BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

নেটওয়ার্ক পেতে গাছে চড়তে হয়েছিল আইসিসির আম্পায়ারকে, ৩ মাসেই বদলে গেল সেই গ্রাম

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: July 15, 2020 1:30 pm|    Updated: July 15, 2020 1:37 pm

An Images

ছবি: প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আইসিসি (ICC) প্যানেল আম্পায়ার অনিল চৌধুরিকে (Anil Chaudhary) মনে আছে? মনে আছে, লকডাউনের সময় গ্রামের বাড়িতে ফোন নেটওয়ার্ক পেতে তাঁর ‘সংগ্রাম’? ভোলার কথা নয়! মাস তিনেকের পুরনো ঘটনা তো। তিন মাস আগে দেশে সবে যখন করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দিচ্ছে, ভারত বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ বাতিল হয়ে যাওয়ায় উত্তরপ্রদেশে নিজের গ্রাম ডাংরোলে চলে গিয়েছিলেন অনিল। ভেবেছিলেন, কয়েকটা দিন ছুটি কাটিয়ে দিল্লি ফিরে যাবেন। কিন্তু আইসিসি আম্পায়ার ভাবতে পারেননি যে, সেটাই তাঁকে এমন ভোগাবে! গ্রামে কোনও ফোন নেটওয়ার্ক ছিল না। ইন্টারনেট দূর অস্ত। ফোনের টাওয়ার পেতে গাছের উপরও চড়তে হয়েছিল অনিলকে! যে খবর দেশজুড়ে ছাপা হয়।মজার হল, সেই অনিলের জন্যই এবার সেই ডাংরোল গ্রাম মোবাইল থেকে ইন্টারনেট পরিষেবা, সবই পেয়ে গিয়েছে!

anil

পুরো ঘটনাটা কী? আসলে আইসিসি আম্পায়ারকে নেট সংযোগ পেতে গাছে চড়তে হচ্ছে শুনে এক মোবাইল সংস্থা অনিলের সঙ্গে যোগাযোগ করে। শুধু তাঁকে মোবাইল কিংবা নেট সংযোগ তারা দিয়ে যায়নি, গোটা ডাংরোল গ্রামে তারা ফোনের টাওয়ার বসিয়ে দিয়ে চলে যায়। যার পর অনিল এখন নিজের গ্রামে মহানায়ক! যিনি বলছেন, “আমার তো সুবিধে হয়েছেই। ভিডিও কল করতে আর দিল্লি ছুটতে হচ্ছে না। কিন্তু আমার গ্রামের হাজার হাজার লোকের যে লাভ হয়েছে, সেটাই আসল।”

[আরও পড়ুন: ললিত মোদির আমলের দুর্নীতি মামলায় জয়, ৮৫০ কোটি টাকা ‘ফেরত’ পাচ্ছে BCCI]

লকডাউনে গ্রামে বন্দি হয়ে ফোন নেটওয়ার্ক পাবেন না, ভাবতে পারেননি অনিল চৌধুরী। কিন্তু সেই ‘অভিশাপ’ যে এত বড় গ্রামবাসীর কাছে ‘আশীর্বাদ’ হয়ে দাঁড়াবে, সেটাও কি ভাবতে পেরেছিলেন? গ্রামবাসীরাও বেজায় খুশি। অনিল চৌধুরির দৌলতে তাঁরাও এখন থেকে নিজের ঘরে বসেই টাওয়ার পাবেন। ফোন, ইন্টারনেট সবই ব্যবহার করতে পারবেন। স্বাভাবিকভাবেই আইসিসির এই আম্পায়ারকে ধন্যধন্য করছেন তাঁরা। 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement