BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

স্বস্তিতে নাইটরা! BCCI কর্তাদের মধ্যস্থতায় কোয়ারেন্টাইন থেকে ছাড় পেল KKR

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: August 28, 2020 2:46 pm|    Updated: August 28, 2020 2:46 pm

An Images

ফাইল ছবি

রাজর্ষি গঙ্গোপাধ্যায়:‌ এক নয়, দুই নয়। বৃহস্পতিবার আবু ধাবির (Abu Dhabi) শেখের সঙ্গে ভারতীয় বোর্ড কর্তাদের একাধিক বৈঠক শেষে নিভৃতবাস বা কোয়ারেন্টাইন মুক্ত হল KKR! যার পর ঠিক হয়ে গেল, শুক্রবার থেকেই আবু ধাবির শেখ জায়েদ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ট্রেনিংয়ে নেমে পড়বে নাইট-বাহিনী। একই অবস্থা হয়েছিল মুম্বইয়ের ক্ষেত্রেও। পরিকল্পনার ভুলে ৭ দিন নয়, একেবারে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইন থাকতে হত দু’‌দলকে। শেষপর্যন্ত মুশকিল আসান করলেন বোর্ড কর্তারাই।

[আরও পড়ুন: বিদায়বেলায় বাংলার কোচেদের একহাত নিলেন দিন্দা, কোথায় খেলবেন পরের মরশুমে?]

পুরো ঘটনাটা কী?
দুবাই এবং আবু ধাবি আমিরশাহির অন্তর্ভুক্ত হলে কী হবে, দু’জায়গার নিভৃতবাস (কোয়ারেন্টাইন) নিয়মাবলী সম্পূর্ণ আলাদা। বিদেশ থেকে করোনা নেগেটিভ হয়ে দুবাই ঢুকলে ছ’দিনের কোয়ারেন্টাইন বাধ্যতামূলক। কিন্তু আবু ধাবিতে সেটা চোদ্দো দিন! আবু ধাবিতে ছাউনি ফেলা কেকেআর যা আগে জানত না (আবু ধাবিতে মুম্বইও উঠেছে)। গতকাল যা জানাজানি হওয়ার পর তীব্র শঙ্কা তৈরি হয় যে, তা হলে কি আরও আটটা দিন নিষ্ক্রিয় হয়ে ঘরে বসে থাকতে হবে? প্লাস, আবু ধাবি সীমান্তের করোনা নীতি। সে প্রদেশের ঢুকতে গেলে সীমান্তে ঝাড়া আড়াই-তিন ঘণ্টা সময় লেগে যাচ্ছে করোনা পরীক্ষায়। বলাবলি শুরু হয়ে যায়, তা হলে দুবাইয়ে খেলতে গেলে বা দুবাই থেকে কোনও টিম আবু ধাবি খেলতে এলে কী হবে? টিমগুলোকে কী ঘণ্টার পর ঘণ্টা আবু ধাবি সীমান্তে করোনা পরীক্ষা দিতে হবে?

[আরও পড়ুন: আগামী মরশুমে জুভেন্তাসেই থাকবেন রোনাল্ডো, যোগ দিতে পারেন সুয়ারেজ]

এমনিতেই ক্রিকেটাররা চার-পাঁচ মাস মাঠের বাইরে। কে কোন ‘শেপে’ আছেন, কেউ জানে না। সেখানে আরও একটা সপ্তাহ বসে কাটানো মানে দুবাইয়ে ছাউনি ফেলা টিমগুলোর চেয়ে প্রস্তুতিতে অনেকটাই পিছিয়ে যাওয়া। শোনা গেল, এ দিন বোর্ড যার পর সঙ্কটমোচনে নামে। আমিরশাহিতে উপস্থিত IPL গভর্নিং কাউন্সিল চেয়ারম্যান ব্রিজেশ প্যাটেল, হেমাঙ্গ আমিন– সবাই শেখের সঙ্গে বৈঠক করতে সোজা আবু ধাবি চলে যান। সেখানে দফায় দফায় বৈঠক শেষে জট কাটে। শোনা গেল, ম্যাচ ডে’র দিন আবু ধাবি সীমান্তে অত করোনা কড়াকড়ির মুখেও টিমগুলোকে আর পড়তে হবে না। শিথিল হয় নিভৃতাবাস নিয়মও। বাধ্যতামূলক চোদ্দো দিনের কোয়ারেন্টাইন পর্ব দুবাইয়ের মতো ছ’দিনেই নামিয়ে আনা হয়। অসমর্থিত সূত্রের খবর অনুযায়ী, ভারত সরকারকেও নাকি যোগাযোগ করা হয়।

রাতের দিকে কেকেআর CEO বেঙ্কি মাইসোর ‘সংবাদ প্রতিদিন’-কে বলে দিলেন, “শুক্রবার থেকে আমরা ট্রেনিংয়ে নামছি। কনফার্মড।” সে সব ঠিক আছে। মজার হল, আইপিএলকে সবাই মহানাটকীয় টুর্নামেন্ট বলে সবাই জানে। কিন্তু তার আগে যে এত নাটক লুকিয়ে থাকবে, কে জানত!

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement