১৪ চৈত্র  ১৪২৬  শনিবার ২৮ মার্চ ২০২০ 

Advertisement

গত বছরের হত্যালীলার স্মৃতি টাটকা, ক্রাইস্টচার্চে বিরাটদের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: February 26, 2020 4:32 pm|    Updated: February 26, 2020 4:32 pm

An Images

দেবাশিস সেন, ক্রাইস্টচার্চ: ১৫ মার্চ ২০১৯। সেই মর্মান্তিক ঘটনা এখনও টাটকা মসজিদের কেয়ারটেকারের…। সেদিনের কথা বলতে গিয়ে কেঁদে ফেললেন তিনি। চোখে, মুখে, ভয়ের ছবি। ঘটনাটি যেন একটু আগেই ঘটল। বাংলাদেশ ক্রিকেট টিম মসজিদে আসার মিনিট খানেক আগে সব কিছু লন্ডভন্ড। দুষ্কৃতীদের গুলিতে প্রান গেল ৪৩ জনের।

কী হয়েছিল? সে কথা বলতে তিনি বলেন, ‘জানি না, কেন এমন হয়েছিল! দুপুরে বাংলাদেশ ক্রিকেট টিম প্র্যাকটিস করতে মসজিদের উলটোদিকে মাঠে আসবে। তার আগে ওদের এখানে আসার কথা। কিন্তু ওরা আসার মিনিট খানেক আগে দুষ্কৃতীদের গুলিতে সব কিছু ছারখার। সামনের গেট দিয়ে ওরা ঢুকল। তাই ইমাম ছাড়া কেউ দেখতে পান নি। তারপর গুলির আওয়াজ। মানুষের আর্তনাদ। এক একজন করে মাটিতে পড়ে যাচ্ছেন। মুখে রুমাল চেপে নিজেকে আটকাই। আল্লা সহায় ছিলেন বলে আমার কিছু হল না। বেঁচে গেলাম। না হলে আজ আমার এখানে থাকার কথা নয়। চোখ বুজলে এখনও সেদিনের ছবি দেখতে পাই। এই যে আপনার সঙ্গে কথা বলছি, চোখে সে সব ছবি আবার চলে আসছে। উফ! কী ভয়ানক। এর ব্যাখ্যা করা যায় না।’

[আরও পড়ুন: প্রথম ম্যাচে হারের পর দলে পরিবর্তনের সম্ভাবনা, অভিষেক হতে পারে শুভমনের]

সেই ঘটনার পর মসজিদের চারপাশে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছিল। তিন মাস আগেও বন্দুকধারী জওয়ানরা ছিলেন। কিন্তু এখন সিসিটিভি ছাড়া কিছুই নেই। কেন সরিয়ে নেওয়া হল নিরাপত্তাকর্মী? না, তার উত্তর মিলল না। ভারতীয় দল মাঠে আসার আগে সেদিন আবার ফিরে এলে কী হবে, কেউ জানেন না। দলের নিরাপত্তাকর্মী বল্‌তে গেলে কেউ নেই। নিউজিল্যান্ড বোর্ড তেমন কিছু করেছে বলে শোনাও গেল না। কাল, বৃহস্পতিবার কোহলিরা প্র্যাকটিসে নামবেন। তারপর হয়তো এ নিয়ে কথা উঠতে পারে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement