BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১৩ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

বল হাতে আগুন ঝরাচ্ছেন ইশান্ত, গোলাপি টেস্টে ব্যাটিং বিপর্যয় অব্যাহত বাংলাদেশের

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: November 23, 2019 8:56 pm|    Updated: November 23, 2019 8:57 pm

An Images

বাংলাদেশ- ১০৬ ও ১৫২/৬ (মুশফিকুর ৫৯, ইশান্ত ৪/৩৯)
ভারত- ৩৪৭/৯ ডিক্লেয়ার (কোহলি ১৩৬)
সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ইডেনে গোলাপি টেস্ট ম্যাচের দ্বিতীয় দিনেও ব্যাটিং বিপর্যয় বাংলাদেশের। দ্বিতীয় দিনের শেষে দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশের স্কোর ১৫২। চলে গিয়েছে ছয়টি মূল্যবান উইকেট। ক্রিজে একা লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন মুশফিকুর রহিম (৫৯)। প্রথম ইনিংসের মতো দ্বিতীয় ইনিংসেও দুরন্ত বোলিং ইশান্ত শর্মার। তাঁর পেস অ্যাটাকের সামনে এদিনও অসহায় দেখাল বাংলা টাইগারদের। তিনি ৩৯ রান দিয়ে তুলে নিয়েছেন চারটি উইকেট। সবমিলিয়ে ঐতিহাসিক দিন-রাতের টেস্টে শোচনীয় অবস্থা বাংলাদেশের।

এদিন চোখধাঁধানো শতরান করেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। তিনি আউট হন ১৩৬ রানে। টেস্টের প্রথম দিন ৩২ রান করতেই নজির গড়েন বিরাট। প্রথম ভারত অধিনায়ক হিসেবে পাঁচ হাজার রানের মালিক হয়ে যান তিনি। বিশ্বের ষষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে এই কৃতিত্বের অধিকারী হন অধিনায়ক। যে তালিকার শীর্ষে দক্ষিণ আফ্রিকার গ্রেম স্মিথ। তাঁর সংগ্রহ ৮৬৫৯ রান। তাঁর পরেই দুই-তিন-চার ও পাঁচে রয়েছেন যথাক্রমে প্রাক্তন অজি তারকা অ্যালান বর্ডার (৬৬২৩), রিকি পন্টিং (৬৫৪২), ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তি ক্লাইভ লয়েড (৫২৩৩) এবং প্রাক্তন কিউয়ি ক্যাপ্টেন স্টিভেন ফ্লেমিং (৫১৫৬)। টেস্টে এই নিয়ে ২৭টি শতরান হয়ে গেল তাঁর। যার মধ্যে অধিনায়ক হিসেবে ২০টি। ক্যাপ্টেন হিসেবে ১৯টি সেঞ্চুরির মালিক প্রাক্তন অজি অধিনায়ক রিকি পন্টিংকেও টপকে গেলেন তিনি। তাছাড়া ভারতীয়দের মধ্যে পিংক বলে প্রথম শতরানের মালিকও হয়ে গেলেন তিনিই।

[আরও পড়ুন: ঐতিহাসিক গোলাপি টেস্টে বিরাট রাজ, সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে বিরল রেকর্ডের মালিক কোহলি]

তবে বিরাট আউট হতেই ধস নামে ভারতীয় ব্যাটি অর্ডারে। জাদেজা-ঋদ্ধিমানরা কেউই তেমন রান পাননি। ৩৪৭ রানে ৯ উইকেট হারানোর পর ইনিংস ডিক্লেয়ার করে দেন বিরাট। ২৪১ রানের লিড অতিক্রম করার জন্য ব্যাট করতে নামে বাংলাদেশ। কিন্তু শুরুতেই বিপর্যয় হয় তাদের। এক এক করে ওপেনাররা ইশান্তের শিকার হন। মুশফিকুর ও মাহমুদুল্লাহ তারপর বিপর্যয় ঠেকানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু বেশিক্ষণ তাঁরা প্রতিরোধ গড়তে পারেননি। মাহমুদুল্লাহ হ্যামস্ট্রিংয়ের কারণে মাঠ ছাড়তে বাধ্য হন। তাঁর বদলে ব্যাট করতে নামেন লিটন দাসের কনকাসন সাব মেহেদি হাসান। তিনিও দ্রুত আউট হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন। ইনিংসের ৩৩তম ওভারে তাইজুল ইসলাম আউট হতেই এদিনের খেলা শেষ হয়। দিনের শেষে ৬ উইকেট খুইয়ে ১৫২ রানে ধুঁকছে বাংলাদেশ। তৃতীয় দিনে তারা কতক্ষণ ক্রিজে টিকতে পারে এখন সেটাই দেখার।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement