৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘ফর্মে থাকাকালীনও মেলেনি সুযোগ’, একযোগে নির্বাচকদের তোপ পাঠান-রায়নার

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: May 11, 2020 1:21 pm|    Updated: May 11, 2020 2:17 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  তাঁর অভিযোগ, মাত্র তিরিশ বছর বয়সেই তাঁকে ‘বুদ্ধ’ ঘোষণা করে দিয়েছিলেন জাতীয় নির্বাচকরা। অভিযোগ, নির্বাচকরা কেউ তাঁর সঙ্গে ঠিক করে যোগাযোগ করেননি। করলে আজও তিরি অবসর ভেঙে ফিরে আসতে রাজি। অভিযোগ, অস্ট্রেলিয়া সহ অন্যান্য দেশে যা হয়, ভারতে তা হয় না। তিরিশেরই ‘বুড়োর’ তকমা লাগিয়ে দেওয়া হয়। এবং এ সব অভিযোগনামা যাঁর, তিনি প্রাক্তন ভারতীয় পেসার ইরফান পাঠান (Irfan Pathan)। সুরেশ রায়নার সঙ্গে ইনস্টাগ্রাম লাইভে যিনি নির্বাচকদের বিরুদ্ধে যাবতীয় ক্ষোভ উগরে দিলেন।

“এক একটা দেশে এক এক রকম ছবি দেখি। মাইকেল হাসি অস্ট্রেলিয়ার হয়ে অভিষেক করেছিল উনত্রিশ বছর বয়সে। কিন্তু ভারতে তিরিশ হলেই আপনি বুড়ো। আমাকে অন্তত তাই ঘোষণা করে দেওয়া হয়েছিল। নির্বাচকরাই আমাকে বুড়ো ঘোষণা করে দিয়েছিলেন। আমার মতে, ক্রিকেটার যত দিন ফিট থাকবে, ততদিন তাকে সুযোগ দেওয়া উচিত। এ সব ক্ষেত্রে যোগাযোগটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। আমাকে যদি কোনও নির্বাচক এসে বলে যে, ইরফান তোমাকে এক বছর সময় দিচ্ছি, তুমি আবার জাতীয় টিমে খেলবে, সব আমি ছেড়ে দেব। কিন্তু সেটা বলবে কে?” রায়নার কাছে ক্ষুব্ধ ভাবে বলে দিয়েছেন জুনিয়র পাঠান।

[আরও পড়ুন: শ্রীলঙ্কার পর আইপিএল আয়োজনের প্রস্তাব দিল আরব আমিরশাহী, কী প্রতিক্রিয়া বিসিসিআইয়ের?]

সুরেশ রায়না (Suresh Raina)– ২০১৮ সালে ইংল্যান্ড সফরের পর কখনও আর জাতীয় দলে ডাক পাননি। তিনি আবার কাঠগড়ায় তুলেছেন প্রাক্তন জাতীয় নির্বাচক প্রধান এমএসকে প্রসাদকে (MSK Prasad)। “লোকে সব ভুলে যায়। ঘরোয়া ক্রিকেটে পারফরম্যান্স, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পারফরম্যান্স, আইপিএলে দ্রুততম সেঞ্চুরি, সব ভুলে যায়। ভেতরে যে যন্ত্রণাটা হয়, সেটা কাকে বলব আর? কিন্তু একজন ক্রিকেটারই তো আর একজন ক্রিকেটারের দুঃখ-কষ্ট বোঝে। আমি জানি না এখন কী বলব। দুর্ভাগ্য স্রেফ। কিন্তু এমএসকে প্রসাদ আমার সঙ্গে কোনও কথাই বলেনি। আমার কাছে তার প্রমাণও আছে,” বলে দিয়েছেন বিমর্ষ রায়না।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement