৫ আশ্বিন  ১৪২৬  সোমবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সীমিত ওভারের ক্রিকেটে তাঁর পারফরম্যান্স নিয়ে কোনও কথা হবে না। চলতি বছর বিশ্বকাপে সিরিজের সর্বোচ্চ রানের মালিক হওয়াই তাঁর ফর্মের আদর্শ দৃষ্টান্ত। কিন্তু তাঁর টেস্ট কেরিয়ার কি শেষের মুখে? ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে যেভাবে মাথাচারা দিয়ে উঠে এলেন হনুমা বিহারী, তাতে সিঁদুরে মেঘ দেখছে ক্রিকেট মহলের একাংশ।

[আরও পড়ুন: এখনই চুক্তি বাতিল নয়, বধূ নির্যাতন মামলায় শামির পাশে বিসিসিআই]

টেস্ট সিরিজ শুরুর আগে ভারতের প্রথম একাদশ নিয়ে জল্পনা ছিল তুঙ্গে। উইকেটের পিছনে কে দাঁড়াবেন? ঋষভ পন্থ নাকি ঋদ্ধিমান সাহা, এনিয়ে বিস্তর জলঘোলা চলছিল। কিন্তু রোহিতকে যে বিরাট কোহলি প্রথম একাদশে রাখবেন না, এমনটা অনেকেরই ভাবনার বাইরে ছিল। রোহিতকে বসিয়ে বিহারীকে নেওয়ায় ক্যাপ্টেন কোহলির বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছিলেন ক্রিকেটপ্রেমীরা। কিন্তু অধিনায়কের মর্যাদা রেখে দুই টেস্টেই নজর কাড়েন বিহারী। প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে ৯৩ রান করেন। আবার দ্বিতীয় টেস্টের শুরুতেই সেঞ্চুরি হাঁকান। তাঁর এই উত্থানই যেন রোহিতের প্রথম এগারোয় ফেরার রাস্তা আরও সংকীর্ণ করে দিল।

বিরাট কোহলি এবং রোহিত শর্মার মধ্যে অন্তর্দ্বন্দ্ব এখন আর ঢাকা চাপা নেই। কোহলিকে সোশ্যাল মিডিয়াতেও ফলো করেন না রোহিত। তাছাড়া টিম ম্যানেজমেন্টে রোহিত থেকেও যে নেই, বিশ্বকাপ চলাকালীন সে বিষয়টিও স্পষ্ট হয়ে গিয়েছিল। মুখ ফসকে সহ-অধিনায়ক রোহিত বলে ফেলেছিলেন, দলে চার নম্বরে কে খেলবে, তা টিম ম্যানেজমেন্টই ঠিক করবে। এমন পরিস্থিতিতে বিহারীর ভাল পারফরম্যান্স আরও তাৎপর্যপূর্ণ হয়ে উঠেছে। কারণ তিনি ভাল খেললে তাঁর সুযোগ পাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি থাকবে। টুইটারেও এসব নিয়েই শুরু হয়েছে আলোচনা। অনেকেই মনে করছেন, বিহারীই হয়তো রোহিতের টেস্ট কেরিয়ারের কফিনে শেষ পেরেকটি পুঁতে দিলেন। অনেকে আবার বলছেন, খরগোস ও কচ্ছপের দৌড়ের মতোই রোহিতকে ছাপিয়ে ধীরে অথচ দৃঢ় পদক্ষেপেই বাজিমাত করলেন বিহারী। তবে এখনই এসব নিয়ে ভাবছেন না রোহিত। দলের টেস্ট সিরিজ জয়ে তিনি উচ্ছ্বসিত। জামাইকায় যেভাবে তিনি দুই জামাইকান ফ্যানের সঙ্গে সময় কাটালেন, তাতে বেশ চনমনে মেজাজেই দেখাল তাঁকে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং