১ মাঘ  ১৪২৫  বুধবার ১৬ জানুয়ারি ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফিরে দেখা ২০১৮ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চূড়ান্ত সফল কোচিং কেরিয়ারের জন্য দ্রোণাচার্য সম্মানে ভূষিত হয়েছিলেন রমাকান্ত আচরেকর। অথচ শেষযাত্রায় রাষ্ট্রীয় সম্মান থেকে বঞ্চিতই রইলেন তিনি। মাস্টার ব্লাস্টারের গুরুর প্রতি এমন রাজ্য সরকারের এমন উদাসীন আচরণের বিরুদ্ধে এবার সরব শিব সেনা।

যাঁর হাত ধরে ব্যাট ধরা শিখেছিলেন শেষ বিদায়ে তাঁরই মরদেহে কাঁধ দেন শচীন তেণ্ডুলকর। চোখের জলে বিদায় জানান গুরুকে। বৃহস্পতিবার মুম্বইয়ের রাজপথ সাক্ষী ছিল মাস্টার ব্লাস্টারের বুক ফাটা কান্নার। দেহ বয়ে নিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি জ্যেষ্ঠপুত্রের মতোই শ্মশানে যাবতীয় রীতিনীতিও পালন করলেন শচীন। মুম্বইয়ের শিবাজি পার্কেই সম্পন্ন হয় আচরেকরের শেষকৃত্য। হাজির ছিলেন মুম্বই ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের কর্তারা। ছিলেন শিব সেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরে। আচরেকরকে গার্ড অব অনার দেয় স্থানীয় ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের খুদে ছাত্ররা। কিন্তু পদ্মশ্রী পুরস্কারে ভূষিত কিংবদন্তি কোচকে রাষ্ট্রীয় সম্মান জানানোর কোনও ব্যবস্থা করেনি মহারাষ্ট্র সরকার। পরে ড্যামেজ কন্ট্রোল করতে সরকারের তরফে ভুল স্বীকার করে নেন আবাসন মন্ত্রী প্রকাশ মেহতা। তাঁর দাবি, ভুল বোঝাবুঝির কারণেই এমনটা হয়েছে। যা একেবারেই কাম্য ছিল না। কেন এমন হল, তা খতিয়ে দেখা হবে। কিন্তু বিষয়টিকে এত সহজে অতীত হতে দিতে নারাজ শিব সেনা। বৃহস্পতিবার দলের নেতা সঞ্জয় রাউত তাই শচীনকে বিশেষ পরামর্শ দিয়েছেন।


মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়ণবিসকে একহাত নিয়ে টুইটারে সঞ্জয় রাউতের প্রশ্ন, “পদ্মশ্রী ও দ্রোণাচার্য পুরস্কারপ্রাপ্ত আচরেকরের শেষকৃত্যে মহারাষ্ট্র সরকার কেন রাষ্ট্রীয় সম্মান দিল না? রমাকান্তের প্রতি বিন্দুমাত্র সম্মান জানায়নি প্রশাসন। শচীন তেণ্ডুলকরের উচিত সরকারের সমস্ত অনুষ্ঠান বয়কট করা।” এতে সরকারের গাফিলতি এবং দায়িত্বজ্ঞানহীনতাই প্রকাশ পেয়েছে বলে মত শিব সেনার। তাই মাস্টার ব্লাস্টারকে পরামর্শ, সরকারের কোনও আমন্ত্রণে যেন সাড়া না দেন আচরেকরের প্রিয় শিষ্য।

[চোখের জলে গুরু আচরেকরকে বিদায় দিলেন শচীন, শেষযাত্রায় মানুষের ঢল]

শচীন তেণ্ডুলকরের সঙ্গে ওতপ্রতভাবে জড়িয়ে গিয়েছিল রমাকান্ত আচরেকরের নাম। কোটির ভিড়ে ক্রিকেট ঈশ্বরকে খুঁজে বের করার কাজটা করেছিল আচরেকরের বিচক্ষনতাই। তাঁর প্রয়াণে তাই বড্ড একা হয়ে গিয়েছেন লিটল মাস্টার। টুইটারে লেখেন, “ক্রিকেটের অ আ ক খ শিখেছিলাম আপনার থেকে। গত মাসেও আপনার সঙ্গে অনেকটা সময় কাটিয়েছিলাম। স্যার, স্বর্গ আরও ধনী হল আপনাকে পেয়ে। আপনার জীবনের অংশ হয়ে উঠতে পেরেছি। অনেক ধন্যবাদ।”

[অজি বোলারদের নিয়ে ছেলেখেলা করলেন ‘বেবিসিটার’ পন্থ, সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে গড়লেন ইতিহাস]

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং