২১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  রবিবার ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রথম দিনেই বোঝা যাচ্ছিল কী হতে পারে ভারত বাংলাদেশ টেস্টের আগামীদিন। দ্বিতীয় দিনের শেষে ম্যাচের ছবিটা স্পষ্ট হয়ে গেল। সৌজন্যে মায়াঙ্ক,রাহানে, পূজারা, জাদেজার দুরন্ত ব্যাটিং। শেষ লগ্নে বাংলা টাইগারদের বেধড়ক মারধর করলেন উমেশ যাদবও।

ইন্দোরের পিচ রানে ভরা। সেখানে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা ধরাশায়ী হয়েছিলেন ভারতের পেস আক্রমনের সামনে। বাংলাদেশের সেই বোলিং আক্রমণ নেই। সাকিব না থাকায় স্পিন বিভাগও নড়বড়ে। আর কী চাই? পাটা পিচকে দারুণ কাজে লাগালেন ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা। স্কোরলাইন দেখলেই চিত্রটা পরিষ্কার হয়ে যাবে। মায়াঙ্ক আগরওয়াল ২৪৩, রাহানে ৮৬, জাদেজা ৬০ নট আউট, পূজারা ৫৩। অকৃতকার্য শুধু বিরাট ও রোহিত। শেষে এসে ধুমধড়াক্কা ব্যাট চালিয়ে দিয়েছেন উমেশ যাদবও। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে শেষ টেস্টের মতোই এগোচ্ছে তাঁর ইনিংস। ১০ বলে ২৫ রান করে ফেলেছেন তিনি। হাঁকিয়েছেন তিনটি ছক্কা, একটি চার। সবমিলিয়ে দিনের শেষে ভারতের রান ৬ উইকেট হারিয়ে ৪৯৩। দিনের শেষে ভারত এগিয়ে ৩৪৩ রানে।

[আরও পড়ুন :ইডেনে ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচে অতিথি হাসিনা, মেনুতে থাকছে ইলিশ?]

ম্যাচের তৃতীয় দিনে আশা করা যেতে পারে জাদেজার সেঞ্চুরি পর্যন্ত অপেক্ষা করবেন বিরাট। ততক্ষণে ভারতের লিড চারশো হয়ে যাবে। বাকিটা ভারতের দ্বিতীয় ইনিংসের বোলিং ও বাংলা টাইগারদের লড়াই উপর নির্ভরশীল। তবে আপাত দৃষ্টিতে ম্যাচ যে দ্বিতীয় দিনে সূর্য ঢলার সঙ্গেই ভারতের দিকে অনেকটাই ঢলে পড়েছে তা বলা যেতেই পারে। বাকিটা সময়ের অপেক্ষা। অপেক্ষা ইডেন গার্ডেনে ঐতিহাসিক পিঙ্ক টেস্টের।

প্রসঙ্গত, এই ম্যাচের শুরু থেকে ভারতের পাল্লাই ভারী ছিল। মায়াঙ্কের ইনিংসে বলা যেতে পারে দ্বিতীয় দিনেই ভারতের আয়ত্বে সিরিজের প্রথম টেস্ট। প্রথম দিন খেলা শুরু হওয়ার ঘণ্টা পাঁচেকের মধ্যে ১৫০ রানে গুটিয়ে গিয়েছিল বাংলাদেশের প্রথম ইনিংস। সৌজন্যে তিন ভারতীয় পেসার উমেশ যাদব, মহম্মদ শামি এবং ইশান্ত শর্মা। দুটি করে উইকেট তুলে নেন উমেশ ও ইশান্ত। তিনটি উইকেট ঝুলিতে ভরেন বাংলার পেসার শামি।

তবে শুধুই পেসাররা নন, জোড়া উইকেট তুলে নিয়ে নজির গড়েন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। হরভজন সিং এবং অনিল কুম্বলের পর তৃতীয় ভারতীয় স্পিনার হিসেবে ঘরের মাটিতে ২৫০-র বেশি উইকেটের মালিক হয়ে যান তিনি। ওইদিন অধিনায়ক মমিনুল হককে ৩৭ রানে প্যাভিলিয়নে ফেরাতেই বোলারদের এলিট তালিকায় ঢুকে পড়েন অশ্বিন। সাড়ে তিনশো উইকেট নিয়ে এই তালিকার শীর্ষে কুম্বলে। ঘরের মাঠে ২৬৫টি উইকেট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন ভাজ্জি। তিন নম্বর জায়গাটি পাকা করেছেন অশ্বিন।

[আরও পড়ুন :মারকুটে মায়াঙ্কের ডবল সেঞ্চুরিতে ছুটছে ভারত]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং