১১ বৈশাখ  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২৫ এপ্রিল ২০১৯ 

Menu Logo নির্বাচন ‘১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও #IPL12 ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তিনি নির্বাচন কমিশনের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাস্যাডর। কর্ণাটকের চতুর্দিকে ছেয়ে রয়েছে তাঁরই পোস্টার। জনসাধারণকে ভোটমুখী করতে তিনিই প্রচারের মুখ। অথচ সেই রাহুল দ্রাবিড়ই কিনা এবার লোকসভা নির্বাচনে ভোট দিতে পারবেন না! না, ক্রিকেট বা কোচিং সংক্রান্ত কোনও কারণে তিনি সে সময় দেশের বাইরে থাকবেন এমনটা নয়। ভোটার তালিকা থেকেই বাদ পড়েছে ভারতের প্রাক্তন অধিনায়কের নাম!

অবাক করা কাণ্ডই বটে। একদিকে আমজনতাকে সচেতন করতে তাঁর ছবি, পোস্টার, ভিডিও ব্যবহার করা হচ্ছে, আর অন্যদিকে তাঁর নামই তালিকার বাইরে। কিন্তু কেন হল এমনটা? কমিশন সূত্রে খবর, মিস্টার ডিপেন্ডেবল আগে থাকতেন বেঙ্গালুরুর ইন্দিরানগরে। সেটিই তাঁর পৈত্রিক বাড়ি। যা ব্যাঙ্গালোর সেন্ট্রাল লোকসভা কেন্দ্রের আওতায় পড়ে। বর্তমানে পাকাপাকিভাবে তাঁর বাস মালেশ্বরম এলাকায়। যা ব্যাঙ্গালোর নর্থ কেন্দ্রের অন্তর্ভুক্ত। তিনি বাড়ি বদলানোর দিনকয়েক পরই রাহুলের নাম ভোটার তালিকা থেকে বাদ দেওয়ার জন্য সাত নম্বর ফর্ম জমা দিয়েছিলেন তাঁর ভাই বিজয় দ্রাবিড়। সেই মতো তাঁর নাম তালিকা থেকে কেটে দেয় কমিশন।

[আরও পড়ুন: কী আছে মোদির হেলিকপ্টার থেকে নামা কালো বাক্সে? প্রশ্ন তুলে কমিশনে কংগ্রেস]

নির্বাচনী নিয়ম আইন অনুযায়ী, নাম বাদ দেওয়ার পর নতুন করে নাম তুলতে ৬ নম্বর ফর্ম জমা দিতে হয়। কিন্তু দ্রাবিড়ের ক্ষেত্রে তা জমা পড়েনি বলেই দাবি কমিশনের। তা সত্ত্বেও তাঁকে ব্র্যান্ড অ্যাম্বাস্যাডর করার পরই বিষয়টি নিয়ে নড়েচড়ে বসেছিল কমিশন। ব্যাঙ্গালোর নর্থ কেন্দ্রটি যে মহকুমার অন্তর্গত, সেই মাথিকেড়ের মহকুমা তরফে জানানো হয়, তাদের আধিকারিকরা দ্রাবিড়ের নাম তোলার জন্য তাঁর নতুন বাড়িতে একাধিকবার গিয়েছিলেন। কিন্তু প্রতিবারই তাঁদের ফিরিয়ে দেওয়া হয়। বলা হয়, বাড়িতে ক্রিকেট তারকা নেই। ফলে শেষমেশ নাম তোলা যায়নি।

অর্থাৎ ঘুরিয়ে দ্রাবিড় ও তাঁর পরিবারের ঘাড়েই দোষ চাপিয়েছে কমিশন। তাঁদের তরফে সহযোগিতার অভাবের কারণেই যে নাম তোলা যায়নি, এমনটাই দাবি কমিশনের। কিন্তু কিংবদন্তি তারকা ভোট দিতে পারবেন না, এমন খবরে না-খুশ আমজনতা।

[আরও পড়ুন: চলতি আইপিএলে হারের হ্যাটট্রিক কেকেআরের, ইডেনে মহারণ জিতল চেন্নাই]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং