সরাসরি উড়ে যাবেন আমিরশাহীতেই। তবে দেশি ক্রিকেটাররা যেহেতু লকডাউনে অনুশীলনের সুযোগ পাননি, তাঁদের অন্তত ৩-৪ সপ্তাহ অনুশীলনের ব্যবস্থা করতে হবে। এবারের টুর্নামেন্টে ধারাভাষ্যকারদের জন্যও বিশেষ পরিকল্পনার কথা ভাবা হচ্ছে। যারা একটু বেশি বয়স্ক, তাঁদের বাড়ি থেকেই ধারাভাষ্য দেওয়ার ব্যবস্থা করা হতে পারে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement