BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বিদেশেও জনপ্রিয় ভারতীয় তারকারা, কপিল-শচীন-কোহলির নামে হল রাস্তার নামকরণ

Published by: Sulaya Singha |    Posted: June 16, 2020 7:10 pm|    Updated: June 16, 2020 7:10 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিশ্বের নানা প্রান্তে তাঁদের অনুরাগী রয়েছেন। তাই তো দুনিয়ার যে বাইশ গজেই তাঁরা নেমেছেন, হাততালি আর ভালবাসা কুড়িয়েছেন। কথা হচ্ছে ভারতীয় ক্রিকেটের তিন কিংবদন্তি কপিল দেব, শচীন তেণ্ডুলকর এবং বিরাট কোহলির। আর এবার এই তিন তারকার নামে রাস্তার নামকরণ করা হল। তাও আবার বিদেশের মাটিতে।

বিশ্বাস না হলে আবার পড়ুন। একটি হিন্দি ওয়েবসাইটের খবর অনুযায়ী, তিন ভারতীয় ক্রিকেটারের পাশাপাশি এই তালিকায় রয়েছেন প্রাক্তন অজি অধিনায়ক স্টিভ ওয়া এবং দক্ষিণ আফ্রিকার প্রাক্তন অলরাউন্ডার জ্যাক ক্যালিস। এঁদের প্রত্যেকের নামে মেলবোর্নের রাস্তার নামকরণ হয়েছে। এই শহরের পশ্চিমাঞ্চলের রকব্যাংক এলাকার রাস্তাগুলি চেনা যাবে সমস্ত কিংবদন্তিদের নামে। তা কীরকম সেসব রাস্তার নাম?

[আরও পড়ুন: ফের কলকাতার ‘দিল’ জিতলেন শাহরুখ, কলেজ স্ট্রিটের বইপাড়া পুনরুদ্ধারে অর্থ দিল কেকেআর]

মাস্টার ব্লাস্টারের নামাঙ্কিত পথের নাম ‘তেণ্ডুলকর ড্রাইভ’। প্রাক্তন ও বর্তমান ভারত অধিনায়ক কপিল দেব ও কোহলির নামাঙ্কিত রাস্তা দুটি হল ‘কোহলি ক্রেসেন্ট’ এবং ‘দেব টেরেস’। অর্থাৎ মেলবোর্নের এই সব রাস্তার উপর দিয়ে হেঁটে গেলে এক মুহূর্তের জন্য মনে হতে পারেন যে ভারতেই রয়েছেন। ক্রিকেটপ্রেমীদের জন্য নিঃসন্দেহে এই এলাকা অত্যন্ত আকর্ষণীয়। কারণ এখানেই স্টিভের নামে তৈরি হয়েছে ‘ওয়া স্ট্রিট’, ক্যালিসের নামে ‘ক্যালিস ওয়ে’, কিউয়ি কিংবদন্তি স্যর রিচার্ড হ্যাডলির নামে রয়েছে ‘হ্যাডলি স্ট্রিট’। বাদ যাননি প্রাক্তন পাক অধিনায়ক ওয়াসিম আক্রমও। তাঁর নামাঙ্কিত রোডটির নাম ‘আক্রম ওয়ে’।

কিন্তু হঠাৎ একইস্থানে এতজন ক্রিকেটারের নামে রাস্তা তৈরির কারণটা কী? জানা গিয়েছে, সেখানে বেশ কিছু নতুন বিল্ডিং তৈরি হচ্ছে। আর তার সঙ্গে যুক্ত ব্যবসায়ীদের উদ্যোগেই এভাবে সাজানো হচ্ছে এলাকা। বিল্ডিং তৈরির ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত এক ব্যক্তির কথায়, “এতে ক্রেতারা এই জায়গার প্রতি অনেক বেশি আকৃষ্ট হবেন। ভাবুন না ‘কোহলি ক্রেসেন্ট’ কিংবা ‘তেণ্ডুলকর ড্রাইভ’-এ কে না থাকতে চাইবেন। বলা যায় না, অস্ট্রেলিয়ায় এসে নিজেও হয়তো এই রাস্তা ঘুরে দেখে যেতে পারেন কোহলি।”

[আরও পড়ুন: এ বছর টি-২০ বিশ্বকাপ হওয়া কার্যত ‘অসম্ভব’, জানিয়ে দিল ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া]

অস্ট্রেলিয়ায় সাধারণত বিল্ডাররা কাউন্সিলারের অফিসে রাস্তার নামকরণের প্রস্তাব জমা দেন। তারপর সবদিক বিচার করে প্রস্তাবে সম্মতি দেওয়া হয়। আর এই নামগুলির জন্য সবুজ সংকেত পেতে যে কোনও সমস্যা হয়নি, তা বলাই বাহুল্য।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement