৯ ফাল্গুন  ১৪২৬  শনিবার ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

ভারত: ৩৪০/৬ (ধাওয়ান-৯৬, রাহুল-৮০, কোহলি-৭৮)
অস্ট্রেলিয়া: ৩০৪/১০ (স্মিথ-৯৮, মার্নাস-৪৬)
৩৬ রানে জয়ী ভারত

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অ্যাডাম জাম্পা বনাম বিরাট কোহলি। শিখর ধাওয়ান বনাম স্টিভ স্মিথ। কুলদীপ যাদব বনাম অজি ব্যাটিং অর্ডার। রাজকোটের বাইশ গজ সাক্ষী রইল একাধিক ঘটনার। তবে দিনের শেষে দেশবাসীকে সবচেয়ে বেশি স্বস্তি দিল টিম ইন্ডিয়ার দুর্দান্ত জয়। ওয়াংখেড়েতে হারের প্রতিশোধ যেন সুদে-আলসে উসুল করে নিলেন বিরাট কোহলিরা।

করেঙ্গে ইয়া মরেঙ্গে। ঠিক এমন মনোভাব নিয়েই এদিন মাঠে নেমেছিল ভারত। টসে হারকে মনের কোণে জায়গা দেননি কেউই। লক্ষ্যে স্থির ছিলেন ব্যাটসম্যানরা। কারণ প্রত্যেকেই জানতেন, এদিন হার মানেই ঘরের মাঠে সিরিজ হাতছাড়া। তাই যেনতেন প্রকারে সিরিজে সমতা ফেরাতেই হবে। তবে কোনওক্রমে নয়, বেশ দম্ভের সঙ্গেই জিতল কোহলি অ্যান্ড কোং। শুক্রবার রাজকোটে টপ থেকে মিডল অর্ডার- প্রত্যেকেই নিজেকে উজার করে দিলেন। মাত্র চারটে রানের জন্য সেঞ্চুরি হাতছাড়া করলেন ধাওয়ান। গোদের উপর বিষফোঁড়ার মতোই আবার পাঁজরে চোট পেলেন। ধাওয়ান যেখানে শতরান করতে পারলেন না, সেখানেই কি সেঞ্চুরি হাঁকাবেন স্মিথ? অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস দেখতে দেখতে এ প্রশ্ন মনে জেগেছিল ভারতীয় সমর্থকদের। কিন্তু কুলদীপ যাদব ৯৮ রানে স্মিথকে ফিরিয়ে ধাওয়ানের সেই আউটেরই যেন বদলা নিলেন। শুধু তাই নয়, এদিন জোড়া উইকেট তুলে নিয়ে ওয়ানডে-তে একশোটি উইকেটের মালিকও হয়ে গেলেন তিনি।

[আরও পড়ুন: প্রতিপক্ষকে উড়িয়ে দিয়ে হোবার্ট ইন্টারন্যাশনাল কাপের ফাইনালে সানিয়া]

৪২ রান করে আবার শচীন-সৌরভ ও শেহওয়াগের পর চতুর্থ ভারতীয় ওপেনার হিসেবে সাত হাজার রানের গণ্ডি পেরোলেন রোহিত শর্মা। দুই ওপেনারের মতোই জ্বলে উঠলেন ক্যাপ্টেন কোহলিও। তাঁর চোখ ধাঁধানো ইনিংসের পাশাপাশি এদিন চর্চায় উঠে এল জাম্পা-কোহলি দ্বন্দ্ব। আরও একবার কোহলিকে প্যাভিলিয়নের রাস্তা দেখিয়ে রেকর্ড গড়লেন অজি স্পিনার। সব ফরম্যাটে মিলিয়ে এই নিয়ে মোট সাতবার কোহলির উইকেট তুলে নিয়ে রেকর্ড গড়লেন তিনি। বিশ্বের একমাত্র বোলার যিনি কোহলিকে এতবার আউট করেছেন।

শ্রেয়াস আর মণীশ পাণ্ডে ব্যর্থ হলেও রাজকোট চেটেপুটে উপভোগ করল কেএল রাহুল শো। তাঁর চওড়া ব্যাটেই রানের পাহাড়ে পৌঁছে যায় ভারত। স্মিথ-মার্নাসের চেষ্টাতেও যে লক্ষ্যে পৌঁছতে পারল অস্ট্রেলিয়া। হারের পরও যে আত্মবিশ্বাসে ভর করে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ানো সম্ভব, ওয়ানডে-তে বিশ্বের দ্বিতীয় দল সেটাই প্রমাণ করে দিল। 

[আরও পড়ুন: রহস্যে মোড়া পোস্ট সঞ্জু স্যামসনের, তোলপাড় সোশ্যাল মিডিয়া]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং