BREAKING NEWS

১১ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  সোমবার ২৫ মে ২০২০ 

Advertisement

লকডাউনে বাড়ি বসে সুন্দরী রমণী হয়ে উঠলেন প্রাক্তন পাক স্পিনার! ভাইরাল ভিডিও

Published by: Sulaya Singha |    Posted: April 7, 2020 3:54 pm|    Updated: April 7, 2020 3:54 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বাড়িতে বন্দি থাকলেই দেশসেবা করা যাবে। সংবাদমাধ্যম কিংবা সোশ্যাল মিডিয়ায় চোখ রাখলে হামেশাই এ কথা শোনা যাচ্ছে। করোনাকে দূর করার একমাত্র উপায় এখন বাড়িতে থাকা। এতে আপনি যেমন সুস্থ থাকবেন, তেমন অন্যকেও সুস্থ রাখতে সাহায্য করবেন। প্রশাসনের নির্দেশ মতো বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মানুষ লকডাউনে তাই গৃহবন্দি। ভারত-আমেরিকা-ইটালির মতো তালিকায় রয়েছে পাকিস্তানও। আর ঘরে বসে একঘেয়েমি কাটাতে নানাজন নানারকম কাণ্ডকারখানা ঘটাচ্ছেন। বলিউডের নায়িকারা যেমন বাসন ধোয়া কিংবা ঘর পরিষ্কারের ভিডিও পোস্ট করছেন, তেমন কেউ কেউ পরিবারের সঙ্গে কাটানো বিশেষ মুহূর্তগুলো তুলে ধরছেন। তবে প্রাক্তন পাক তারকা যা করলেন, তা অবাক করেছে নেটিজেনদের।

তিনি সাকলিন মুস্তাক। পাকিস্তান দলের এককালের দুরন্ত স্পিনার। গোটা পাকিস্তানের মতো তিনিও বাড়িতে বন্দি। কিন্তু ভিডিওটিতে সাকলিনকে কি চিনতে পারছেন? না চেনারই কথা। একেবারে ভোল বদলে ফেলেছেন। বলা ভাল, লিঙ্গই পরিবর্তন করে ফেলেছেন! একসময়ের বাইশ গজ কাঁপানো স্পিনার এখন সুন্দরী রমণী। মাথায় লম্বার গোলাপি চুল। তার সঙ্গে মানানসই গোলাপি লিপস্টিক। চোখে আই-লাইনার আর সবুজ আই-স্যাডো। কে বলবে, এই তারকাই বল হাতে তাবড় তাবড় ব্যাটসম্যানকে চাপে ফেলেছেন!

[আরও পড়ুন: গুজবে কান না দিয়ে সঠিক খবর পেতে সংবাদমাধ্যমেই ভরসা রাখুন, আরজি সৌরভের]

ভিডিওতে সাকলিনের সঙ্গে দেখা যাচ্ছে তাঁর মেয়েকেও। প্রাক্তন স্পিনার জানাচ্ছেন, মেয়েই তাঁর মেক-আপ আর্টিস্ট। একপ্রকার জোর করেই বাবাকে এই রূপ দিয়েছে সে। ভিডিও বার্তায় সাকলিন বলেন, “আমরা এখন সবাই কোয়ারেন্টাইনে। সুস্থ থাকুন। বাড়িতে নিজের প্রিয়জনদের সঙ্গে সময় কাটান। আনন্দে থাকুন।” সাকলিনের এই মজাদার ভিডিও এখন সোশ্যাল মিডিয়ার চর্চার। মিলেছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া।

পাক ব্যাটসম্যান আহমেদ শেহজাদ মজা করে লিখেছেন, “খুব সুন্দর দেখাচ্ছে আপনাকে সাকি ভাই। দারুণ লাগছে।” কেউ কেউ সমালোচনা করলেও অনেকে প্রশংসা করে বলেছেন, মানুষের মুখে হাসি ফোটানোর জন্য ভাল উদ্যোগ নিয়েছেন সাকলিন। মেয়ের এমন আবদার পূরণ করায় বাবা হিসেবেও প্রশংসা কুড়িয়েছেন তিনি। তবে এই প্রথম নয়, এর আগেও ২০১৫ সালে সাকলিনকে এভাবেই সুন্দরী রমণীতে পরিণত করেছিল তাঁর কন্যা।

[আরও পড়ুন: করোনাকে হারিয়ে বেঁচে থাকুক সোনার বাংলা, মানবিক উদ্যোগে শামিল পদ্মাপাড়ের ক্রিকেটাররা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement