BREAKING NEWS

১৬ ফাল্গুন  ১৪২৭  সোমবার ১ মার্চ ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

বার্ষিক সাধারণ সভায় সদস্য-সমর্থকদের দুশ্চিন্তা দূর করলেন সবুজ-মেরুন কর্তারা

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: February 14, 2021 10:53 am|    Updated: February 14, 2021 10:53 am

An Images

গুরবক্স সিংয়ের হাতে তুলে দেওয়া হল মোহনবাগান-রত্ন।

স্টাফ রিপোর্টার: ঘণ্টা দেড়েকের বার্ষিক সাধারণ সভা। আমফানে কিছুটা ক্ষতিগ্রস্ত ক্লাব—তাঁবু নতুন রূপে সাজানোর পরিকল্পনা থেকে ক্লাবকে আরও আধুনিকতায় মুড়ে দেওয়ার ঘোষণা ততক্ষণে করে দিয়েছেন মোহনবাগান (Mohun Bagan) সচিব সৃঞ্জয় বোস ও অর্থসচিব দেবাশিস দত্ত। ক্লাব তাঁবু সাজিয়ে তোলার দায়িত্ব নিয়েছেন বিখ্যাত আর্কিটেক্ট আবীন চৌধুরি। সেটাও আবার মাত্র এক টাকার পারিশ্রমিকে। কর্তারা বলে দিয়েছেন ঐতিহ্য আর আধুনিকতার মিশেলে ক্লাব তাঁবু এমনভাবে তৈরি করা হবে, যা ‘টক অফ দ্য টাউন’ হয়ে যাবে। আগামী ২৯ জুলাই অর্থাৎ মোহনবাগান দিবসে নতুন ক্লাব—তাঁবুর উদ্বোধন করা হবে। এই নিয়ে সেনাবাহিনীর সঙ্গে কথাবার্তাও শুরু করে দিয়েছেন কর্তারা।

শুধু ক্লাব তাঁবু সাজিয়ে তোলা নয়, সদস্যদের সুবিধার জন্য আগামী বছর থেকে অনলাইনে সদস্যপদ নবীকরণের ঘোষণাও করে দেন অর্থসচিব। সভায় যথারীতি উঠে এল গত দু’বছরের অডিট রিপোর্ট। যেখানে দেখানো হল, ক্লাবে আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ কমছে। অর্থসচিব ঘোষণা করে দিলেন, আগামী কয়েক বছরের মধ্যে ক্লাব লাভের অঙ্ক দেখতে পাবে। শেষে আবার প্রাক্তন অলিম্পিয়ান গুরবক্স সিংয়ের হাতে মোহনবাগান—রত্ন তুলে দেওয়া হয়। এবারের মোহনবাগন—রত্ন দু’জনকে দেওয়া হয়েছে। পলাশ নন্দী আর গুরবক্স সিং। এবার করোনার জন্য মোহনবাগান দিবসে (Mohun Bagan Day) কোনও অনুষ্ঠান করা সম্ভব হয়নি। পলাশ নন্দীকে মোহনবাগান দিবসের দিনই মোহনবাগান-রত্ন দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু সেদিন গুরবক্স সিং শহরে না থাকায় তাঁকে মোহনবাগান-রত্ন দেওয়া সম্ভব হয়নি। এদিন তাঁর হাতে মোহনবাগান-রত্ন তুলে দেওয়া হয়। মঞ্চে তাঁর হাতে রত্ন—সহ এক লক্ষ টাকার চেক তুলে দেন সচিব সৃঞ্জয় বোস। তিনি ঘোষণা করেন, রাজ্য হকি সংস্থা যেদিন অ্যাসট্রোটার্ফ চালু করবে সে দিন থেকে সবুজ—মেরুন জার্সি গায়ে হকি দল নেমে পড়বে মাঠে।

[আরও পড়ুন: দ্বিতীয় টেস্টে দুরন্ত শতরানে একাধিক নজির রোহিতের, বিরাটের ঝুলিতে ‘লজ্জা’র রেকর্ড]

ঘণ্টা দেড়েকের সভার মোটামুটি শান্তিপূর্ণভাবেই সমাপ্তি ঘটে। মাঝে অবশ্য কয়েকজন সদস্য এটিকে মোহনবাগান থেকে এটিকে নামটা সরিয়ে দেওয়ার দাবি জানাতে থাকে। ক্লাব তাঁবুর বাইরে তখন কয়েকটা ফ্যানস ক্লাব শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ দেখাচ্ছে। তাদেরও একটাই দাবি—‘রিমুভ এটিকে।’ তবে তাঁরা একটা জিনিস বুঝিয়ে দেন, সঞ্জীব গোয়েঙ্কা যে সবুজ—মেরুনে বিনিয়োগ করেছেন, তা নিয়ে তাঁদের কোনওরকম সমস্যা নেই। সমস্যা শুধু এটিকে নামটা নিয়েই। এরপরই যাবতীয় প্রশ্নের উত্তর দিলেন সচিব সৃঞ্জয় বোস। সৃঞ্জয় বলেন, “যখন ম্যাকডোয়েলের সঙ্গে চুক্তি হয়েছিল, তখন অনেকে বলেছিলেন যে মায়ের নামের আগে মদের নাম বসানা হচ্ছে। অনেকেই এরকম বিরোধিতা করেছিলেন। কিন্তু আমরা সফল হয়েছিলাম। ক্লাব অনেক ট্রফি জেতে। প্রচুর সাফল্য পায়। আর কেউ কিন্তু পরবর্তীকালে ম্যাকডোয়েল মোহনবাগান বলতেন না। সবাই মোহনবাগানই বলতেন।”

তিনি স্বীকার করে নেন প্রথমদিকে কিছু ভুলভ্রান্তি হয়েছিল। কিন্তু সেগুলো দ্রুত সংশোধন করে নেওয়া হয়। একইসঙ্গে তিনি এটাও বলে দেন যে, ইনভেস্টরের প্রতি সম্মান জানাতে হবে। তিনি বেঙ্গলুরু এফসির প্রসঙ্গও টেনে নিয়ে আসেন। বেঙ্গালুরুর তরফ থেকে কয়েকদিন আগেই জানানো হয়, আইএসএল খেলতে গিয়ে তারাও আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছে। সৃঞ্জয় বলেন, “জিন্দালদের মতো কর্পোরেট সংস্থাও বলছে, আইএসএলে টিম চালাতে গিয়ে তাদেরও আর্থিক ক্ষতির সামনে পড়তে হচ্ছে। আমি সবার উদ্দেশে বলব সবাই একটু ধৈর্য্য ধরুন। প্রথমদিকে একটু-আধটু ভুল হচ্ছিল ঠিকই। কিন্তু সেগুলো শুধরে নেওয়া হয়েছে। আইএসএলের বিজ্ঞাপন নিয়ে একটা সমস্যা তৈরি হয়েছিল। কিন্তু সেটা দ্রুত ঠিক করা হয়।”

এসসি ইস্টবেঙ্গলের নাম উল্লেখ না করে সৃঞ্জয় বুঝিয়ে দেন, পাশের ক্লাব সমস্ত খেলার স্বত্ব বিক্রি করতে বাধ্য হয়েছে। যা মোহনবাগান করেনি। সৃঞ্জয় বলেন, “এটিকে আসলে কোনও ফুটবল ক্লাব নয়। তারা স্পেনের অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ দলের সঙ্গে যুক্ত হয়ে এটিকে নামকরণ করেছিল। কোটি কোটি টাকা যারা খরচ করছে তারা নিজেদের অস্তিত্ব লোপ করে দেবে তা কখনও হয় না। প্রথম প্রথম ভুল বেশি হচ্ছিল। এখন আর হচ্ছে না। কোচ হাবাস এক—আধদিন ভুল করে শুধু এটিকে হয়তো বলে ফেলেছেন। কিন্তু প্রথম লেগে ডার্বির পর রয় কৃষ্ণ সাক্ষাৎকার দেওয়ার পর নিজে জয় মোহনবাগান বলেছে।” ন্যাসডাকে মোহনবাগানের নাম তুলে ধরার কথা উল্লেখ করে ক্লাব সচিব বলেন, “সদস্য গৌরব রায় ক্লাবের নাম ন্যাসডাকে তুলে ধরার জন্য যেভাবে এগিয়ে এসেছেন সে রকমভাবে কতজন সমর্থক বা সদস্য ক্লাবের আর্থিক সমস্যা মেটাতে সাহায্য করেছেন?

[আরও পড়ুন: আইপিএলের ইতিহাসে সর্বোচ্চ দামে বিক্রি হতে পারেন ইংল্যান্ডের এই তারকা]

আইএসএলে এটিকে মোহনবাগান এখন গ্রুপ লিগে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। শীর্ষে থাকা মুম্বই সিটি এফসির সঙ্গে মাত্র এক পয়েন্টের পার্থক্য। এটিকে মোহনবাগানের সামনে এখন লিগ শীর্ষে থেকে পরের এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগে যোগ্যতা অর্জনের সুযোগ রয়েছে। ফলে সচিব প্রত্যেক সদস্য-সমর্থকদের কাছে আবেদন করেন, যাতে প্রত্যেকে টিমের পাশে থেকে, টিমের সাফল্য কামনা করেন‌। সচিব সভার শেষটাও করলেন ‘জয় মোহনবাগান’ দিয়েই। আধঘণ্টা আগেও যে সদস্যরাই প্রশ্ন তুলছিলেন, সচিবের ব্যাখ্যা তাঁদেরও যে সন্তুষ্ট করেছে, সেটা বলে দেওয়াই যায়।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement