BREAKING NEWS

১২ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৬ মে ২০২০ 

Advertisement

লকডাউনে সমস্যায় ‘ডায়পার কিড’-এর পরিবার, সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন লক্ষ্মীরতন

Published by: Sulaya Singha |    Posted: March 29, 2020 8:01 pm|    Updated: March 29, 2020 8:01 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ডায়াপার কিড শেখ শাহিদের কথা নিশ্চয়ই মনে আছে! লকডাউন পরিস্থিতিতে বিপাকে পড়েছে তার পরিবার। আর্থিক অভাবে খাবার জুটছে না পরিবারের। খবরটা কানে যেতেই তাদের সাহায্য করতে তৎপর হন লক্ষ্মীরতন শুক্লা। খবর পাওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই শেখ শাহিদের বাড়িতে খাবার পৌঁছনোর ব্যবস্থা করে দেন রাজ্যের ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী।

করোনায় মোকাবিলায় (Coronavirus) একগুচ্ছ পদক্ষেপ করে দেশে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর দেখানো পথেই হাঁটছেন দলের অন্যান্য নেতা-মন্ত্রীরা। ইতিমধ্যেই তিন মাসের বেতন এবং বিসিসিআই থেকে পাওয়া পেনশন রাজ্যসরকারের খাতে অনুদান হিসেবে দিয়েছেন বাংলার প্রাক্তন ক্রিকেটার লক্ষ্মীরতন। এবার ‘ডায়পার কিড’ ও তার পরিবারকেও প্রাণ খুলে সাহায্য করলেন তিনি। এমন কঠিন পরিস্থিতিতে লক্ষ্মীরতনের থেকে দ্রুত সাহায্য পেয়ে আপ্লুত ও ধন্য শেখ শাহিদের বাবা সামশের। বললেন, “আমাদের এই পরিস্থিতিতে তিনি যেভাবে এগিয়ে এলেন, তাতে আমরা কৃতজ্ঞ।” ভ্যান রিকসায় করে সমস্ত খাদ্যসামগ্রী, সবজি ইত্যাদি পৌঁছে দেওয়া হয় শাহিদের বেহালার বাড়িতে। লক্ষ্মীরতন জানান, শাহিদের পরিবারের মতোই যদি আরও কেউ এধরনের সমস্যায় পড়েন, তবে তাঁরা যেন অবশ্যই স্থানীয় থানায় খবর দেন। রাজ্য সরকার সেসব বাড়িতে খাবার পৌঁছে দেওয়ার যথাসাধ্য চেষ্টা করবে।

[আরও পড়ুন: করোনা রুখতে ব্যাট ছেড়ে নয়া ভূমিকায় ইংল্যান্ড অধিনায়ক, যোগ দিলেন জাতীয় স্বাস্থ্য পরিষেবায়]

কলকাতার বিস্ময় শিশু ডায়াপার পরে হাতে ব্যাট তুলে নিয়ে গোটা দুনিয়ার মন জয় করেছিল। তার নিখুঁত ক্রিকেটীয় শট, মাপা কভার ড্রাইভে মন মজেছিল কেভিন পিটারসেন থেকে বিরাট কোহলি, সকলেরই। একটি ভিডিওই জনপ্রিয়তার শিখরে পৌঁছে দেয় মাত্র সাড়ে তিন বছরের শাহিদকে। প্রাক্তন অজি অধিনায়ক স্টিভ ওয়াও (Steve Waugh) তার প্রশংসা না করে পারেননি। শিশুর প্রতিভায় তিনি একটাই মুগ্ধ হয়েছিলেন যে তার সঙ্গে দেখা করতে সটান চলে গিয়েছিলেন তার বাড়িতে। পরে জানান, কলকাতার ডায়াপার কিডের কথা তিনি লিখবেন নিজের বইয়েও। এহেন প্রতিভাবান খুদের পরিবার অভুক্ত থাকবে, তাও কি হয়? তাই নিজেই উদ্যোগ নিয়ে খাদ্যসামগ্রী তাঁর বাড়িতে পৌঁছে দিলেন লক্ষ্মীরতন।

বাকি কলকাতার মতোই আপাতত গৃহবন্দি খুদে শাহিদ। অনুশীলনে যাওয়া হচ্ছে না। বাড়িতেই চলছে প্র্যাকটিস। শাহিদের বাবার বিশ্বাস, এই কঠিন সময়ও কেটে যাবে। ফের স্বাভাবিক ছন্দে ফিরবে বিশ্ববাসী।

[আরও পড়ুন: ‘শ্রমিকদের কথা ভাবা উচিত ছিল সরকারের’, লকডাউন নিয়ে কটাক্ষ হরভজনের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement